বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮
প্রকাশ : 2018-09-01

শিক্ষা খাতে বরাদ্দ নয়, বিনিয়োগ করে সরকার

অনলাইন ডেস্ক: শিক্ষা খাতে সরকার বরাদ্দ নয়, বিনিয়োগ করে বলে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলে ৭ মার্চ ভবনের উদ্বোধন পরবর্তী এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। তার আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই ভবনের নামফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের শিক্ষকরা যেমন শিক্ষা দেবেন, শিক্ষার্থীরাও উপযুক্ত শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে। শিক্ষা মানে শুধু কেতাবি শিক্ষা না, জীবন মান উন্নয়নের শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। শিক্ষার্থীরা যে শিক্ষাগ্রহণ করবে তার সুফল যেনো আবার সাধারণ মানুষ পায়। সেদিকেও বিশেষ ভাবে দৃষ্টি দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে উচ্চ শিক্ষায় অন্যান্য দেশের তুলনায় সবচেয়ে কম খরচের কথা শিক্ষার্থীদের কাছে তুলে ধরে বলেন, শিক্ষায় আমরা যা খরচ করি; এটাকে কখনও আমরা খরচ হিসাবে মনে করি না। আমি মনে করি, এটা আমরা বিনিয়োগ করছি, যা আমাদের দেশ গঠনে কাজে লাগবে, আমাদের দেশের মানুষ উপযুক্ত হয়ে গড়ে উঠবে। শিক্ষার্থীদের নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, উচ্ছৃঙ্খলতা কখনো গ্রহণযোগ্য নয়। সবাইকে নিয়ম মেনে চলতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করতে হলে নিয়ম মেনে আচরণ করতে হবে। রোকেয়া হলের নতুন ভবনে এক হাজার ছাত্রীর আবাসনের ব্যবস্থা হবে। প্রধানমন্ত্রী ভবনটি উদ্বোধন করে এই ভবনে স্থাপিত ৭ মার্চ জাদুঘর ঘুরে দেখেন। এই ভবন ব্যবহারের ক্ষেত্রে ছাত্রীদের যত্নবান হওয়ার তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ভবনটা যেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে; অবশ্যই তাদের এই নজরটা দিতে হবে। আমাদের বাঙালিদের একটা বদভ্যাস হচ্ছে; খেয়ে টেয়ে নিয়ে টাস করে ছুড়ে ফেলে দেওয়া। এই বদ অভ্যাসগুলো পরিহার করতে হবে। আজকে বিদ্যুৎ আছে বলে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করা, এটা যাতে না হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালে জাতির জন্মশতবার্ষিকী আমরা উদযাপন করব এবং ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করব। কাজেই এই সুবর্ণজয়ন্তী এবং জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী খুব অল্প সময়ের ব্যবধানেই কিন্তু আমরা উদযাপন করতে যাচ্ছি। বাংলাদেশ আজকে উন্নয়নের রোল মডেল উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি যখন যেখানেই যাই, ওই একটাই প্রশ্ন অনেকে জিজ্ঞাসা করেন, আপনারা এত দ্রুত কীভাবে অর্থনৈতিক উন্নতি করতে পারেন? কোনো কোনো রাষ্টপ্রধান বা সরকারপ্রধান তো জিজ্ঞাসা করেন, ম্যাজিকটা কী? আমি শুধু তাদের একটা কথাই বলি, এখানে কোনো ম্যাজিক নাই। ম্যাজিক একটাই, সেটা হলো একটা আদর্শ নিয়ে আমরা রাষ্ট্র পরিচালনা করি। ক্ষমতা আমার কাছে ভোগের বস্তু নয়। ক্ষমতা হচ্ছে জনগণের জন্য দায়িত্ব পালন করা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য নাসরিন আহমেদ ও মোহাম্মদ সামাদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ এবং রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ জিনাত হুদা বক্তব্য রাখেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর