প্রকাশ : 2018-06-26

জুলাইয়ের মধ্যেই ব্যাংক খাতের সমাধান

দেশের ব্যাংক খাতে যে খারাপ অবস্থা বিরাজ করছে, আগামী জুলাইয়ের মধ্যেই সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে একটি সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, ‘আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বিভিন্ন ব্যাংক পরিচালক, মন্ত্রিসভা ও সংসদ সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে এর একটি বিহিত করতে হবে।’ মঙ্গলবার (২৬ জুন) সচিবালয়ের নিজ দফতরে জাতীয় বাজেট ও অর্থবিল পাস বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে একথা বলেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ব্যাংক খাতের খারাপ অবস্থার জন্য খেলাপি ঋণ বেড়ে গেছে, এটি একটি বড় সমস্যা। বিভিন্ন ব্যাংকের পরিচালকরা পরস্পর সমঝোতার মাধ্যমে যে ঋণ নেন, সে বিষয়েও একটি সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’ মুহিত বলেন, ‘বাজেট পূর্ব আলোচনায় জাতীয় সংসদে ব্যাংকখাতের যে সমালোচনা হচ্ছে, তা নিয়ে আমি আগামী অর্থ বিল পাসের আগেই সংসদে জবাব দেব। তবে ব্যাংকখাত নিয়ে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে, তার সঙ্গে আমি সম্পূর্ণভাবে একমত নই।’ তিনি বলেন, ‘আগামীকাল বুধবার অর্থবিল ও পরের দিন বৃহস্পতিবার ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস হবে। এ উপলক্ষ্যে আগামী পরশু একটি নৈশভোজের আয়োজন করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।’ জাতীয় পার্টির সমালোচনায় অর্থমন্ত্রী আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, বিরোধীদল সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য হয়ে বাজেট নিয়ে যে ধরনের মন্তব্য করেছেন, তা যথার্থ হয়নি। তারা বিরোধীদল হলেও আমরা কোয়লিশন সরকার করেছি।’ ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সরকারের অংশ হয়েও বাজেট বিষয়ে বিরোধীদলের সংসদ সদস্যদের বক্তব্য উগ্র এবং অযৌক্তিক।’ মুহিত বলেন, ‘গেল ১৯ দিনে বাজেট নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যম যে সমালোচনা করেছে এবং বিভিন্ন সংসদ সদস্য যেসব সমালোচনা করেছেন তার ভিত্তিতে অবশ্যই কিছুটা পরিবর্তন হবে। তা আমি আগামীকাল বুধবার বিস্তারিত প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের আগে বলব।’ তিনি আইসিটি ওপর কর আরোপের বিষয় উল্লেখ করে বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমাদের একটি বৈঠক হয়েছে। আমরা এ বিষয়ে কিছু ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেব। আমার মনে হয়, জব্বার সাহেব (ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার) অনেক খুশি হবেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর