এমসি কলেজ ধর্ষণ মামলায় আসামি তারেক পাঁচদিনের রিমান্ডে
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলার এজাহাভুক্ত আসামি তারেকুল ইসলাম তারেককে (২৮) পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে মহানগরের শাহপরান থানা-পুলিশ তাকে সিলেটের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে। শুনানি শেষে বিচারক আবুল কাশেম তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য কুমার চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রিমান্ড শুনানিকালে আসামির পক্ষে কোনো আইনজীবী শুনানিতে অংশ নেননি জানিয়ে আদালতের সরকারি কৌঁসুলি মাহফুজুর রহমান বলেন, বাদীপক্ষে স্বপ্রণোদিত হয়ে শতাধিক আইনজীবী অংশ নিলেও আসমিপক্ষে কোনো আইনজীবী অংশ নেননি। তারেককে রিমান্ডের নেয়ার মধ্য দিয়ে এই ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হওয়া এজাহারভুক্ত ছয় আসমির সকলকেই পাঁচদিন করে রিমান্ডে পেলো পুলিশ। এছাড়া সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার হওয়া আরও দুজনকেও ৫ দিন করে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) তারেকুল ইসলাম তারেককে সুনামগঞ্জের দিরাই থেকে গ্রেপ্তার করেছে Rab-9। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিকালে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন সিলেটের দক্ষিণ সুরমার এক দম্পতি। এ সময় কলেজ ক্যাম্পাস থেকে ৫-৬ জন যুবক জোরপূর্বক কলেজের ছাত্রাবাসে নিয়ে যায় দম্পতিকে। সেখানে একটি কক্ষে স্বামীকে আটকে রেখে ১৯ বছরের গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে তারা। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে গৃহবধূকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে শাহপরাণ থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ছয় জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করে শনিবার সকালে নগরীর শাহপরান থানায় মামলা করেছিলেন ভুক্তভোগীর স্বামী।
মিন্নি গ্রেফতার, কারাগারই তার ঠিকানা
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশের পর মিন্নিকে গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশ। বর্তমানে তিনি পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তাফিজুর রহমান বাবু। তিনি বলেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই মিন্নিকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত সবাইকে কারাগারে পাঠানো হবে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর পৌনে ২টার দিকে এ মামলার রায় ঘোষণা করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান। মামলার রায়ে রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেন আদালত। একই মামলায় চারজনকে খালাস দেয়া হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯) ও আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯)। এছাড়া মামলায় চার আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। খালাসপ্রাপ্তরা হলেন- মো. মুসা (২২), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)।
রিফাত হত্যায় মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বুধবার বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আসাদুজ্জামানের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজী, আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজওয়ান আলী খান হৃদয়, মোঃ হাসান এবং আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি। সকালে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে কারাগার থেকে আসামিদের আদালতে আনা হয়। দুপুর ১টা ২০ মিনিটে বরগুনা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ রায় ঘোষণা শুরু করেন। এ সময় জামিনে থাকা আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি ও কারাগারে থাকা ৮ আসামি উপস্থিত ছিলেন। একবছর তিনমাস তিনদিনের মধ্যে এ হত্যা মামলার রায় এদিন ধার্য করে আদালত। ২০১৯ সালের ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে কিশোর গ্যাং বন্ড বাহিনী কুপিয়ে হত্যা করে রিফাত শরীফকে। মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষে ৩০ সেপ্টেম্বর রায়ের তারিখ নির্ধারণ করে আদালত। গতবছর ২৬ জুন সকালটি অন্যান্য দিনের সকালের মতোই শুরু হয়েছিল। কিন্তু বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে একটি হত্যাকান্ড সারাদেশেকে নাড়িয়ে দিয়েছিলো। কিশোর গ্যাং বন্ড বাহিনী প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলেই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন রিফাত শরীফ। ঘটনার পরদিন ২৭ জুন রিফাতের বাবা মো. আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৫-৬ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। রিফাতের ওপর হামলার ছয়দিন পর ২ জুলাই ভোর রাতে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় এ মামলার আলোচিত প্রধান আসামি সাব্বির আহমেদ নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড। মামলা তদন্তের এক পর্যায়ে তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনা সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো: হুমায়ুন কবির মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ডের সাথে সাক্ষী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির সম্পর্ক ও হত্যা পরিকল্পনার সাথে জড়িত থাকার তথ্য পাওয়ায় মিন্নিকে এই মামলায় আসামি করা হয়। রিফাত হত্যাকাণ্ডের ২০ দিন পর ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রধান সাক্ষী থেকে মিন্নি আসামি হয়ে যাওয়ায় মামলাটি মোড় নেয় অন্যদিকে। রিফাত হত্যাকান্ডের দুই মাস ছয়দিন পর গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর বিকেলে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্তবয়স্ক এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক দুই ভাগে বিভক্ত করে দুটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। এদের মধ্যে ১০ জন প্রাপ্তবয়স্ক আসামি এবং ১৪ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। প্রাপ্ত বয়স্ক আসামীদের বিচারিক কার্যক্রম শুরুর জন্য ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালত চার্জ গঠন করেন। তবে মামলার অন্যতম আসামী মুসা বন্ডকে এখনো ধরতে পারেনি পুলিশ। এরপর গত ৮ জানুয়ারি থেকে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামি রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজী, আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজওয়ান আলী খান হৃদয়, মোঃ হাসান, মোঃ মুসা, আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি, রাফিউল ইসলাম রাব্বি, মোঃ সাগর এবং কামরুল ইসলাম সাইমুন এর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি এ মামলার ৭৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্নের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন করে আদালত।- একুশে টেলিভিশন
টিকিটের জন্য সৌদি প্রবাসীদের হাহাকার
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে দেশে এসে আটকে পড়া সৌদি প্রবাসীদের টিকিটের জন্য হাহাকার করতে দেখা গেছে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকেই রাজধানীর কারওয়ান বাজার মোড়ে অবস্থিত সোনারগাঁ হোটেলের সামনে সৌদি প্রবাসীদের টিকিটের জন্য দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষা দেখা যায়। টিকিটের জন্য অপেক্ষারত সৌদি প্রবাসী শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এখনও তারা টিকিট পাচ্ছেন না। আবার অনেকের ভিসার মেয়াদ থাকলেও এখনও টিকিট না পাওয়ায় সৌদি ফেরার বিষয়ে অনিশ্চয়তা থেকে যাচ্ছে। গাজীপুর জেলার মোশাররফ হোসেন সৌদির তাবুকে ৬ বছর ধরে কাজ করেন। তিনি বলেন, আমি টোকেন পেয়েছি কিন্তু এখনও টিকিটের জন্য সিরিয়াল পাইনি। আমার ভিসার মেয়াদ আজ শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু বৃহস্পতিবার যদি আমি টিকিট কাটার সিরিয়াল পাই, তাহলে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার কারণে আমি যেতে পারবো না। আবার নতুন করে টোকেন নিতেই এক মাস লেগে যাবে। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে মোস্তফা সৌদির তায়েফে ১৩ বছর ধরে বাচ্চাদের বিভিন্ন ধরনের ড্রেস ও খেলনার ব্যবসা করেন। টিকিটের জন্য সপ্তাহখানেক ঘুরলেও এখনও টিকিট পাননি। তিনি বলেন, এখনও আমি টোকেন পাইনি, আমি গত মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) থেকে টোকেন জন্য চেষ্টা করছি। মাঝে আরেক মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) চলে গেলেও আগামী ৪ অক্টোবর টোকেন দেবে বলেছে কর্তৃপক্ষ। ওই দিন টোকেন দিলে টিকিটের জন্য ১০ থেকে ১২ অক্টোবর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ততদিনে আমারও ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। তিনি আরও বলেন, আমার দাবি যাদের ভিসার মেয়াদ আছে তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হোক এবং যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে, মেয়াদ নতুন করে বাড়ানো দরকার, তাদের যেন সরকার মেয়াদ বাড়িয়ে দেয় এটাই আমার সরকারের কাছে দাবি।
নাসিমের আসনে ছেলে জয়, সাহারার আসনে হাবিব আ. লীগের প্রার্থী
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের আসন সিরাজগঞ্জ-১ এর উপ-নির্বাচনে তার ছেলে তানভীর শাকিল জয়কে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ। আর সাবেক মন্ত্রী সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা-১৮ আসনে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন মোহাম্মদ হাবিব হাছান৷ আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চূড়ান্তভাবে তাদের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ দুই আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। মোহাম্মদ নাসিম ও সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে এ আসন দুটি শূন্য হয়৷ ওবায়দুল কাদের নেতাকর্মীদের প্রতি সব ভেদাভেদ ভুলে মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মেনে ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।
দেশের অপ্রতুল ভূমি সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিতে প্রকল্প অনুমোদন
২৯সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কৃষি জমি সুরক্ষা ও সর্বোপরি দেশের সামগ্রিক খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে প্রায় ৩৩৮ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে ২০২০ হতে ২০২৪ মেয়াদে মৌজা ও প্লটভিত্তিক জাতীয় ডিজিটাল ভূমি জোনিং প্রকল্প' আজ (২৯ সেপ্টেম্বর) শেরেবাংলা নগরের এনইসি ভবনে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় অনুমোদিত হয়। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একনেক চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী ও ভূমি সচিব মো. মাক্ছুদুর রহমান পাটওয়ারী শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত এনইসি ভবন থেকে সভায় অংশগ্রহণ করেন। এই প্রকল্পের মাধ্যমে ভূমির গুণাগুণ অনুযায়ী ভূমিকে প্লটওয়ারি কৃষি, আবাসন, বাণিজ্যিক, পর্যটন ও শিল্প উন্নয়ন ইত্যাদি ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করে মৌজা ও প্লটভিত্তিক ডিজিটাল ভূমি জোনিং ম্যাপ ও ভূমি ব্যবহার পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হবে। মাঠ পর্যায়ে সুষ্ঠু ভূমি ব্যবস্থাপনার নিমিত্ত সারাদেশে মৌজা ও প্লটভিত্তিক ডাটা বেইজ প্রণয়নও করা হবে একই সাথে। প্রকল্পটি সরাসরি ভূমি মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন করবে। এজন্য ভূমি জোনিং বিষয়ক কার্যক্রম সচল রাখার জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি পৃথক ইউনিট গঠন করা হবে। প্রকল্পটির মাধ্যমে প্লট নাম্বার এবং প্লটভিত্তিক বিস্তারিত তথ্যাদি ভূমি জোনিং মানচিত্রে সন্নিবেশিত করা হবে যেন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের ভূমি প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ এই তথ্য ব্যবহার করে অপ্রতুল ভূমি সম্পদের যথাযথ ব্যবহার করে দেশের ভূমি সম্পদ সংরক্ষণে যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারেন। উল্লেখ্য, দেশে কৃষি জমির পরিমাণ মোট জমির ৮৪ শতাংশ। তবে জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে নতুন আবাসন, রাস্তাঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণের জন্য কৃষি জমি ব্যবহারের ফলে কৃষি জমির পরিমাণ প্রতিনিয়ত হ্রাস পাচ্ছে। কৃষি জমি সুরক্ষা ও সর্বোপরি দেশের সামগ্রিক খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে ভূমির যথাযথ ব্যবহার অপরিহার্য। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে দেশের কৃষি জমি সুরক্ষায় একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক অর্জিত হবে। দেশের অপ্রতুল ভূমি সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করাই প্রকল্পটির মূল লক্ষ্য।
ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর দাবিতে সৌদি প্রবাসীদের মিছিল
২৯সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিসার মেয়াদ ও ইকামা বৃদ্ধির দাবিতে সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সোনারগাঁ হোটেল থেকে এ মিছিল শুরু হয়। এর আগে সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা কারওয়ান বাজারের হোটেল সোনারগাঁর সামনের রাস্তায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন। এসময় সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিসার মেয়াদ ও ইকামা বৃদ্ধির দাবিতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন। উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, দুনিয়ার প্রবাসী এক হও, আমাদের দাবি মানতে হবে, ভিসার মেয়াদ বাড়াতে হবে। সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ মিছিলের ফলে সোনারগাঁ হোটেলের সামনের রাস্তা দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিলসহ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দিকে অগ্রসর হতে থাকেন।
পুলিশে পদোন্নতি সংক্রান্ত জটিলতা আর থাকছে না: আইজিপি
২৯সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ পুলিশের অধস্তন অফিসারদের ২০২০ সালের বিভাগীয় পদন্নোতি পরীক্ষা কেন্দ্রীয়ভাবে গ্রহণ, কেন্দ্রীয় মেধা তালিকা প্রণয়ন, কেন্দ্রীয়ভাবে পদোন্নতি সংক্রান্ত পরীক্ষা পরিচালনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং বিভাগীয় পদন্নোতি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ব্রিফিং প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) এ ভিডিও কনফারেন্স সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজ অডিটরিয়ামে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার শাহাবুদ্দিন খানসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা ও বিভাগীয় পদন্নোতি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। ভিডিও কনফারেন্সে পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে বিশেষ ব্রিফিং এ আইজিপি বেনজীর আহমেদ বলেন, শতবছরের নিয়ম ভেঙে, বহু পরিবর্তনের পরে আমরা আরও স্বচ্ছতার ভিত্তিতে যোগ্য পুলিশ অফিসার নির্বাচন পদ্ধতি হাতে নিয়েছি, এমসিকিউর মাধ্যমে মেধা যাচাই-বাছাই শেষে চুড়ান্ত লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সেন্ট্রাল মেধাতালিকায় যারা শীর্ষে থাকবে, তাদের বিভিন্ন ইউনিটে শূন্য পদে পোস্টিং দেওয়া হবে। সুতরাং মেধাবীদের জন্য এ এক বিশাল সুযোগ, পদোন্নতি সংক্রান্ত জটিলতা আর থাকছে না। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান বলেন, মুক্তিযুদ্ধ থেকেই আমরা পরীক্ষিত সৈনিক। মেধার ভিত্তিতে, এই বিশুদ্ধ পরীক্ষা পদ্ধতির মাধ্যমে এএসআই, এসআই পর্যায়ক্রমে পদোন্নতি লাভে অগ্রহণযোগ্য বাঁধা ছিন্ন করে আরও গ্রহণযোগ্য, আস্থাশীল বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী হিসেবে দক্ষতার সঙ্গে নির্ভেজাল সেবা নিশ্চিত করে তোমাদের নেতৃত্বে যেন, বিশ্বের দরবারে একটি নিরাপদ বাংলাদেশ উপহার দিতে পারি। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে বাংলাদেশ সরকার বৈধ উপায়ে আমাদের পরিবার নিয়ে সম্মানের সঙ্গে বাঁচতে পারি, ভালো থাকতে পারি, সেই মর্মে যাবতীয় কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। সেই বিবেচনায়, যথাযথ পেশাদারিত্বের সঙ্গে কর্তব্য পালন করতে হবে। ভিডিও কনফারেন্স শেষে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এক বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। ভিডিও কনফারেন্সে বরিশাল প্রান্তে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার লয় চিসিম, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) খাইরুল আলম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) জাকির হোসেন মজুমদার, উপ-পুলিশ কমিশনার (নগর বিশেষ শাখা) জাহাঙ্গীর মল্লিক, উপ-পুলিশ কমিশনার (সাপ্লাই এন্ড লজিস্টিকস) খান মুহাম্মদ আবু নাসের, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদরদপ্তর এন্ড পিএমটি) রুনা লায়লাসহ অন্য কর্মকর্তারা।
শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নেওয়ার সাহসের ঠিকানা: কাদের
২৮সেপ্টেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের স্বপ্নময় অর্জনের কাণ্ডারি বলে মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়ার সাহসের ঠিকানা বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়ার অফুরন্ত প্রেরণা এবং সাহসের বর্ণিল ঠিকানা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৪৭ সালের এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন আমাদের আস্থার সোনালী দিগন্ত, প্রেরণার দীপ্যমান শিখা, আমাদের স্বপ্নময় অর্জনের কাণ্ডারি প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠানের আগে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, শৈশব থেকে আজ পর্যন্ত শেখ হাসিনার সুদীর্ঘ পথপরিক্রমা কখনোই কুসুমাস্তীর্ণ ছিল না। কণ্টকাকীর্ণ পথ পেরিয়ে পৌঁছেছেন আজকের অবস্থানে। দেশের মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠার এক অতন্দ্রপ্রহরী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। জন্মবার্ষিকীতে আপনাকে জানাই এদেশের গণমানুষের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা, শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা। মহান স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করি আপনার সাফল্য, সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘজীবন। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, পিতার পাঠশালায় রাজনীতির পাঠ নেওয়া কন্যা ইডেন কলেজের নির্বাচিত ভিপি হওয়ার মধ্য দিয়ে প্রবেশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। সে ধারাবাহিক পথপরিক্রমায় আজ হয়ে উঠেছেন পিতার ছায়া, আদর্শিক উত্তরাধিকার। এদেশের কোটি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন। মমতার আধার। এ অর্জিত আস্থার গহীনে নেই কোন কোনো ম্যাজিক। সূত্র বলি আর উৎস বলি, এ অর্জনের পেছনের রহস্য তিনি বঙ্গবন্ধুকন্যা। এ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, ড. আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল মতিন খসরু, শাজাহান খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহার গোলাপ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর