প্রকাশ : 2017-12-24

আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনে দেশ পরিচালনা করবে :আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, মেয়েকে ন্যূনতম স্নাতক পর্যন্ত শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ দিন। ১৮ বছরের আগেই বিয়ে দিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করবেন না। রোববার রাজধানীর মিরপুরে ডাচ-বাংলা ব্যাংকের অর্থায়নে স্নাতক পর্যায়ে অধ্যয়নরত ৩০১৯ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত প্রধান অতিথি ছিলেন। ডাচ-বাংলা ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান সায়েম আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এ সময় ব্যাংকটির প্রতিষ্ঠাতা ও ডাচ-বাংলা ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এম সাহাবুদ্দিন আহমেদও উপস্থিত ছিলেন। আইনমন্ত্রী বলেন, আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনে দেশ পরিচালনা করবে। তাই তাদের মেধা বিকাশে সঠিক যত্ন ও রক্ষণাবেক্ষণ আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। তিনি বলেন, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সবসময় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দিয়ে ডাচ-বাংলা ব্যাংক সরকারের এ চেষ্টায় সহযোগিতা করছে। মেধাবী অথচ আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের কল্যাণে ডাচ-বাংলা ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসনীয়। এ মহতি কার্যক্রম ডাচ-বাংলা ভবিষ্যতেও অব্যাহত এবং দেশ ও জাতি গঠনে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। নতুন বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ, আধুনিক যুগোপযোগী ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে সিলেবাস প্রণয়ন, উপবৃত্তি প্রদান, শিক্ষায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, কোচিং বাণিজ্য বন্ধে নীতিমালা প্রণয়ন, কারিগরি শিক্ষার প্রসার ও মাদরাসা শিক্ষা আধুনিকায়নসহ সরকার নানা কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, মেয়েকে ন্যূনতম স্নাতক পর্যন্ত শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ দিন। ১৮ বছরের আগে বিয়ে দিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করবেন না। সবার জন্য শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা আমাদের জাতীয় কর্তব্য। সরকারের একার পক্ষে এ বিশাল দায়িত্ব পালন করা দুরূহ ব্যাপার। সে জন্য সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এমনকি ব্যক্তি বিশেষকেও এগিয়ে আসতে হবে।