ব্রেকিং নিউজ


add_27
হাজার হাজার মানুষ ফেরি পারাপারের অপেক্ষায়

০৯ মে ২০২২, ডেস্ক রিপোর্ট, নিউজ একাত্তর ডট কম :দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অসংখ্য মানুষের পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষে দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ কর্মস্থলে ফেরা ও যানবাহনের চাপ অব্যাহত রয়েছে। সোমমবার সকালের দিকে দৌলতদিয়া ঘাট ঘুরে দেখা যায়, ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ফিড মিল পর্যন্ত ৫ কিমি এলাকা জুড়ে পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাসের সিরিয়াল রয়েছে। এর মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাকের সংখ্যাই বেশী। দুর পাল্লার গাড়ী ফেরিঘাট থেকে অনেক দুরে থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন চালক ও হেলপাররা। অনেকেই বাস থেকে নেমে ব্যাগ-বোচকা ও পরিবার পরিজন নিয়ে ফেরি ও লঞ্চঘাটের দিকে রওনা দিচ্ছেন। আটকে থেকে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। যাত্রীবাহী বাসগুলোকে ফেরির নাগাল পেতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ৪ থেকে ৬ ঘন্টা। এ দিকে ঘাটের চাপ কমাতে দৌলতদিয়া থেকে ১৩ কিমি অদুরে রাজবাড়ী-কুষ্টিয়ার আঞ্চলিক সড়কে প্রায় ৩ কিমি পণ্যবাহী ট্রাকের সিরিয়াল রয়েছে। ফেরি ঘাটগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, হাজার হাজার মানুষ ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় পল্টুনে অপেক্ষা করছে। ফেরি পল্টুনে ভেরার সাথে সাথে হুড়োহুড়ি করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফেরিতে উঠতে দেখা যাচ্ছে। ফেরিতে থাকা পণ্যবাহী ট্রাক, ব্যক্তিগত গাড়ি, যাত্রীবাহী বাস আনলোড হওয়ার আগেই যাত্রীরা ফেরিতে প্রবেশ করতে শুরু করে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক ( বানিজ্য) মো. শিহাব উদ্দিন বলেন, দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের যানবাহনের চাপ বাড়তে থাকায় সোমবার সকাল হতে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ছোট-বড় মিলে ২০টি ফেরি চলাচল করছে। এবার ঈদের আগে অধিকাংশ যাত্রীই ভোগান্তি ছাড়া নদী পার হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। ঈদের পরে ঘাটে কিছুটা সিরিয়াল থাকলেও কোনো ধরনের ভোগান্তি ছাড়া মানুষ কর্মস্থলে ফিরতে পারছেন বলে তিনি দাবি করেন।

add_28

নিউজটি শেয়ার করুন

Facebook
এ জাতীয় আরো খবর..
add_29
সর্বশেষ আপডেট
জনপ্রিয় সংবাদ

add_30
add_31
add_32

সংবাদ শিরোনাম ::