প্রকাশ : 2019-06-21

পুলিশী হয়রানী,এ.এস.আই বললেন ভুল বুঝাবুঝি

২১জুন২০১৯,শুক্রবার,চট্টগ্রাম অফিস,নিউজ একাত্তর ডট কম: লোভী ও অপরাধে জরিত কয়েক জন পুলিশের কারনে পুলিশী সংস্থার দূর্ণাম যেন কোনো ভাবেই দূর করা যাচ্ছেনা।যেনো সর্সের মধ্যে ভুত ।একটি থানায় যদি ওসি ভালো হয় দেখা যায় ঐ ওসির দূর্নাম রটাতে অপরাধের সাথে জরিত অনান্য পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন অপকর্ম করে থাকেন, তেমনী এক ঘঠনা ঘঠেছে চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানায়।২১ জুন শুত্রুবার প্রতিদিনের মতো অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিউজ একাত্তর ডট কম ও দৈনিক সবুজ নিশান পত্রিকার ফটো সাংবাদিক সোহেল দৈনিক সবুজ নিশান পত্রিকা নিয়ে পাহাড়তলী থানায় পত্রিকা দিতে গেলে সেকানে দায়ীত্বরত এ.এস.আই রোকসানা ও কনেষ্টেবল মাইনুদ্দিন, সোহেল কে আটক করে মামলা দিয়ে কোটে চালান দেয়ার হুমকী দিয়ে বলেন,পাহাড়তলী থানায় যে কোনো সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে,তুমি পত্রিকা নিয়ে এই থানায় কেনো আসো। এ সময় থানায় অন্য কোনো কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন না।সোহেল উক্ত ঘঠনা তার পত্রিকা অফিসের কর্তৃপক্ষকে জানালে,নিউজ একাত্তর ডট কম এর সম্পাদক মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন চৌধুরী পাহাড়তলী থানার ওসিকে উক্ত ঘঠনার বিষয়ে অবগত করেন,ওসি তৎখনিক একই থানার এ.এস. আই ধরমেদ্রকে বললে তিনি এসে সোহেলকে ছেড়ে দিয়ে বলেন,তাদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝির কারণে এই ঘঠনাটা হয়েছে।কিন্তু সোহেল তার কাজের পাশাপাশি চট্টগ্রামের সকল প্রশাসনিক স্থানে দৈনিক সবুজ নিশান পত্রিকার সৌজন্য সংখ্যা বিলি করে থাকেন।সেই সুবাধে পাহাড়তলী থানার এ এস আই রোকসানা ও কনেষ্টেবল মাইনুদ্দিন সোহেলকে পূর্ব থেকে চিনতেন এবং জানতেন, সেই কারনে ২১শে জুনের ঘঠনাটা একটি সুপরিকল্পিত বলে ধারনা করা যাচ্ছে।ইতি মধ্যে চট্টগ্রামে মাদকের বিরুদ্ধে দৈনিক সবুজ নিশান পত্রিকায় বেশকিছু সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছিলো।ধারনা করা হচ্ছে ঐ মাদক কারবারীদের সাথে পাহাড়তলী থানায় কর্মরত এ এস আই রোকসানা ও কনেষ্টেবল মাইনুদ্দিনের একটি যোগসূত্র থাকতে পারে,তাদের বিষয়ে কয়েকদিনের মধ্যে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে।সাংবাদিক সোহেলকে আটক এবং থানায় সাংবাদিক প্রবেশে এএসআই ও কনেষ্টেবলের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে চট্টগ্রাম রিপোর্টাস ইউনিটি,বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব সহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের পক্ষ থেকে তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।উল্লেখ্য যে, গত কিছুদিন পূর্বে পাহাড়তলী থানার ওসি মাইনুদ্দিনকে নিয়ে উক্ত পত্রিকায় ,মানবিক এক পুলিশ অফিসার পাহাড়তলী থানার ওসি, শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছিলো।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর