প্রকাশ : 2019-07-14

লর্ডসে আজ শিরোপাযুদ্ধ

১৪জুলাই২০১৯,রবিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ২৩ বছর পর নতুন চ্যাম্পিয়ন পেতে যাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্ব। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার পর ষষ্ঠ দল হিসেবে বিশ্বচ্যাম্পিয়নের মুকুট পরবে ছন্দময় ইংল্যান্ড অথবা উজ্জীবিত নিউজিল্যান্ড। ক্রিকেটের জনকদের সামনে সুযোগটা এসেছে এটা নিয়ে চতুর্থবার। আর দ্বিতীয়বার চূড়ান্ত লড়াইয়ের মওকা পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপের শিরোপা নির্ধারণী এ লড়াইতে কাল (১৪ জুলাই) মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। হোম অফ ক্রিকেট- লন্ডনের লর্ডসে ফাইনালটি শুরু হবে বেলা সাড়ে তিনটায়। এ লড়াইতে নিউজিল্যান্ডের চোখ গেলোবার ফাইনালে হারার হতাশা ভুলে শিরোপা উৎসব করা। আর বেদনাময় দীর্ঘ প্রতীক্ষা অবসানের প্রত্যাশা ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ডের। ১৯৭৯, ১৯৮৭ ও ১৯৯২ সালে তিনবারই ফাইনাল থেকে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে ইংলিশদের। প্রথমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দ্বিতীয়বার অস্ট্রেলিয়া ও তৃতীয়বার ইংলিশদের কাঁদিয়েছে পাকিস্তান। এরপর হতাশা নিমজ্জিত পরবর্তী ২৭ বছর আর শেষ লড়াইতে উঠতেই পারেনি থ্রি-লায়ন্সরা। অনুশীলনে ইংলিশদের চার কাণ্ডারি (বাঁ থেকে বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট ও ইয়ন মরগান: তবে এবার যেন পুনরুত্থিত হয়েছে ইংলিশ ক্রিকেট। ইয়ন মরগানের সেনাপতিত্বে একঝাঁক ক্রিকেট সৈন্য রয়েছে এই রেনেসাঁর পেছনে। ব্যাট হাতে এ বাহিনীর পরীক্ষিত সম্মুখ সৈন্য জনি বেয়ারস্টো ও জেসন রয়। প্রতিটি ম্যাচেই দারুণ শুরু এনে পরবর্তী ব্যাটিং সৈন্যদের কাজটা সহজ করে দেন দুজন। তাদের পরেই ভিত্তি হয়ে রয়েছেন এবারের ক্রিকেট যুদ্ধে ৫৪৯ রান সংগ্রহ করা জো রুট। ফাইনালে একটি ম্যাজিক ফিগারের দেখা পেলে টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কারের দাবিও করতে পারবেন রুট। বেন স্টোকস ও জস বাটলার শত্রুদের আতঙ্কের কারণ বনে যেতে পারেন যে কোনো সময়। বল হাতে আক্রমণ শানাতে এ আসরে ইংলিশদের রয়েছে একাধিক অস্ত্র। ক্রিস ওকসের শৃঙ্খলিত বোলিং রান আটকাতে দ্ব্যর্থহীন। তীক্ষ্ম বোলিংয়ে ১৯ উইকেট নিয়ে আসরের সর্বোচ্চ শিকারির তালিকায় তৃতীয় জোফরা আর্চার। ১৭ উইকেট নিয়ে নীরব ঘাতকের ভূমিকায় মার্ক উড। প্রয়োজনের সময় শত্রু বধ করার মুন্সীয়না দেখিয়েছেন লিয়াম প্লাঙ্কেট। আর আদিল রশীদের স্পিন যেন রহস্যময় মিসাইল।