প্রকাশ : 2018-03-11

চট্টগ্রামের সদরঘাটে জুট কর্পোরেশনের জায়গা নিয়ে বিরোধ,হাইকোর্টে রিট

নিজেস্ব প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম :চট্টগ্রামের সদরঘাট থানাধীন জুট কর্পোরেশনের বিজেসির এপিসি রযালী প্রেস হাউজের আটারো শতক জমি নিয়ে পূর্বের বরাদ্ধ প্রাপ্ত ব্যক্তির সহিত বর্তমানে বরাদ্ধ প্রাপ্ত ব্যক্তির মধ্যে বিরোধ দেখা দিলে পূর্বের বরাদ্ধ প্রাপ্ত ব্যক্তি মহামান্য হাইকোর্টে একটি রিট মামলা করেন। সূত্র মতে, বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশনের পরিত্যক্ত জমি বিজেসির এপিসি রযলী প্রেস হাউজের আটারো শতাংশ জমি দেশ স্বাধীননের পর অস্থায়ী বরাদ্ধ পান-মৃত শামসু মিয়া উক্ত। তখন উক্ত জমি ডোবা হিসেবে পরিত্যক্ত ছিল। মৃত শামসু মিয়া উক্ত জমি বরাদ্ধ পাওয়ার পর মেসার্স খাজা ইঞ্জিনিয়ারীং ওয়ার্কস এর মালিক সন্তোস চৌধুরীকে ভাড়ায় প্রদান করিলে উক্ত সন্তোস চৌধুরী তাহায় মাটি ভরাট করিয়া মেসার্স খাজা ইঞ্জিনিয়ারীং ওয়ার্কস নামক প্রতিষ্ঠানটি উক্ত জমিতে প্রতিষ্ঠা করে দির্ঘ দিন যাবত ব্যবসা পরিচালনা করিয়া আসিতেছেন। জুট কর্পোরেশনের নিয়ম মোতাবেক মৃত শামসু মিয়া প্রতি বৎসর তার বরাদ্ধ পত্র নবায়ন করেন। এরই মধ্যে গত বৎসর একই এলাকার ব্যবসায়ী বুলবুলের নামে উক্ত জমি অস্থায়ী বরাদ্ধ প্রদান করেন জুট কর্পোরেশন। তাতেই উভয়ের মধ্যে দন্ধের সৃষ্ঠি হয়। দন্ধের এক পর্যায়ে মৃত শামসু মিয়ার পুত্র মোঃ নাসের চলিত মাসের আট তারীখে মহামান্য হাইকোর্টে একটি রিট মামলা দায়ের করেন। রিট মামলা নং-৩৪৩৪। উক্ত মামলায় মহামান্য হাইকোর্ট গত বৎসর জুট কর্পোরেশন কতৃক বরাদ্ধ পাওয়া বুলবুলের বরাদ্ধ পত্র আগামী তিন মাসের জন্য স্থগীত করেন। অপর দিকে বিরোধীয় জমিতে শান্তি শৃংঙ্খলা রক্ষার্থে মৃত শামসু মিয়ার পুত্র উক্ত জমিতে ১৪৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে ও জানা যায় উক্ত প্রসংঙ্গে উক্ত জমিতে দির্ঘ দিনের ভোগ দখলকার ও মেসার্স খাজা ইঞ্জিনিয়ারীং ওয়ার্কস এর মালিক সন্তোস চৌধুরী বলেন,১৯৭০ সাল থেকে আমি মৃত শামসু মিয়ার নিকট থেকে উক্ত জমি ভাড়ায় নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। শামসু মিয়া মারা গেলে তার ওয়ারীশরা উক্ত জমি বরাদ্ধ পাওয়ার হকদার যদি তারাও না নেয় তাহলে দির্ঘদিনের দখলকার হিসেবে আমিও উক্ত জমি বরাদ্ধ পাওয়ার দাবীদার কিন্তু জুট কর্পোরেশন কতৃপক্ষ কেন অতি গোপনে বুলবুলকে উক্ত জমি অস্থায়ী বরাদ্ধ প্রদান করেছেন তা আমার বোধগম্য নয়। এদের দুই পক্ষের বিরোধের কারণে আমি নিজেও এখন ক্ষতিগ্রস্ত এবং নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। এই বিষয়ে আমি প্রশাসন সহ সকলের আইনগত সহায়তা কামনা করি।

সারা দেশ পাতার আরো খবর