প্রকাশ : 2020-02-11

বন্দর থেকে চুরি যাওয়া আমদানীকৃত সুতার চোরাই চক্রের মুল হোতাসহ ৮ সক্রিয় সদস্য গ্রেপ্তার

১১ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বন্দর থেকে চুরি যাওয়া আমদানীকৃত সুতার চোরাই চক্রের মুল হোতাসহ ৮জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে মহানগর গোয়েন্দা(উত্তর)। এসময় চোরাইকৃত সুতা উদ্ধারসহ চোরাই কাজে ব্যবহৃত একটি কাভার ভ্যান আটক করা হয়েছে যার নং-ঢাকা মেট্রো- ট-২০-৭০৫৪। উদ্ধারকৃত ১৯৮০ পিস পলিস্টার সুতার রবিনের অনুমানিক মুল্য ত্রিশ লক্ষ টাকা ও চোরাইকৃত ৩৩০ টি পলিস্টার সুতার রবিন বহনকারী কাগজের তৈরি খালি কার্টুনের মুল্য তেত্রিশ হাজার টাকা বলে জানিয়েছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। আজ মঙ্গলবার ১১ই ফেব্রুয়ারি বিকাল ৩ টায় মহানগর গোয়েন্দা(উত্তর) বিভাগের কার্যালয়ে ডাকা এক সংবাদ সন্মেলনে মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার( অপরাধ ও অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আটককৃত ৮ আসামীরা হলেন, মোঃ আমজাদ হোসেন (২১) নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানাধীন পশ্চিম মাইজদির আজু মিস্রি বাড়ির আব্দুল মতিনের ছেলে, মোঃ আবছার উদ্দিন ওরফে রাব্বি (১৯) নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানাধীন পশ্চিম মাইজদির আব্দুল হাই এর ছেলে, ড্রাইভার মো; মামুন মিয়া(২৬) গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ থানাধীন কুন্তাই বটতলী এলাকার আব্দুল মান্নান মিন্সীর ছেলে, মোঃ নাজমুল হক(৩৪) গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানাধীন তিলছড়া সরকার বাড়ির মোঃ আরধ আলী সরদার এর ছেলে, মোঃ ইলিয়াস(৪০) দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর থানাধীন ইটা বাওনা, মোল্লা বাড়ির রফিকুল ইসলামের ছেলে, মোঃ আফজাল হসেন(২৬) বরিশাল জেলার কাজিরহাট থানাধীন ভংগা মুন্সী বাড়ির আব্দুল আজিজের ছেলে, মোঃ কবির হোসেন(৩০) নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন আমবাগান এলাকার আব্দুল বারির ছেলে এবং হোসাইন আল মাকসুদ ওরফে সনেট(৩৬) নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন পশ্চিম দেবু, নাগ বাড়ির মৃতঃ লিয়াকত আলীর ছেলে। পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার( অপরাধ ও অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ জানান, মামলা সুত্রে অভিযানের প্রথম পর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চোরাইকৃত মালামাল বহনকারী কাভার ভ্যান চালক ও হেলপারসহ চট্টগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামি থানাধীন আমিন জুট মিল এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে চোরাই চক্রের অন্যতম মুল আসামী মামুন ড্রাইভারকে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঢাকা জেলার সাভার থানাধীন বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চোরাই চক্রের মুল আসামী মোঃ নাজমুল,মোঃ ইলিয়াছ ও মোঃ আফজালকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং নাজমুলের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার টানবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে চোরাইকৃত মালামাল উদ্ধারসহ আসামী মোঃ কবির ও মোঃ সনেটকে গ্রেপ্তার করা হয়। অতিরিক্ত কমিশনার শ্যামল কুমার নাথ আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায় দীর্ঘদিন যাবত বন্দর এলাকা থেকে আমদানীকৃত মামালাল সুকৌশলে কাভার ভ্যান চালকের সহায়তায় চুরি করে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করে থাকে। প্রথমে তারা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ট্রান্সপোর্ট এজেন্সিকে আমদানীকারক পরিচয় দিয়ে কাভারভ্যান পাঠায় মালামাল পৌঁছানোর জন্য। পরে কাভারভ্যান চালক ও হেলপার একত্রিত হয়ে চোরাই মালামাল বিক্রি করে থাকে। আটককৃত ৮ আসামীকে আজ মঙ্গলবার ১১ই ফেব্রুয়ারি আদালতে তোলা হয়েছে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর