প্রকাশ : 2017-12-24

শনিবার দুপুরে পাকিস্তানি সেনাদের হামলায় এক ভারতীয় মেজর ও দুই সেনাসদস্য নিহত

জম্মু ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখার (অমীমাংসিত সীমান্ত) বিভিন্ন স্থানে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে সম্প্রতি প্রায় প্রতিদিনই গোলাগুলির ধারাবাহিকতায় শনিবার দুপুরে পাকিস্তানি সেনাদের হামলায় এক ভারতীয় মেজর ও দুই সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন। ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১২০তম ইনফ্যান্ট্রি বিগ্রেডের অধীনে জম্মু ও কাশ্মীরের কেরি সেক্টরে মোতায়েন দুটি শিখ ব্যাটালিয়ন টহলে থাকা অবস্থায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সীমান্ত পোস্ট থেকে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এক ভারতীয় সেনাকর্মকর্তা বলেছেন, গোলা হামলায় এক মেজর ও দুই সেনা নিহত হয়েছেন এবং আরো এক সেনা আহত হয়েছেন। আমাদের সেনারা যথোপযুক্ত জবাব দিয়েছেন। ভারতের দাবি, ৭৭৮ কিলোমিটার দীর্ঘ নিয়ন্ত্রণরেখায় চলতি বছরে ৭৮০ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান। এ ছাড়া জম্মু ও কাশ্মীরে ১৯৮ কিলোমিটার দীর্ঘ আন্তর্জাতিক সীমান্তে এ বছর ১২০ বারের বেশি সীমান্ত লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তানি বাহিনী। এই আন্তর্জাতিক সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করে থাকে। ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে যথাক্রমে ১৫৩, ১৫২ ও ২২৮ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে পাকিস্তান। গতমাসে হটলাইনে আলাপের সময় ভারতীয় সেনাবাহিনীর সামরিক অভিযানবিষয়ক মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এ কে ভাট তার পাকিস্তানি প্রতিপক্ষ মেজর জেনারেল শামশাদ মির্জাকে বলেছিলেন, শান্তির পক্ষে কথা বলা পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সদর দপ্তর ও নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন তাদের সেনাদের মধ্যে বাস্তব ক্ষেত্রে ফারাক দেখা যাচ্ছে। নিয়ন্ত্রণরেখায় পাকিস্তানি সেনারা বিনা উসকানিতে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করছে। জেনারেল ভাট আরো বলেছিলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনী সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখলেও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে যেকোনো ধরনের উসকানিমূলক আগ্রাসন চালানো হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে ভারত। গত কয়েক মাস ধরে আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসবাদ দমন ও সন্ত্রাসীদের অনুপ্রবেশ রুখতে এবং ভারতীয় সেনাদের টার্গেট না করতে পাকিস্তানকে হুঁশিয়ার করে ভারত বলে আসছে, যেকোনো ধরনের উসকানির সমোচিত জবাব দেওয়া হবে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর