প্রকাশ : 2018-08-02

তীব্র যানজটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

অনলাইন ডেস্ক: রাতে দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশ। বুধবার সকালে ঢাকার সাইনবোর্ড এলাকা হতে শুরু হওয়া যানজট রাতে এসে কুমিল্লার দাউদকান্দি পেরিয়ে চান্দিনা ছাড়িয়ে যায়। সময় যাচ্ছে, বাড়ছে থেমে থাকা গাড়ির সংখ্যা। দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে যানজট। দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুপুর পর্যন্ত মহাসড়কের দাউদকান্দি পর্যন্ত গাড়ি ধীরে চললেও যানজট ছিলো না। কিন্তু বিকেল থেকে যানজটের তীব্রতা বাড়তে থাকে। আর রাতে এসে তা তীব্র আকার ধারণ করেছে। যানজট নিরসনে নাকাল হাইওয়ে পুলিশের একটি সূত্র বলছে, ঢাকাগামী লেনে থেমে থাকা গাড়ির দীর্ঘতা যে হারছে বাড়ছে; তা সত্যিই আশঙ্কাজনক। যানজটের এ ভোগান্তি আরো দীর্ঘ হতে পারে বলেই শঙ্কা তাদের। দেশের লাইফলাইন খ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সৃষ্টি হওয়া স্বরণকালের তীব্র যানজটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকাগামী যাত্রী ও পরিবহনের চালকগণ। বিশেষ করে বিদেশগামী হজযাত্রী, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সে থাকা স্বজনদের জন্য মহা-দুর্ভোগের কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে এ যানজট। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে যেনো পুরোপুরিভাবেই স্থবির হয়ে পড়েছে রাতের মহাসড়ক। রাত সাড়ে ৮টার দিকে দাউদকান্দি থেকে ঢাকাগামী এক যাত্রী বলেন, বিকেল ৫টায় আমাদের বাসটি টোলপ্লাজার একটু সামনে এসে থামে। এরপর থেকে এখানেই আটকে আছি, সামনে এগুনোর পথ দেখছি না। হাইওয়ে পুলিশ জানায়, ঢাকায় বাস চাপায় কলেজ শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলনে রাজধানীর প্রবেশমুখের মহাসড়কগুলোতে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। বুধবার সকাল থেকে শুরু হওয়া যানজটের দীর্ঘতা ধীরে ধীরে কেবল বাড়তেই থাকে। যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশের একাধিক টিম দায়িত্ব পালন করছেন বলেও জানিয়েছেন কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দাউদকান্দি সার্কেল) মহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, ঢাকায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রভাব এসে পড়েছে মহাসড়কগুলোতে। দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন বলেন, সড়ক জুরে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। জোরদার করা হয়েছে টহল ব্যবস্থা। যানজট নিরসনে আপ্রাণ চেষ্ঠা চালানো হচ্ছে।

সারা দেশ পাতার আরো খবর