সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০
প্রকাশ : 2019-12-21

শীতার্তদের পাশে দাঁড়ানো নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব

২১ডিসেম্বর,শনিবার,বিশেষ প্রতিবেদন,নিউজ একাত্তর ডট কম: পৌষের শুরুতেই জেঁকে বসেছে শীত। হিমশীতল কুয়াশার চাদরে ঢেকে যাচ্ছে দেশ,কনকনে ঠান্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত। শ্রমজীবী মানুষ ঘর থেকে বের হতে বেশ কষ্ট পাচ্ছে। অনেকে টাকার অভাবে কিনতে পারছে না শীতবস্ত্র। গরম কাপড়ের অভাবে করুণ দশা অনেকের। দরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষের জন্য শীতকাল বড়ো কষ্টের। খাবারের চেয়েও তাদের শীত নিবারণ এখন অতীব প্রয়োজন। শৈত্যপ্রবাহ থেকে রক্ষা পাওয়ার ন্যূনতম ব্যবস্থা ও তাদের নেই। যদিও কনকনে ঠান্ডা হাওয়ায় হাড় কাপানো শীতের কারণে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বিত্তবানদের অনেকেই ঘরের বাইরে বের হন না। কিন্তু দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে জীবিকার তাগিদে প্রচন্ড ঠান্ডায় ও ঘরের বাইরে যেতে হয়। তীব্র শীতে বিশেষ করে শিশু,বৃদ্ধ ও ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ অসহনীয় অবস্থায় পৌছায়। এ সময় বেড়ে যায় জ্বর,শ্বাসকষ্ঠ,সর্দি,কোল্ড ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগ। ফুটপাত এবং খোলা আকাশের নিচে বসবাসকারীদের কষ্ঠের সীমা থাকে না। এসব মানুষের পাশে দাঁড়ানো সামর্থ্যবান মানুষের নৈতিক দায়িত্ব। গরিব-দুস্থরা আমাদের সমাজের অবিচ্ছেদ্য অংশ। মানুষ হিসেবে বেচেঁ থাকার মৌলিক অধিকারগুলো তাদের ও প্রাপ্য। আসুন আমরা মানবিক মূল্যবোধ থেকে মিলেমিশে ফুটপাতে বা খোলা আকাশের নিচে বসবাসকারী অসহায় মানুষের শীত নিবারণে হাত বাড়িয়ে দেই।লেখকঃ মোঃ ইরফান চৌধুরী,প্রকাশক,ই-প্রিয়২৪,প্রাবন্ধিক ও মানবাধিকার কর্মী,(ছাত্র)।