প্রকাশ : 2018-07-19

ম্যাক্স হাসপাতালের এমডিসহ চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক :রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় ম্যাক্স হাসাপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ এনে চকবাজার থানায় মামলা করেছেন রাইফার বাবা দৈনিক সমকালের সিনিয়র সাংবাদিক ও বিএফইউজের নির্বাহী পরিষদের নব নির্বাচিত সদস্য রুবেল খান। ভুল চিকিৎসা, চিকিৎসায় অবহেলা, গাফেলতি, অদক্ষতা এবং আলামত নষ্ট করার অভিযোগ এনে গতকাল বুধবার বিকেলে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় আসামী করা হয়েছে রাইফার মৃত্যুর পর সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে অভিযুক্ত তিন চিকিৎসক ডা. বিধান রায় চৌধুরী, কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ সেনগুপ্ত, ও ডা.শুভদেব এবং ম্যাক্স হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. লিয়াকত আলী খানসহ ব্যবস্থাপনা পর্ষদকে। এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ার, সিইউজের সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, বিএফইউজের নব নির্বাচিত সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি কাজী আবুল মনসুর, যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, সিইউজের যুগ্ম সম্পাদক সবুর শুভ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কুতুব উদ্দিন, প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক দেব দুলাল ভৌমিক, লাইব্রেরী সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, দৈনিক আমাদের সমেয়র ব্যুরো প্রধান হামিদ উল্লাহ, দৈনিক সমকালের ব্যুরো প্রধান সরোয়ার সুমনসহ বিপুল সংখ্যক সাংবাদিক। চকবাজার থানার ওসি আবুল কালাম মামলাটি গ্রহণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান। পরে সাংবাদিকদের সাথে বৈঠক করেন সিএমপি’র উপ–পুলিশ কমিশনার এস এম মোস্তাইন হোসেন। এসময় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ জানান, রাইফার মৃত্যুর পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বাস্থ্য অধিদফতরের গঠিত তদন্ত কমিটির তদন্ত প্রতিবেদন, চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা: আজিজুর রহমান সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেতে দেরি হওয়ায় মামলা দায়ের করতে কিছুটা বিলম্ব হয়। সিভিল সার্জনের প্রতিবেদনে ম্যাঙ হাসপাতালে রাইফাকে ভর্তি করা থেকে শুরু করে মৃত্যু পর্যন্ত প্রতিটি পদে পদে ভোগান্তি, অদক্ষ–অনভিজ্ঞ নার্স ও চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলা, গাফেলতিকে দায়ী করা হয়। এছাড়া প্রতিবেদনে শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. বিধান চন্দ্র রায়, কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ সেন গুপ্ত ও ডা. শুভ্র দেবের বিরুদ্ধে শিশু কন্যা রাইফার চিকিৎসার ক্ষেত্রে চিকিৎসায় অবহেলারও অভিযোগ আনা হয়। এদিকে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব যৌথভাবে চট্টগ্রামের সাংবাদিক এবং সাধারণ জনতাকে সাথে নিয়ে ধারাবাহিক নিয়মতান্ত্রিকভাবে রাইফার মৃত্যুর সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। নেতৃবৃন্দ মামলায় অভিযুক্ত আসামীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত চট্টগ্রামের সাংবাদিকরা ঘরে ফিরে যাবে না। এ জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকারও আহবান জানানো হয়।দৈনিক আজাদী

সারা দেশ পাতার আরো খবর