প্রকাশ : 2018-07-18

কবি এবং শিল্পীরা সত্য ও সুন্দরের পূজারী :এড. মনজুর মাহমুদ খান

মোরা পত্র লেখক সমাজ (মোপলেস) চট্টগ্রাম এর উদ্যোগে ১৭ জুলাই মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কদম মোবারক এম.ওয়াই উচ্চ বালক-বালিকা বিদ্যালয়ে শ্রাবণ সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়। গান, কবিতা, ছড়া ও কথামালা দিয়ে সাজানো এই অনুষ্ঠান বিশিষ্ট শিÿক ও সাংস্কৃতিক সংগঠক বাবুল কান্তি দাশের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির আসন অলংকিত করেন সাবেক সিনিয়র সহকারী জজ, প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক এড. মনজুর মাহমুদ খান। উদ্বোধক ছিলেন নাট্য অভিনেতা ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সজল চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা দীপংকর চৌধুরী কাজল, আলোকিত অতিথি ছিলেন অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্ত্তী। বিশেষ আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা ছিদ্দিকুল ইসলাম, সাংবাদিক কাঞ্চন মহাজন, বিশিষ্ট সংগঠক ও প্রাবন্ধিক মো: আবদুর রহিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা রাখাল চন্দ্র ঘোষ ও সংগঠক জসীম উদ্দিন চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মোপলেস সভাপতি সজল দাশ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক অচিন্ত্য কুমার দাশ। এতে আরো বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সংগঠক খোরশেদ আলম, সাংবাদিক তরুণ বিশ্বাস অরুণ, কবি আসিফ ইকবাল, ছাত্রনেতা বোরহান উদ্দিন গিফারী, সংগঠক সালাউদ্দিন লিটন, সাংবাদিক নাসির হোসাইন জীবন, সাংবাদিক রোকন উদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক কামাল হোসেন, সংগঠক সুজিত দাশ অপু, সাংবাদিক রুজী চৌধুরী। এতে উপস্থিত ছিলেন শিÿক দুলাল বড়–য়া, তবলা শিল্পী কানুরাম দে, চিত্রশিল্পী সমীরণ পাল, সংস্কৃতিকর্মী নন্দন পুরোহিত, সাংবাদিক ইমরান সোহেল, অলক চক্রবর্ত্তী, রতন ভট্টাচার্য ও মো: জাফর আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী কাজল দত্ত, শিল্পী কাকলী দাশগুপ্তা ও শিল্পী নারায়ণ দাশ। তবলায় ছিলেন দেবেন্দ্র দাশ দেবু। কবিতা আবৃত্তি করেন- ছিদ্দিকুল ইসলাম, অধ্যÿ রতন দাশগুপ্ত, আবৃত্তিকার শবনম ফেরদৌসী, সৈয়দা শাহানা আরা বেগম ও সুমন চৌধুরী। প্রধান অতিথি এড. মনজুর মাহমুদ খান বলেন, শ্রাবণের অপরূপ দৃশ্য আমাদের বারে বারে মুগ্ধ করে। প্রকৃতি তখন নবসাজে সজ্জিত হয়। এই দিনে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানগুলো হৃদয় ছুঁয়ে যায়। বিশেষ করে কবি এবং শিল্পীরা সত্য ও সুন্দরের পূজারী। মোপলেস এর শ্রাবণ সন্ধ্যার আজকের অনুষ্ঠান একটি অনিন্দ্য সুন্দর অনুষ্ঠান। তাদের ধারাবাহিক আয়োজনগুলো স্বল্প পরিসরে হলেও তা মানসম্পন্ন। শ্রাবণের অঝোর ধারায় সম¯Í অন্ধকার কেটে যায় এবং সবার মনে নিয়ে আসে শান্তির বারতা। উদ্বোধক সজল চৌধুরী বলেন, শ্রাবণ সন্ধ্যায় কবি ও শিল্পীরা মনের হরষে কবিতা ও সংগীত পরিবেশন করেন। যা মনে শান্তির পরশ বুলিয়ে দেয়। শ্রাবণের অঝোর ধারায় মনের গহিনে প্রফুলøতা বৃদ্ধি করে, অশান্ত মনকে শান্ত রাখে। শ্রাবণকে উপলÿ করে বিভিন্ন সংগঠক অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে থাকে। তিনি শ্রাবণ-সন্ধ্যা আয়োজনের জন্য সংগঠনের কর্মকর্তাদের সাধুবাদ জানান। প্রধান আলোচক দীপংকর চৌধুরী কাজল বলেন, গান ও কবিতা মানুষের মনকে পরিশুদ্ধ করে। যারা সংস্কৃতিচর্চা করে, তারা অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ, তাদের মধ্যে কখনও হিংসা-বিদ্বেষ জন্ম নেয় না। আলোকিত অতিথি অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্ত্তী বলেন, সংস্কৃতিচর্চার মাধ্যমে যুবসমাজের মাঝে আলোর জ্যোতি ছড়িয়ে দিতে হবে। আমাদের সবাইকে আলোকিত মানুষ হতে হবে। পৃথিবীতে একমাত্র সুন্দর মনের মানুষেরাই সংস্কৃতিচর্চায় রত থাকে। শ্রাবণ-সন্ধ্যা আমাদের প্রত্যাহিক জীবনে কিছু সময়ের জন্য হলেও আনন্দের বার্তা নিয়ে আসে। যা সবার মনকে বিমোহিত করে। সভার সভাপতি বাবুল কান্তি দাশ মোপলেস এর শ্রাবণ-সন্ধ্যার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং উপস্থিত সবাইকে শুভেচ্ছা, অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। সাথে সাথে ভবিষ্যতে এই অনুষ্ঠানের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার আহŸান জানান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সজল দাশ। সভার এক প্র¯Íাবে মোপলেস এর পÿ থেকে ৩২নং আন্দরকিলøা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জহর লাল হাজারীর মাতা স্বর্গীয়া পুতুল সিং হাজারীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ, সৃষ্টিকর্তার কাছে তাঁর আত্মার সদ্গতি কামনা এবং শোকাহত পরিবার-পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর