প্রকাশ : 2019-05-08

২২ শতাংশ নারী শ্রমিক যৌন হয়রানির শিকার

৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলোতে ২২.৪ শতাংশ নারী শ্রমিক যৌন হয়রানির শিকার হয় বলে এক গবেষণা প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি হয়রানির শিকার হয় কারখানার হেলপার এবং কাজে আসা নতুন শ্রমিকরা। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন (এমজেএফ), নারী পক্ষ ও আওয়াজ ফাউন্ডেশন গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে তৈরি পোশাক শিল্প কারখানায় নারী শ্রমিকদের যৌন হয়রানি : সংগ্রাম ও উত্তরণের উপায় শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এই তথ্য প্রকাশ করে। আয়োজকরা জানায়, গবেষণাটি ঢাকার মিরপুর এবং চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ ও বায়েজিদ বোস্তামি রোডে অবস্থিত ২২টি পোশাক কারখানায় পরিচালিত হয়েছে। যৌন হয়রানি প্রতিরোধে বিদ্যমান যেসব আইন ও প্রবিধান আছে সেগুলোও পর্যালোচনা করা হয়েছে। নারী শ্রমিকরা কেন যৌন নির্যাতনের শিকার হয় সে প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নেয় না। হয়রানির বিষয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে কোনো নজরদারি কমিটি হয় না। অপরাধীদের কোনো রকম শাস্তি হয় না। কারখানা কর্তৃপক্ষও যৌন হয়রানিকে কোনো অপরাধ বলে মনে করে না। কেন নারী শ্রমিকরা যৌন হয়রানি সম্পর্কে অভিযোগ করে না, তার কারণ হিসেবে গবেষণায় উঠে এসেছে যে যৌন হয়রানির সমাধান সময়সাপেক্ষ, নারীদের সংসারে ও কর্মক্ষেত্রে থাকে ব্যাপক কাজের চাপ। এ ছাড়া যৌন হয়রানির ঘটনা প্রকাশের ভয় থাকে এবং হয়রানির শিকার মেয়েটির পোশাক ও আচরণ নিয়েও অপমানজনক কথা বলা হয়। এসবকে এড়িয়ে চলার জন্যই তারা অভিযোগ করে না। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমনকি যৌন হয়রানি বিষয়ে হাইকোর্টের যে নির্দেশনা আছে সে সম্পর্কেও শ্রমিকরা খুবই কম জানে। দেখা গেছে, ৭৯ শতাংশ নারী শ্রমিক এবং ৭৯ শতাংশ পুরুষ শ্রমিক এ সম্পর্কে জানেই না। যারা জানে, তাদেরও ধারণা খুব একটা স্বচ্ছ নয়।- আলোকিত বাংলাদেশ

জাতীয় পাতার আরো খবর