প্রকাশ : 2019-10-27

৪০ সেনা-পুলিশকে অপহরণ করেছে বিদ্রোহীরা, ফের উত্তপ্ত রাখাইন

২৭অক্টোবর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিয়ানমারে একটি টহলরত নৌযানে হামলা চালিয়ে ৪০ পুলিশ ও সেনা সদস্যকে অপহরণ করেছে দেশটির জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির এক রিপোর্টে একথা বলা হয়েছে । নয়া দিগন্ত এ ঘটনায় মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের এই রাজ্যে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে। জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা রাজ্যের অধিকতর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আসছে।সেনাবাহিনী জানিয়েছে, অপহরণের ঘটনার পর সেনারা আরাকা আর্মির ঘাঁটি গুড়িয়ে দিতে অভিযান শুরু করেছ। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জ্য মিন তুন বলেন, শনিবার সকালের দিকে রাখাইনের রাজধানী সিত্তের উত্তরাঞ্চলে নৌযানে কর্তব্যরত পুলিশ ও সেনাসদস্যদের লক্ষ্য করে নদীর তীর থেকে গুলি ছোড়ে বিদ্রোহীরা। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর ১০ জনের বেশি সদস্য, ৩০ জন পুলিশ ও কারা বিভাগের আরও দুই কর্মী ওই নৌযানে ছিলেন। পরে ৪০ জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বিদ্রোহীরা। বিদ্রোহীদের অবস্থান শনাক্ত করতে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে। নদীর তীরবর্তী এলাকার আশপাশে বিদ্রোহীদের বিশাল ঘাঁটি শনাক্ত করা হয়েছে। এর ফলে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে আরাকান আর্মি বিদ্রোহীদের দমন করতে হাজার হাজার সেনা সদস্যকে মোতায়েন করা হয়েছে। ফলে নতুন করে এক উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে রাখাইনে। বার্তা সংস্থা এএফপির দেয়া এ খবর প্রকাশিত হয়েছে দ্য হিন্দু সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে। এতে বলা হয়েছে, রাখাইনে জাতিগত রাখাইন বিদ্রোহীরা রাখাইন বৌদ্ধদের জন্য অধিক স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে লড়াই করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার একটি ফেরিতে ঘেরাও করে তারা ওই পুলিশ ও সেনা সদস্যদের জিম্মি করেছে। এর ফলে মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় ওই রাজ্যে এক অশান্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে হাজার হাজার সেনা দিয়ে ভরে ফেলা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর