মঙ্গলবার, নভেম্বর ২০, ২০১৮
প্রকাশ : 2018-07-05

টানটান উত্তেজনা শেষ আটের যুদ্ধ শুরু কাল

কী খেলাটাই না হচ্ছে রাশিয়ায়! প্রায় প্রতি ম্যাচেই স্নায়ুবিকল করা টানটান উত্তেজনা। অঘটনের ঘনঘটা। তাতে ফুটবল রোমান্টিকদের তৃষিত নয়ন জুড়াচ্ছে কিনা, বলা মুশকিল। তবে এটা নিশ্চিত যে, এমন অঘটনপ্রসবা বিশ্বকাপ খুব কমই দেখেছে ফুটবল। গ্রুপপর্ব ও দ্বিতীয় রাউন্ড শেষে ৩২ দলের বিশ্বকাপ নেমে এসেছে আট দলে। আগামীকাল শুরু হবে শেষ আটের যুদ্ধ। কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেয়া আট দলের চারটিই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। ব্রাজিল, উরুগুয়ে, ফ্রান্স ও ইংল্যান্ড। বাকি চার দলের মধ্যে বেলজিয়াম ও ক্রোয়েশিয়াকে নিয়ে কোনো প্রশ্ন না থাকলেও স্বাগতিক রাশিয়া ও সুইডেনের শেষ আটে উঠে আসাটা বড়সড় চমকই। আরও বড় চমক ঝরে যাওয়া নামগুলো। জার্মানি, আর্জেন্টিনা, স্পেন, পর্তুগাল। তবে শেষ ষোলোতে যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা গেছে তাতে স্পষ্ট বড়-ছোটর ব্যবধান এখন ঊনিশ-বিশ। দ্বিতীয় রাউন্ডে আট ম্যাচের তিনটি নিষ্পত্তি হয়েছে টাইব্রেকারে। বাকি পাঁচ ম্যাচে একাধিক গোলের ব্যবধানে জিতেছে শুধু ব্রাজিল। শুধু স্কোরলাইন নয়, পারফরম্যান্সেও একমাত্র ব্রাজিলই সত্যিকারের ফেভারিটের মতো পা রেখেছে শেষ আটে। মেক্সিকোর বিপক্ষে ২-০ গোলে জেতা ম্যাচে সেলেকাওদের ছন্দময় আক্রমণাত্মক ফুটবল মন ভরিয়ে দিয়েছে সমর্থকদের। দ্বিতীয় রাউন্ডে ব্রাজিল ছাড়া শুধু সুইডেন গোল হজম করেনি। আগামীকাল দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে আসরের ‘কালো ঘোড়া’ বেলজিয়ামের মুখোমুখি হবে ব্রাজিল। এবারের আসরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ১২ গোল করা বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্ম বড় স্বপ্নই দেখছে। কিন্তু ব্রাজিল-বাধা পেরোতে অবিশ্বাস্য কিছুই করে দেখাতে হবে তাদের। দ্বিতীয় রাউন্ডে পুঁচকে জাপানের কাছেই প্রায় আটকে গিয়েছিল বেলজিয়াম। শেষ ২১ মিনিটে তিন গোল করে এ যাত্রায় শেষ রক্ষা হলেও ব্রাজিলের জমাট রক্ষণ এভাবে ভাঙা যাবে না। চার ম্যাচে সাত গোল করার বিপরীতে মাত্র একটি গোল হজম করেছে সেলেকাওরা। ছন্দে ফেরা নেইমারকেও সামলাতে হবে বেলজিয়ামকে। একই দিনে প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে দেখা হবে ফ্রান্স ও উরুগুয়ের। সাদা চোখে ফ্রান্সকে ফেভারিট মনে হলেও উরুগুয়েকে পিছিয়ে রাখার সুযোগ নেই। টানা চার জয়ের পাশাপাশি ব্রাজিলের সঙ্গে যুগ্মভাবে সবচেয়ে কম এক গোল হজম করেছে উরুগুয়ে। শেষ ষোলোর হিরো এডিনসন কাভানি চোট কাটিয়ে সুয়ারেজের সঙ্গে জুটি বাঁধতে পারলে অগ্নিপরীক্ষাই অপেক্ষা করছে ফরাসি রক্ষণের জন্য। কিলিয়ান এমবাপ্পের গতির ঝড়ে আর্জেন্টিনার নড়বড়ে রক্ষণ ধসে পড়লেও ওই ম্যাচে ফ্রান্সও কিন্তু তিন গোল হজম করেছিল। উরুগুয়ের রক্ষণ যেমন বালির বাঁধ নয়, তেমনি আক্রমণভাগও নয় ক্ষুরধার। শনিবার শেষ আটের শেষ দুই ম্যাচে দেখা হবে রাশিয়া-ক্রোয়েশিয়া এবং ইংল্যান্ড-সুইডেনের। সুইডেন ছাড়া বাকি তিন দলই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে টাইব্রেকারের ভাগ্য-পরীক্ষায় জিতে। স্পেনের করুণ পরিণতি দেখার পরও ঝুঁকি নিয়ে বলে দেয়া যায় সোচিতে রাশিয়ার বিপক্ষে পরিষ্কার ফেভারিট মডরিচের ক্রোয়েশিয়া। তবে সামারায় সুইডেন-বাধা পেরোনো মোটেও সহজ হবে না ইংল্যান্ডের জন্য। অধিনায়ক হ্যারি কেন সর্বোচ্চ ছয় গোল করে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকলেও দলের অন্য স্ট্রাইকাররা একদমই ছন্দে নেই। বিপরীতে সুইডেন শেষ আটে উঠে এসেছে পুরোপুরি দলীয় প্রচেষ্টায়। সু ইডেনের স্বপ্নযাত্রা থামাতে কেন-নির্ভরতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে ইংল্যান্ডকে। এখানেও চলে আসছে ব্রাজিলের কথা। দলে নেইমারের মতো মহাতারকা থাকার পরও ব্রাজিলের বড় শক্তি দলের গভীরতা ও ভারসাম্য। রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন এগিয়ে আরেকটি দিকেও। গত বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল যে আটটি দল, তাদের মধ্যে এবার টিকে আছে কেবল ব্রাজিল, ফ্রান্স ও বেলজিয়াম। সেবার শেষ আটেই থেমেছিল ফ্রান্স ও বেলজিয়ামের বিশ্বকাপ যাত্রা। এবার তার পুনরাবৃত্তি হলে ব্রাজিলের ‘হেক্সা’ আর কে আটকাবে!

খেলাধূলা পাতার আরো খবর