বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯
প্রকাশ : 2019-02-26

নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দিলেন ডাকসু-হল সংসদ প্রার্থীরা

২৬ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন প্রার্থীরা। ডাকসুতে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস মিললেও হল সংসদে ছাত্রলীগ ছাড়া পূর্ণ প্যানেল দিতে পারেনি অন্য কোনো সংগঠন। ফলে বেশ কিছু পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন ছাত্রলীগ প্রার্থীরা। যাচাই বাছাই শেষে কালই প্রকাশ করা হবে প্রার্থীদের প্রাথমিক তালিকা। ক্যাম্পাসে নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে ছাত্রসংগঠনগুলোর মধ্যে আছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার জন্য প্রার্থীদের সময় দেয়া হয় মাত্র ৩ ঘণ্টা। এ সময়ের মধ্যেই নিজ নিজ হলে মনোনয়নপত্র জমা দেন প্রার্থীরা। এদিকে, ক্যাম্পাসে নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে ছাত্রসংগঠনগুলোর মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। সরকারবিরোধী সংগঠনগুলো বলছে, নানাভাবে তাদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ। ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের ভিপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পরিস্থিতি বুঝে আমি সিদ্ধান্ত নিবো। এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি ভাল। ডাকসু নির্বাচনে সাধারণ ছাত্র পরিষদের জিএস প্রার্থী রাশেদ খান বলেন, এখন পর্যন্ত ডাকসু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি। ছাত্রদের মধ্যে এখনো আতঙ্ক রয়েছে। তারা এক ধরনের ভয়ের মধ্যে রয়েছে। আসলে তারা ভোট দিতে পারবে। ছাত্রলীগের ভিপি প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, এখানে সহাবস্থানের বিষয় নয়, সাধারণ শিক্ষার্থীরা যদি তাদেরকে সেভাবে গ্রহণ না করে, আমাদের কি করার আছে, আমরা তো তাদেরকে বাধা দিচ্ছি না। কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদে সবগুলো সংগঠন তাদের পূর্ণ প্যানেল দিয়েছে। কিন্তু হল সংসদে একেবারে ভিন্ন চিত্র। ছাত্রলীগ ছাড়া বাকিরা পারেনি প্রার্থী তালিকা পূর্ণ করতে। মেয়েদের পাঁচটি হল ও ছেলেদের জগন্নাথ হলে কোনো প্রার্থীই দিতে পারেনি ছাত্রদল। বাম ছাত্রজোট ও কোটা আন্দোলনকারীরা কোনোরকম গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে ১৩টি পদের বিপরীতে মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে ১৯টি। সুফিয়া কামাল ও শামসুন্নাহার হলে ১৩ পদের বিপরীতে ২২টি। অন্য হলগুলোতে একটু বেশি জমা পড়লেও বেশ কিছু পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন ছাত্রলীগের প্রার্থীরা।

জাতীয় পাতার আরো খবর