প্রকাশ : 2018-01-06

৫ জানুয়ারী বাংলাদেশে একটি ঐতিহাসিকগণতন্ত্র হত্যা ও কালো দিবস

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ৫ জানুয়ারী বাংলাদেশে একটি ঐতিহাসিক গণতন্ত্র হত্যা ও কালো দিবস। বিগত ৫ জানুয়রী একদলীয় ও ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে দেশে একটি ফ্যাসিষ্ট সরকারে পরিণত হয়েছে। শুধু তাই নয় ১৫৪ জন বিনা ভোটে সংসদ সদস্য নিয়ে সরকার গঠন করে এ দেশের ইতিহসাকে কলংকিত করেছে। যা বিদেশে আমাদের দেশের ভাবমূর্তিকে চরমভাবে ক্ষুন্ন করেছে। তিনি আজ ৫ জানুয়ারী বিকালে নগরীর কাজীর দেউড়ীস্থ ভিআইপি টাওয়ার সম্মুখে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির কলো পাতাকা মিছিল ও বিক্ষোভ সভাবেশে সভাপতির বক্তব্য রাখছিলেন। ডা. শাহাদাত বলেন, রাস্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্টিত হয়ে ফ্যাসিষ্ট কায়দায় গুম, খুন, নির্যাতন নিপীড়নের মাধ্যমে বিরোধী দলকে দমন করছে সরকার। গণতন্ত্র, ভোটাধিকার, মানবাধিকার হরণ করে ক্ষমতায় ঠিকে থাকার নীল নকশা বাস্তবায়ন করেছে। তাই গণতন্ত্র পুন:রুদ্ধার ভোটাধিকার, বাক স্বাধীনতা, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় চট্টগ্রামবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসতে হবে। ডা. শাহাদাত আরো বলেছেন, এ অবৈধ সরকার জনগণের আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। তাদেরকে এদেশের জনগণ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। তারা তথ্য সন্ত্রাস চালিয়ে বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। কিন্তু কোন মিথ্যাকে সত্য বানিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে দমিয়ে রাখা যাবে না। এ সরকারের দুর্নীতি দু:শাসন, অপশাসনের বিরুদ্ধে জনগণ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে পদত্যাগে বাধ্য করবে। প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেছেন, দেশ ব্যাপি গুম, খুন, অপহরণ ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ডের নারকীয় কর্মযজ্ঞে তো মনে হয় সরকারের এক ধরনের খেলা হয়ে গেছে। মানুষের রক্তে হাত রঞ্জিত করে উল্লাস প্রকাশ করা যেন আওয়ামী সন্ত্রাসীদের এক ধরনের নেশা। এ সব ঘৃণ্য অপকর্মের উদ্দেশ্যই হল দেশের জনগণকে ভীতির মধ্যে রেখে বিএনপিকে নিশ্চিন্ন করা। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী বাংলাদেশে হয়েছিলো একটি তামাশার নির্বাচন। যে নির্বাচনে দেশের ৫% জনগণও ভোট দেয়নি। সেদিন আওয়ামী মহাজোটের শরীকদের মধ্যে ক্ষমতার ভাগাভাগি হয়েছিলো। তিনি বলেন, অবৈধভাবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা কুক্ষিগত করে বিএনপিসহ সকল বিরোধী দলকে নিশ্চিন্ন করতে নীল নকশার রোড ম্যাপ বাস্তবায়নে অতি দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় আগামীতেও ৫ জানুয়ারী মার্কা ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে আদালতের মাধ্যমে মিথ্যা সাজা দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার পাঁয়তারা করছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ৫ জানুয়ারী মার্কা আর কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য আলহাজ্ব শামসুল আলম, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব এম এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী, সৈয়দ আজম উদ্দিন, সবুক্তগীন ছিদ্দিকী মক্কি, হারুন জামাল, কমিশনার মাহবুবু আলম, নিয়াজ মোহাম্মদ খান, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, মোহাম্মদ ইকবাল চৌধুরী, এস এম আবুল ফয়েজ, এম এ হান্নান, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এস এম সাইফুল আলম, কাজী বেলাল উদ্দিন, মো. শাহআলম, ইসকান্দর মির্জা, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আবদুল মান্নান, জাহাঙ্গির আলম দুলাল, কাউন্সিলর আবুল হাশেম, মঞ্জুর আলম মঞ্জু, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মোহাম্মদ সিরাজউল্লাহ, উপদেষ্টা জাহিদুল করিম কচি, হাজী বাবর মিয়া, হাজী নবাব খান, শেখ নুরুল্লাহ বাহার, সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুর আলম মঞ্জু, কামরুল ইসলাম, হাজী মো. তৈয়ব, কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি, জেলী চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক জহির আহমেদ, ইব্রাহিম চৌধুরী, মো. শাহআলম, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শিহাব উদ্দিন মুবিন, মোহাম্মদ আলী মিঠু, এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, মাঈনুদ্দিন মোহাম্মদ শহীদ, এম আই চৌধুরী মামুন, হামিদ হোসাইন, দিদারুল আলম চৌধুরী, আলহাজ্ব কামাল উদ্দিন, আবদুল নবী প্রিন্স, আবদুল বাতেন, থানার সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরী, হাজী বাবুল হক, মোশারফ হোসেন ডেপতী, আবদুল্লাহ আল হারুন, সহসম্পাদকবৃন্দ এ কে এম পেয়ারু, আবদুল হালিম স্বপন, মো. সেলিম, রফিকুল ইসলাম, মো. ইদ্রিস আলী, খোরশেদ আলম কুতুবী, আজাদ বাঙালী, আরিফ মেহেদী, ইউনুস চৌধুরী হাকিম, আবু মুছা, সফিক আহমেদ, আলমগীর নূর, নকীব উদ্দিন ভূঁইয়া, আবুল খায়ের মেম্বার, আবদুল হাই, আলী আজম, থানার সাধারণ সম্পাদক আফতাবুর রহমান শাহীন, আলহাজ্ব জাকির হোসেন, হাজী মো. বাদশা মিয়া, মনির আহমদ চৌধুরী, নূর হোসেন, আবদুল কাদের জসিম, জাহাঙ্গির আলম, বেলায়েত হোসেন ভুলু, ডা. মো. ছাদেক প্রমুখ।

সারা দেশ পাতার আরো খবর