প্রকাশ : 2019-08-29

দূষিত ওষুধ খেয়ে অতিরিক্ত চুল গজানো রোগে ভুগছে স্পেনের শিশুরা

২৯আগস্ট,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বড় ধরনের ভুলে তৈরি করা দূষিত ওষুধ খেয়ে ওয়্যারওলফ সিনড্রমে (শরীরে অতিরিক্ত চুল গজানো) ভুগছে স্পেনের শিশুরা। দেশটির অন্তত ১৭ শিশু এই সমস্যায় ভুগছে বলে বুধবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দক্ষিণ আফ্রিকান সংবাদমাধ্যম সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে স্পেনের শিশুরা বিরল পরিস্থিতিতে রয়েছে যা হাইপারট্রাইকোসিস নামে পরিচিত। এটা হলো একেবারেই নিয়ন্ত্রণহীন চুল গজানোর একটি প্রক্রিয়া। চলতি বছরের জুনে ওই শিশুদের সারা শরীরে যখন চুল গজাতে শুরু করে তখনই তাদের বাবা-মায়েদের এই রোগ সম্পর্কে সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল। মূলত গ্যাস্ট্রিক সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ওমিপ্রাজল ওষুধ খাওয়ার পর থেকেই তাদের শরীরে চুল গজাতে শুরু করে। অনুসন্ধানের পর জানা গেছে, আক্রান্তদের যেসব গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খাওয়ানো হয়েছিল সেগুলোতে মিনোক্সিডিল নামের এক ধরনের উপাদান ছিল যা চুল পড়া রোধের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। এ সম্পর্কে স্পেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারিয়া লুইসা সারসেদো বলেন, একটি ল্যাবরেটরিতে মিনোক্সিডিল ভর্তি কনটেইনারকে ভুল করে ওমিপ্রাজল হিসেবে চিহ্নিত করে রাখা হয়। এরপর ওমিপ্রাজল হিসেবেই বিভিন্ন ফার্মেসিতে তা সরবরাহ করা হয় যা খেয়ে সমস্যায় পড়েছে শিশুরা। তবে ল্যাবরেটরিটি কিভাবে এই ভুল করলো সে বিষয়ে পরিষ্কার কোনও ধারণা পাওয়া যায়নি। এরই মধ্যে ল্যাবরেটরিটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে দূষিত ওষুধটিও বাজার থেকে তুলে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দূষিত ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেয়ার পর আক্রান্ত শিশুদের অবস্থা স্বাভাবিক হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে কিছু শিশুর অবস্থা আগের চেয়ে ভালো হয়েছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর