প্রকাশ : 2019-08-29

চাদাঁবাজী মামলায় স্থায়ী জামিন পেলেন মোজাম্মেল হক চৌধুরী

২৯আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিরপুর থানার কথিত চাদাঁবাজীর মামলায় বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরীকে স্থায়ী জামিন দিয়েছে আদালত। আজ ২৯ আগস্ট সকাল ১১টা ৩০ মিনিটে বিজ্ঞ ১ম যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পনপূর্বক জামিনে আবেদন করলে আদালত তাকে স্থায়ী জামিন দেন।গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর মিরপুর থানায় দিনের বেলায় এক চাঞ্চল্যকর মিথ্যা চাদাঁবাজীর মামলা দায়ের ও ঠিকানাবিহীন ঐ মামলায় গভীর রাতে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরীকে নারায়ণগঞ্জের সানারপাড়ের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সেই সময় ঐ মামলার কথিতবাদী দুলাল একাধিক গণমাধ্যমের প্রতিনিধির কাছে প্রদত্ত স্বাক্ষাৎকারে স্বীকার করেছেন তিনি এই মামলা করেন নি। তিনি কোন দিন মিরপুর থানায় যায়নি। প্রজাপতি পরিবহনের লাইনম্যান দুলালকে নেতা বানানোর জন্য সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছে দেলোয়ার নামে এক পরিবহন শ্রমিক নেতা। পরে সেই কাগজকে পরিবহন মাফিয়াদের নির্দেশে মামলার এজাহার বানানো হয়। বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে দেশজুড়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র প্রতিবাদের ঝড় উঠে। পরবর্তীতে গত বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর জামিন নিয়ে ঢাকা জেলা কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করেন যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী। জামিন লাভের পর কাফরুল থানায় অস্ত্র ও বিষ্ফোরক আইনে আরেক মামলায় ফাসাঁনোর চেষ্টা করা হলে আদালত মামলাটি খারিজ করে দেন। মিরপুর থানার এসআই সরোয়ার জাহান গত ৩১মে চাদাাঁবাজীর মামলায় কতিপয় ভূয়া ব্যাক্তিকে স্বাক্ষী বানিয়ে আদালতে চার্জশিট প্রদান করলে আজ বিজ্ঞ আদালতে বিষয়টির চার্জ সুনানির দিন ধার্য করে। একই দিনে মোজাম্মেল চৌধুরীর আইনজীবী আসামীর স্থায়ী জামিন প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ আদালত তাকে স্থায়ী জামিন দেন। উল্লেখ্য যে, এদেশে সড়কে নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধ, গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ প্রায় দুই দশক ধরে সাংগঠনিকভাবে কাজ করে আসছে যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ও মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী। এই সংগঠনের বিশ্লেষণধর্মী একের পর এক প্রতিবেদন প্রকাশের মধ্য দিয়ে পরিবহন সেক্টরের অনিয়ম-দুর্নীতি ও অব্যস্থাপনার স্বরূপ উম্মোচিত হতে থাকে। ফলে সরকার সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে ও সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করে। এসব উদ্যোগ থামিয়ে দিতে এই চাঞ্চল্যকর মিথ্যা চাদাঁবাজীর মামলা দেয়া হয়েছে বলে দাবী বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির।