প্রকাশ : 2019-07-11

নগরীতে নতুন গ্যাস সংযোগ চালু করুন: সুজন

১১জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রামে বাণিজ্যিক এবং আবাসিক খাতে স্থগিত গ্যাস সংযোগ পূণরায় চালু এবং প্রিপেইড মিটার স্থাপন করার জন্য কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক খায়েজ আহম্মদ মজুমদারের নিকট আহবান জানিয়েছেন জনদুর্ভোগ লাঘবে জনতার ঐক্য চাই শীর্ষক নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।তিনি আজ ৯ জুলাই মঙ্গলবার বেলা ১২টায় কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সাথে তার দফতরে এক মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।এ সময় জনাব সুজন বলেন, চট্টগ্রাম হচ্ছে বাংলাদেশের বানিজ্যিক রাজধানী। দেশের প্রধানতম সমুদ্র বন্দর, আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর, সিইপিজেড, কেইপিজেড, তেল শোধনাগার, নৌ-বিমান ঘাটিসহ প্রধানতম শিল্প কারখানা সবই চট্টগ্রামে অবস্থিত। সে দিক থেকে চট্টগ্রামের গুরুত্ব অত্যধিক। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে চট্টগ্রামের গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নিয়েও কেজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান করছে না। এতে করে চট্টগ্রামের ব্যবসা বানিজ্য এবং গৃহস্থালী কাজে মারাতক সমস্যা হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সদিচ্ছায় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে।ইতিমধ্যে দেশের জনগনের গ্যাসের চাহিদাকে গুরুত্ব দিয়ে প্রাকৃতিক গ্যাসের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ থেকে এলএনজি আমদানি করছে সরকার। কেজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রামের জনগনকে আশ্বস্ত করেছিল এলএনজি আসার পরে নগরীতে নতুন গ্যাস সংযোগ চালু হবে। জনগনও আশ্বস্ত হয়েছিল এলএনজি হয়তো চট্টগ্রামের জনগনের দুঃখ ঘুচাতে সক্ষম হবে। এতো কিছুর পরও চট্টগ্রামে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান না করাটা চট্টগ্রামের জনগনের প্রতি বিমাতাসুলভ আচরন বলে আমরা মনে করি। তিনি চট্টগ্রামের গুরুত্ব বিবেচনা করে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান করার বিষয়টি মন্ত্রণালয়ে গুরুত্ব সহকারে উপস্থাপন করার অনুরোধ জানান। সম্প্রতি চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বেশ কিছু প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছিল। প্রিপেইড মিটার স্থাপনের ফলে জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে। আবার প্রিপেইড স্থাপন কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার ফলে দূর্নীতিবাজরা উৎসাহিত হবে বলে মত প্রকাশ করেন তিনি। তাই অতিসত্বর প্রিপ্রেইড মিটার স্থাপনের কাজ শুরুর করার জন্য কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের প্রতি আহবান জানান সুজন। তিনি ৩৮নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিনের গ্যাস সংকট সমাধানে প্রকল্প গ্রহন এবং অনুমোদনে আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করায় অভিনন্দন জানান। তাছাড়া গতকাল পতেঙ্গা এলাকায় সিডিএর উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করতে গিয়ে অসাবধানতাবশত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া গ্যাস সংযোগ পুনঃস্থাপনে ত্বড়িৎ সিদ্ধান্ত গ্রহন করে দ্রুত সংযোগ স্থাপন করায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক খায়েজ আহম্মদ মজুমদার নাগরিক উদ্যোগের নেতৃবৃন্দকে বার বার তাঁর কার্যালয়ে এসে জনদুর্ভোগ লাঘবে জনগনের পাশে থেকে কাজ করার জন্য ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, নাগরিক উদ্যোগের পক্ষ থেকে উপস্থাপিত দাবীগুলো অতীব প্রয়োজনীয় এবং বাস্তবসম্মত। দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রামে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান বন্ধ রয়েছে সত্যি। গ্যাস সংযোগ বন্ধের কারণে ব্যবসা বানিজ্য এবং গৃহস্থালী কাজে চট্টগ্রামবাসী দূর্ভোগের বিষয়ে আমি ব্যাক্তিগতভাবে অবগত। আপনারা অবগত আছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং অত্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মহোদয়ের দিকনির্দেশনায় কেজিডিসিএল জনদূর্ভোগ লাঘবে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশ্বাসও প্রদান করেছিলাম যে এলএনজি আমদানির পর আবাসিক অনাবাসিক এবং শিল্প কারখানার গ্যাস সংকট স্থায়ীভাবে সমাধান হবে। তবে এটাও সত্যি যে, যখন কোন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয় তখন সামগ্রিকভাবে পুরো দেশের কথা বিবেচনা করেই উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। সে অর্থেই আপাতত চট্টগ্রামে গ্যাস সংযোগ প্রদান বন্ধ রয়েছে। আমি চট্টগ্রামের জনগনের সমস্যার গুরুত্ব উপলব্দি করেই নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদানের বিষয়ে আমার যাবতীয় তৎপরতা অব্যাহত রাখবো। তিনি আরো বলেন ইতিমধ্যে কেজিডিসিএল নগরীতে ৬০ হাজার প্রিপেইড মিটার স্থাপন করেছে। আরো ২ লাখ প্রিপেইড মিটার স্থাপনের জন্য মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাব অনুমোদন হলেই প্রিপেইড মিটার স্থাপনের কাজ শুরু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। তাছাড়া নগরীর ৩৮নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিনের গ্যাস সংকট নিরসনে সাড়ে ৬ কোটি টাকার প্রকল্প ইতিমধ্যে অনুমোদন করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন থেকে রাস্তা কাটার অনুমতি পেলেই আনুসাঙ্গিক কাজ শুরু হবে বলে নেতৃবৃন্দকে অবহিত করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক।মতবিনিময় সভা শেষে নগরীতে নতুন গ্যাস সংযোগ চালু এবং প্রি-পেইড মিটার স্থাপনের অনুরোধ জানিয়ে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন নাগরিক উদ্যোগের নেতৃবৃন্দ।এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেজিডিসিএল এর সচিব সালেউদ্দিন সরওয়ার, রাজনীতিবিদ হাজী মোঃ ইলিয়াছ, সংগঠনের সদস্য সচিব হাজী মোঃ হোসেন, নিজাম উদ্দিন, কেজিডিসিএল শ্রমিক কর্মচারী সংসদের সভাপতি ফরিদ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসলাম, মোঃ ইসহাক, মাকসুদুর রহমান চৌধুরী, কেজিডিসিএল ঠিকাদার সমিতির সভাপতি একরাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুন রহিম, মোঃ শাহজাহান, শেখ মামুনুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ নাছির উদ্দিন, স্বরূপ দত্ত রাজু, মোঃ ওয়াসিম, আবুল হাসনাত, কামরুল হাসান রানা, মোজাম্মেল হক সুমন, সালাউদ্দিন জিকু প্রমূখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর