বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১
রাশিয়ার সংসদ নির্বাচনে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে জিতল পুতিনের দল
২১সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : রাশিয়ার সংসদ নির্বাচনে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে জয়ী হয়েছে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড রাশিয়া। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) ভোরে দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, নিম্নকক্ষ দুমায় একক জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন দল। রাশিয়ান বার্তা সংস্থা তাস জানায়, প্রায় শতভাগ ভোট গণনা শেষে দেখা গেছে নির্বাচনে ইউনাইটেড রাশিয়া ৪৯.৮২ শতাংশ ভোট পেয়েছে। অন্যদিকে কমিউনিস্ট পার্টি পেয়েছে ১৮.৯৩ শতাংশ ভোট। এছাড়া লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি ৭.৫৫ শতাংশ, এ জাস্ট রাশিয়া ৭.৪৬ শতাংশ এবং নিউ পিপল ৫.৩২ শতাংশ ভোট পেয়েছে। এর আগে রোববার দেশটিতে ৪৫০ আসনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়। এরপর দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রধানের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন পুতিন। এ সময় তিনি ইউনাইটেড রাশিয়ার প্রতি আস্থা রাখায় দেশটির নাগরিকদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান। তবে এবারের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগ তুলেছে বিরোধী দল। নির্বাচনে ইউনাইটেড রাশিয়া ছাড়াও প্রায় এক ডজন দল অংশগ্রহণ করেছে। এর মধ্যে পুতিনের প্রধান প্রতিপক্ষ হিসেবে পরিচিত বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি বা তার কোনো সমর্থককে নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে। এদিকে ২০১৬ সালের সংসদ নির্বাচনের তুলনায় এবার ইউনাইটেড রাশিয়ার সমর্থন কমেছে। গত নির্বাচনে দলটি ৫৪ শতাংশের বেশি ভোট পেয়েছিল। সে তুলনায় এবারের নির্বাচনে কমিউনিস্ট পার্টির জনসমর্থন ৮ শতাংশ বেড়েছে। ইউনাইটেড রাশিয়ার জেনারেল কাউন্সিল সেক্রেটারি আন্দ্রেই তুরচক সোমবার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ক্ষমতাসীন দল নিম্নকক্ষ দুমার ৪৫০টি আসনের মধ্যে ৩১৫টিতে জয়লাভ করবে। বিবিসি জানায়, নির্বাচনে জয় উপলক্ষ্যে ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টির সদর দপ্তরে বিশাল বিজয় সমাবেশ করেছে। এ সময় পুতিন-ঘনিষ্ঠ মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবইয়ানিনকে পুতিন, পুতিন, পুতিন বলে চিৎকার করতে দেখা যায়। নিউজ একাত্তর/ভুঁইয়া
রাশিয়ায় বড় জয়ের পথে পুতিনের দল
২০সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টি পার্লামেন্ট নির্বাচনে আরেক দফা বড় বিজয়ের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। রোববার সন্ধ্যায় ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই দলটি জয় পেয়েছে বলে দাবি করে। ব্যালট বাক্সে আগেই ভর্তি করে রাখা এবং জোরপূর্বক ভোট দেওয়ার অসংখ্য অভিযোগ উঠলেও দেশটির নির্বাচন কমিশন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। অভিযোগ আছে, পুতিনের বিরুদ্ধে সোচ্চার সমালোচকদের এই নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি। অন্য প্রার্থীদের ব্যবাপকভাবে যাচাই-বাছাই করা হয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, এ পর্যন্ত যে ৬৪ শতাংশ ভোট গণনা করা হয়েছে তাতে পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া প্রায় ৪৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে। এই নির্বাচনে অনেক শহরে ইলেকট্রনিক ভোটিং ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। ১৯৯৩ সালের পর প্রথমবারের মতো রুশ কর্তৃপক্ষের জারি করা কঠোর নিয়মকানুনের কারণে অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ বা ওএসসিই এর কোন নির্বাচন পর্যবেক্ষক উপস্থিত ছিলেন না। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
রাশিয়ায় শুরু হলো ৩ দিনের পার্লামেন্ট নির্বাচন
১৭সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : ক্রেমলিনের সমালোচকদের কয়েক বছর ধরে দমন-পীড়ন চালানোর অভিযোগের মধ্য দিয়ে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) শুরু হলো রাশিয়ার তিন দিনের পার্লামেন্ট নির্বাচন। এবারও জয়ের আশা দেশটির ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড রাশিয়ার। খবর আল জাজিরার। পার্লামেন্ট ও স্থানীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ রাশিয়ার ১১টি টাইম জোনের বিস্তৃত অঞ্চলে। মস্কোর বাসিন্দারা যখন ঘুমাতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন পূর্বাঞ্চলের চুকুতখা ও কামচাটকা এলাকার লোকের ছুটছেন ভোটকেন্দ্রে। এবারের নির্বাচনে ১৪টি দল অংশ নিচ্ছে। আগামী রোববার পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রধান ইলা পামফিলোভা ভোটারদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, চলুন ভোট দিতে যাই। বিরোধীদের দমন-পীড়নের কঠোর সমালোচনা থাকলেও প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমর্থক দল ইউনাইটেড রাশিয়ার পার্লামেন্টে প্রভাব কমে যাওয়ার কোনো আভাস পাওয়া যাচ্ছে না এবারের নির্বাচনে। এদিকে, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এক ভিডিও বার্তায়, বৃহস্পতিবার রাশিয়ানদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ৪৫০ আসনের পার্লামেন্ট দুমায় এখন ইউনাইটেড রাশিয়ার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা বিদ্যমান। ফলে এর আগে প্রেসিডেন্ট পুতিন সংবিধান সংশোধনের বড় সুযোগ পান তাদের সমর্থন পেয়ে। সংবিধানে সংশোধনী আনার ফলে পুতিনের ফের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়ানোর বাধা দূর হয় এবং ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার পথ পরিষ্কার হয়। ১৯৯৯ সাল থেকে রাশিয়ার ক্ষমতার আসনে ভ্লাদিমির পুতিন। তবে ২০২৪ সালের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন কিনা, তা এখনো প্রকাশ করেননি। তবে এবার করোনা মহামারি ও মূল্যস্ফীতির কারণে জনগণের মধ্যে সৃষ্ট হতাশা এবং বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি ও তার সমর্থকদের দমন-পীড়নের প্রতিবাদে মস্কোতে বিক্ষোভ করেন কয়েক হাজার মানুষ। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
হাইতির প্রধানমন্ত্রীর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
১৫সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : হাইতির প্রধানমন্ত্রী অ্যারিয়েল হেনরির দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট জোভেনেল ময়িজকে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। ফলে তদন্ত চলাকালীন তিনি যেন দেশ থেকে অন্য কোথাও যেতে না পারেন সেজন্যই এই নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী হেনরির বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ গঠনের আবেদন জানিয়েছেন দেশটির এক প্রসিকিউটর। প্রেসিডেন্ট ময়িজ হত্যাকাণ্ডের প্রধান সন্দেহভাজন জোসেফ ফেলিক্স বাদিওর সঙ্গে হেনরির সম্পৃক্ততার বিষয়ে তার কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। প্রসিকিউটর জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট ময়িজের হত্যাকাণ্ডের কয়েক ঘণ্টা পর জোসেফের সঙ্গে বেশ কয়েকবার ফোনে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী হেনরি। ফলে এই হত্যাকাণ্ডে তার সম্পৃক্ততা ছিল অভিযোগ উঠেছে। গত ৭ জুলাই ময়িজকে নিজ বাড়িতে হত্যা করা হয়। আততায়ীরা প্রেসিডেন্টের বাসভবনে ঢুকে তাকে গুলি করে হত্যা করে। সশস্ত্র একটি দল প্রেসিডেন্ট জোভেনেলের বাড়িতে মাঝ রাতে হামলা চালায়। দুর্বৃত্তদের গুলিতে আহত হন তার স্ত্রী মার্টিন ময়িজও। আর এ হত্যা মিশনে অংশ নেয় ২৮ জন বিদেশি ঘাতক। ৫৩ বছর বয়সী জোভেনেল ময়িজ ক্ষমতায় আসেন ২০১৭ সালে। হাইতি পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের স্বাধীন দ্বীপরাষ্ট্র। এর সরকারি নাম হাইতি প্রজাতন্ত্র। ক্যারিবীয় সাগরের হিস্পানিওলা দ্বীপের পশ্চিম এক-তৃতীয়াংশ এলাকা নিয়ে রাষ্ট্রটি গঠিত। দ্বীপের বাকি অংশে ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র অবস্থিত। দেশটিতে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার ইতিহাস দীর্ঘ। বেশ কয়েকজন স্বৈরশাসক দেশটি শাসন করেছেন। এদের মধ্যে ফ্রঁসোয়া দুভালিয়ে-র নাম উল্লেখযোগ্য। ২১০০ শতকের শুরুতে এসে হাইতি একটি গ্রহণযোগ্য সরকার প্রতিষ্ঠা এবং জনগণের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অবস্থা উন্নয়নের চেষ্টা করছে। ১৮০৪ সালে হাইতি লাতিন আমেরিকার প্রথম স্বাধীন দেশ হিসেবে আবির্ভূত হয়। এটিই দাসদের সফল বিপ্লবের ফলে সৃষ্ট একমাত্র রাষ্ট্র। হাইতি প্রথমে স্পেনীয় ও পরে ফরাসি উপনিবেশ ছিল। হাইতির সংখ্যাগরিষ্ঠ আফ্রিকান দাসেরা ফরাসি ঔপনিবেশিকদের উৎখাত করলে হাইতি স্বাধীনতা লাভ করে। পর্তোপ্রাস দেশটির রাজধানী ও বৃহত্তম শহর। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
যুক্তরাষ্ট্রের বিচার চায় উত্তর কোরিয়া
১৩সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : আফগানিস্তানে মার্কিন আগ্রাসনের চালানোয় তাদের বিচারের দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। তাদের দাবি সন্ত্রাসীদের দমনের নামে দীর্ঘ ২০ বছর ধরে দেশটিতে দখলদারিত্ব কায়েম করেছে এবং অপরাধযজ্ঞ চালিয়েছে মার্কিন সেনারা । উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রোববার ১২ সেপ্টেম্বর তাদের ওয়েবসাইটে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলেছে, আফগানিস্তানে গণভাবে ধ্বংসযজ্ঞ ও হত্যাকাণ্ড চালানোর জন্য দায়ী যুক্তরাষ্ট্রের মূল ব্যক্তিদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনতে হবে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ন্যায় বিচার এবং মানবাধিকার রক্ষার ধোয়া তুলে আমেরিকা বিশ্বের বিভিন্ন অংশে এই ধরনের হত্যাকাণ্ড ও অপরাধযজ্ঞ চালিয়ে আসছে। নীরিহ নারী-শিশু ও সাধারণ নাগরিকরাও তাদের তাদের হামলা থেকে রক্ষা পায়নি। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
ইরাকের আরবিল বিমান বন্দরে ড্রোন হামলা
১২সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : ইরাকের আরবিল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। উত্তরাঞ্চলীয় এই শহরের কাছেই মার্কিন কনস্যুলেট অবস্থিত। শনিবার কুর্দিশ নিরাপত্তা বাহিনী এক বিবৃতিতে এ খবর জানিয়ে বলেছে, দুটি সশস্ত্র ড্রোন এ হামলা চালিয়েছে। তবে হামলায় কেউ হতাহত হয়নি। জিহাদী বিরোধী জোট বাহিনীর ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহৃত বিমানবন্দরের কোন ক্ষতি হয়নি বলে এর পরিচালক আহমেদ হোচায়ের জানিয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির একজন সংবাদদাতা মার্কিন কনস্যুলেটের আশেপাশ থেকে বড়ো ধরনের দুটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন এবং ধোঁয়ার কুন্ডলি আকাশের দিকে উড়তে দেখেছেন। নিরাপত্তা বাহিনী বিমানবন্দরে প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে। হামলার দায়িত্ব কেউ স্বীকার না করলেও যুক্তরাষ্ট্র এ হামলার জন্যে ইরাকে ইরানপন্থী বাহিনীগুলোকে দায়ী করেছে। উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে ইরাকে মার্কিন বাহিনী কিংবা মার্কিন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট জায়গা লক্ষ্য করে এ ধরনের হামলার ঘটনা বেড়ে গেছে। ইরাকের স্বায়ত্ত্বশাসিত কুর্দিস্থানের রাজধানী আরবিল। এর প্রেসিডেন্ট নেচিরভান বারজানি। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
মিয়ানমারে আবারও সহিংসতা, শিশুসহ নিহত ২০
১১সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনী এবং জান্তাবিরোধী মিলিশিয়াদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিনজন শিশু রয়েছে। শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া সংঘর্ষে মিয়ানমারের মাইয়িন থর গ্রামে নিহতের এ ঘটনা ঘটেছে। সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে লড়ছে দেশটির ছায়া সরকারের অনুগত যোদ্ধারা। সংঘর্ষের সময় নিরাপত্তা বাহিনী ব্যাপকভাবে কামানের গোলাবর্ষণ করে। এতে স্থানীয় মিলিশিয়াসহ গ্রামবাসীরা নিহত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় জান্তা সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যুদ্ধ শুরুর ঘোষণা দেন দেশটির ছায়া সরকারের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট দুয়া লাসি লা। তার এই ঘোষণার পর এটিই সবচেয়ে বড় সহিংসতার ঘটনা বলে উল্লেখ করেছে সংবাদমাধ্যমগুলো। তবে শনিবার এক বিবৃতিতে মিয়ানমারের গণ-অসহযোগ আন্দোলন জানিয়েছে, হাতের কাছে যা আছে তা নিয়ে যুদ্ধে নেমে পড়া ছাড়া মিয়ানমারের যুবকদের আর কোনও উপায় নেই। সেজন্য জাতীয় ঐক্য সরকারের (এনইউজি) সঙ্গে আরও বেশি সম্পৃক্ত হতে জাতিসংঘসহ আসিয়ান দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তারা। থাইল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা অ্যাসিসটেন্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারস (এএপিপি) জানিয়েছে, সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে গত ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশটিতে সামরিক জান্তার দমন অভিযানে অন্তত এক হাজার ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া বিক্ষোভ সংশ্লিষ্টতায় গ্রেফতার হয়েছেন সাত হাজার ৯০৪ জন। বর্তমানে বন্দী রয়েছেন ছয় হাজার ২৫৭ জন। গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে ঘুরছেন আরও এক হাজার ৯৮৪ জন। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
মারাত্মক অবনতির পর নতুন করে মার্কিন সম্পর্কের ব্যাপারে গুরুত্ব দেয়ার কথা বললেন শি
১০সেপ্টেম্বর ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক , নিউজ একাত্তর : চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং আমেরিকান প্রেসিডেন্টকে বলেছেন, দুদেশের মধ্যে সম্পর্কের মারাত্মক অবনতির জন্য বেইজিংয়ের ব্যাপারে গ্রহণ করা মার্কিন নীতিমালা দায়ী এবং এ ক্ষেত্রে বিশ্বের ভবিষ্যত প্রশ্নে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা গুরুত্বপূর্ণ। শুক্রবার রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম এ কথা জানিয়েছে। বাণিজ্য যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ায় এবং চীনের মানবাধিকার রেকর্ড প্রশ্নে আমেরিকার কঠোর অবস্থানের কারণে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বেইজিং ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটতে দেখা যায়। এ ছাড়া প্রযুক্তিগত প্রাধান্য প্রশ্নে প্রতিযোগিতা এবং করোনাভাইরাসের উৎস নিয়ে বিতর্ক দুদেশের মধ্যে সম্পর্কের আরো অবনতি ঘটে। বাইডেনের সাথে গুরুত্বপূর্ণ ও আন্তরিক আলোচনায় শি বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দুই দেশের মধ্যে সংঘাত উভয় দেশের ও বিশ্বের অর্থনীতির বিপর্যয় ডেকে আনবে বলে সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন। শির উদ্ধৃতি দিয়ে রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার কেন্দ্র সিসিটিভি পরিবেশিত খবরে বলা হয়, চীন ও যুক্তরাষ্ট্র তাদের সম্পর্ক বজায় রাখতে পারে কি-না তা বিশ্বের ভবিষ্যতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিগত সাত মাসের মধ্যে এ দুই নেতার মধ্যে এটি ছিল প্রথম ফোনালাপ। শি জোর দিয়ে বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন, মহামারি মোকাবেলা এবং বৈশ্বিক অর্থনীতি পুনরুদ্ধার বিষয়ে উভয় পক্ষ তাদের সংলাপ অব্যাহত রাখবে। নিউজ একাত্তর/বিল্পব

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর