প্রকাশ : 2019-06-24

কাজের ক্ষেত্রে ব্যর্থতা বলে কিছু নেই

২৪জুন২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কাজের ক্ষেত্রে কেবল প্রতিক্রিয়া বা ফিডব্যাক থাকে, ব্যর্থতা বলে কিছু নেই। তাই হতাশ না হয়ে নিজেকে প্রতিনিয়ত এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে (ইডিইউ) ম্যানেজিং পিপল ইন চেঞ্জিং ওয়ার্ক এনভায়রনমেন্ট শিরোনামে এক কর্মশালায় এসব কথা বলেছেন ড. হিশাম বিন জাকিরিয়া। তিনি প্রথম সারির এএসিএসবি-এক্রেডিটেড বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর একটি ইউনিভার্সিটি উতারা মালয়েশিয়া (ইউইউএম) এর সহযোগী অধ্যাপক। ইডিইউর আমন্ত্রণে বাংলাদেশে এসেছেন তিনি। ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির প্রশাসনে কর্মরতদের কর্মদক্ষতা উন্নয়ন ও কর্মক্ষেত্রে সৃজনশীলতা প্রণয়নে দক্ষতা আনতে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। ইডিইউর প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, আমরা আর শুধুমাত্র বাংলাদেশের মধ্যে আবদ্ধ নেই। বর্তমানে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে কাজ করছে ইডিইউ। ফলে কাজের পরিসর বড় হয়ে যাওয়ায় ইডিইউতে কর্মরতদের জন্য এই কর্মশালা খুব প্রয়োজনীয় ছিলো। তিনি আরো বলেন, কর্মকর্তাদের মধ্যে নেতৃত্বের বিকাশ ঘটাতে চায় ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি। তাই তারা যাতে সঙ্কোচ ও দ্বিধা কাটিয়ে পরিপূর্ণভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারে, কাজে নিজের সর্বোচ্চ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে পারে, সে অনুপ্রেরণা সৃষ্টির লক্ষ্যে এ কর্মশালার আয়োজন করেছি আমরা। এতে কাজের প্রতি প্যাশন তৈরি হয়। কর্মশালা পরিচালনাকারী ড. হিশাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো বড় প্রতিষ্ঠান পরিচালনা বর্তমান সময়ে সহজ কাজ নয়। কাজের পরিবেশ পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বদলে গেছে দাপ্তরিক আচরণ, কাজের ধরণ ও গতি। তাই পরিবর্তিত এ পরিবেশের সাথে মানিয়ে নিয়ে চলতে হলে বদলাতে হবে নিজেকেও। তিনি আরো বলেন, ধকল বা স্ট্রেস আমাদের কাজের ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। নিজেকে এই স্ট্রেসমুক্ত রাখতে কর্মক্ষেত্রকে আনন্দময় ও চাপহীন রাখতে হবে। এক্ষেত্রে সহকর্মীর সহযোগিতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই সহকর্মীর সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা ও সক্রিয় যোগাযোগ তৈরিতে গুরুত্ব দিতে হবে। নিওরো লিঙ্গুইস্টিক প্রোগ্রাম এর সাহায্যে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীরা কিভাবে নিজের ও সহকর্মীর মানসিক দক্ষতা বাড়ানো এবং চাঙ্গা রাখা যাবে তার বিভিন্ন কৌশল শেখান ড. হিশাম। তিনি অংশগ্রহণকারীদের আরো নমনীয় হওয়া ও যোগাযোগমূলক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধির পরামর্শ দেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর