বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১
চট্টগ্রামে প্রথম স্মার্ট হাব কনসেপ্টের যাত্রা শুরু করলো সিপিডিএল
২২সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : ইনোভেটিভ আইডিয়ার পথিকৃৎ সিপিডিএল বন্দরনগরী চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো নির্মাণ করেছে সুসজ্জিত- স্মার্ট হাব। গতানুগতিক ধারায় বাইরে চট্টগ্রাম তথা দেশের আবাসন শিল্পে সম্পূর্ণ নতুন ও ভিন্ন মাত্রার প্রকল্প গড়ার প্রত্যয় নিয়ে নির্মিত এই স্মার্টহাব। নগরীর জাকির হোসেন রোডের খুলশী এলাকায় রহিমস প্লাজা ডিসিপিডিএল ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের মাধ্যমে স্মার্ট হাব এর যাত্রালগ্নের সূচনা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল মালেক হাউজিং সোসাইটির সভাপতি রইচ আহমদসহ অন্যান্য কর্মকর্তা, ডিসেন্স আর্কিটেক্ট এর ম্যানেজিং পার্টনার তামজিদুল ইসলাম এবং সিপিডিএল পরিবারের কর্মকর্তারা। আকর্ষণীয় লোকেশনে নির্মিত রহিমস প্লাজা ডিসিপিডিএল এর ১৬তলা ভবনের ৬ষ্ঠ তলার পুরো ফ্লোরজুড়ে গড়ে উঠছে স্মার্ট হাব। ব্যক্তি পর্যায়ের উদ্যোক্তা, স্থানীয় ও মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিসমূহের লিয়াজোঁ অফিস, বিনিয়োগকারী ও আগ্রহী ব্যবসায়ীদের কথা মাথায় রেখে এই স্মার্ট অফিস তৈরি করা হয়েছে। এতে অফিসের প্রয়োজনীয় সব সুবিধা মিলবে হাত বাড়ালেই। স্মার্ট হাব সম্পর্কে সিপিডিএল কর্তৃপক্ষ জানায়, একটি অফিস সাধারণত বেসিক সিটিং স্পেস এর পাশাপাশি রিসিপশন, কনফারেন্স, ওয়েটিং লাউঞ্জ ইত্যাদি নানা ধরনের অবস্থিতির সমন্বয়ে গড়ে ওঠে। যার পুরোটা সবসময়ই হয়তো ব্যবহার হয় না। উদাহরণস্বরূপ, অফিসের একটা বড় অংশ কনফারেন্স বা মিটিং রুমগুলো দখল করে রাখলেও সবসময় মিটিং হয় না। স্থানসমূহের ব্যবস্থাপনায় প্রত্যেকটির জন্য আলাদা করে লোকবলও নিয়োগ দিতে হয়। এতে ব্যবসায় খরচ অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু একটি স্মার্ট হাব এর মূল অংশটি শুধুমাত্র কর্মকর্তাদের বসার স্থান নিয়ে গড়ে ওঠে। উল্লেখিত আনুষঙ্গিক স্থানসমূহ অংশীদার ভিত্তিতে সময় ও প্রয়োজন সাপেক্ষে ব্যবহৃত হয়। ফলে যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু স্পেস নিয়েই গড়ে ওঠে অফিসটি। পরিচালন ব্যয় সকলের মাঝে আনুপাতিক হারে বন্টিত হওয়ার ফলে ব্যয় হ্রাস ঘটে। স্মার্ট হাব এ একইভাবে ১০টি আলাদা অফিস এর কনফারেন্স রুম, ডিলিং রুম, রিসিপশন থাকছে সমন্বিত। এতে প্রত্যেকটি অফিসের পরিচালন ব্যয় অনেকাংশে কমে আসবে। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
জেলা পরিষদ থেকে ৫০ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর
২১সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে জেলার ৫০টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ। মূলত চট্টগ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা যাদের জমি আছে ঘর নেই তাদেরকেই এসব ঘর দেয়া হচ্ছে। জেলার ১৫টি উপজেলা ও মহানগরে মোট ৫০টি ঘর নির্মাণকাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। প্রতিটি ঘরের জন্য একটি করে নলকূপসহ নির্মাণ ব্যয় হচ্ছে ৫ লাখ ৬৮ হাজার ৮৪৮ টাকা। জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম বলেন, মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে এসব ঘর নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। মূলত যাদের বসতভিটা আছে কিন্তু ঘর নির্মাণের সামর্থ নেই তাদেরকেই বাছাই করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিদ্বদ্বীও আছে। তবে ঘরের নির্ধারিত কোন ডিজাইন জেলা পরিষদ থেকে করা হয়নি। যার জায়গায় যেরকম আকার নির্ধারিত বাজেটের মধ্যে ওই জায়গার উপর ডিজাইন করা হয়েছে। তাই একেকটি ঘরের ডিজাইন একেক রকম। তবে ঘরগুলো দৃষ্টিনন্দন হয়েছে। চট্টগ্রাম যেহেতু প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ এলাকা, ডিজাইনের সময় বিষয়টি মাথায় রাখা হয়েছে। জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাব্বির ইকবাল বলেন, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে যেসব ঘর উপহার হিসেবে দেয়া হচ্ছে তা অত্যন্ত মজবুত করেই নির্মাণ করা হচ্ছে। পিলার, বিম সবগুলো আরসিসি করা হয়েছে। ভবিষ্যতে কারো যদি সামর্থ হয় তারা চাইলে ঘরটি দোতলা করতে পারবেন। কারণ ঘরের বেইজমেন্ট মজবুত করে দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, ঘরগুলো নির্মাণের ক্ষেত্রে উপহার হিসেবে যাকে ঘর দেয়া হচ্ছে তার চাহিদাকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। হয়তো কারো নলক পের প্রয়োজন নেই, তাকে ওই টাকা দিয়ে ঘরের ফলস সিলিং করে দেয়া হচ্ছে। একেকটি ঘরে বাথরুম এবং রান্নাঘর ছাড়াও বেড রুম, ড্রয়িং রুম এবং ডাইনিং রুম আছে। তবে বাসিন্দারা এসব রুমকে বেড রুম হিসেবে অর্থাৎ নিজের সুবিধামত ব্যবহার করতে পারবেন। সামনে ছোট একটি বারান্দাও আছে। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
দলীয় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখুন: নওফেল
২০সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : দলীয় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে দিনব্যাপী থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রামে (টিআইসি) নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় এ আহ্বান জানান তিনি। ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, আমার অভিজ্ঞতায় নগর আওয়ামী লীগ স্থানীয় নেতৃত্বকে বেগবান করে যে পর্যায় আসছে তা নেত্রীর আস্থা অর্জন করেছে। সামনে জাতীয় নির্বাচন আসছে। এক্ষেত্রে তৃণমূলকে আরও শক্তিশালী হতে হবে। বিশেষ করে নগর আওয়ামী লীগ নবউদ্যমে নতুন সদস্য ফরমের মাধ্যমে যে কর্মসূচি গ্রহণ করেছে তা তৃণমূলে পরিচ্ছন্ন এবং ত্যাগী কর্মীরা সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন। আমরা শেখ হাসিনার কর্মী। নেত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমাদের চলতে হবে। এর বাইরে প্রথম শর্ত দলীয় শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে। অন্যান্য জেলার চেয়ে চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগ অনেক শক্তিশালী। সভাপতির বক্তব্যে নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা এবং সংহতি আমাদের অস্তিত্ব বাঁচাবে। তাই বিরোধ-বিভেদ আমাদের শুধরে ফেলে সামনের দিকে এগুতে হবে। আমাদের সামনে কঠিন সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। তাই দলের মধ্যে ছোটখাটো ভুলভ্রান্তিকে নিয়ে বড় কিছু ভাবার অবকাশ নেই। নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, সবার সহযোগে যেটুকু সিদ্ধান্ত হবে তা অবশ্যই মেনে নিতে হবে। তবে এ নিয়ে বিশৃঙ্খলা বা বিভেদ কখনো গ্রহণযোগ্য হবে না। যারা দলে থেকে শৃঙ্খলাবিরোধী কাজ করবেন তাদের কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, যারা দায়িত্বে থেকে সংগঠনের কাজ নিয়ে অবহেলা করেন এবং বিভিন্ন রকম অজুহাত সৃষ্টি করেন তারা দয়া করে পদ থেকে সরে দাঁড়ান। নগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী, ১ নম্বর ওয়ার্ডের আবদুল মান্নান চৌধুরী, ২ নম্বর ওয়ার্ডের ফরিদ আহমদ চৌধুরী, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের আবদুস শুক্কুর ফারুকী, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের অ্যাডভোকেট আইয়ুব খান প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, খোরশেদ আলম সুজন, এম জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য বদিউল আলম, আবদুচ ছালাম, উপদেষ্টা শফর আলী, শেখ মাহমুদ ইছহাক, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, হাসান মাহমুদ শমসের, অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর প্রমুখ। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
ফ্লাইওভারে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক নিহত
১৮সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : নগরের চকবাজার থানাধীন আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের জিইসি অংশে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর পৌনে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তির নাম ও পরিচয় তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। ঘটনাস্থলে থাকা চকবাজার থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মারুফ বিন আব্দুল্লাহ বলেন, ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন। মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে। নিউজ একাত্তর/ভুঁইয়া
চট্টগ্রামে এলো আরও ৩ লাখ ২৫ হাজার ডোজ টিকা
১৭সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : আরও ৩ লাখ ২৫ হাজার ১২০ ডোজ টিকা এসেছে চট্টগ্রামে। এর মধ্যে সিনোফার্ম এর ৩ লাখ ১০ হাজার ডোজ ও মডার্নার টিকা রয়েছে ১৫ হাজার ১২০ ডোজ। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) এসব টিকা চট্টগ্রামে এসে পৌঁছায় বলে জানান জেলা সিভিল সার্জন ও চট্টগ্রাম ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সেখ ফজলে রাব্বি। তিনি বলেন, জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সেন্ট্রাল ইপিআই কেন্দ্রে এসব টিকা সংরক্ষণ করা হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন কেন্দ্রে টিকা সরবরাহ করা হবে। জানা গেছে, ঢাকার গাজীপুরের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সেন্ট্রাল ওয়ার হাউজ থেকে প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব পরিবহনযোগে এসব টিকা চট্টগ্রামে আসে। টিকা গ্রহণ করেন সিভিল সার্জন। বর্তমানে সিনোফার্ম এর টিকা দেওয়া হচ্ছে সবাইকে। এছাড়া ২য় ডোজ হিসেবে দেওয়া হচ্ছে মডার্নার টিকা। টিকা স্বল্পতার কারণে গত কয়েকদিন ধরে মডার্নার টিকা দেওয়া বন্ধ ছিল। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
চবিতে চতুর্থ শিল্পবিপ্লব বিষয়ে জাতীয় কনফারেন্স শুক্রবার
১৬সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ব্যুরো অব বিজনেস রিসার্চের আয়োজনে দ্য ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশন: রিশেপিং বিজনেস ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ শিরোনামে দুইদিনব্যাপী ভার্চুয়াল কনফারেন্স শুরু হবে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর)। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (চবিসাস) সাথে এক অনলাইন প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে এই তথ্য নিশ্চিত করেন কনফারেন্স কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আইয়ুব ইসলাম। আগামী শুক্র ও শনিবার (১৭ ও ১৮ সেপ্টেম্বর) উক্ত কনফারেন্সের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কনফারেন্সের উদ্বোধন করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর বেনু কুমার দে, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর এস. এম. সালামতউল্লাহ ভূঁইয়া এবং অনুষদের বরিষ্ঠ শিক্ষক প্রফেসর ড. সুলতান আহমেদ। কনফারেন্সে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন খ্যাতিমান কর্পোরেট নির্বাহী রবি অক্সিয়াটা লিমিটেড-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ। উক্ত অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন ব্যুরো অব বিজনেস রিসার্চ- এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন, স্বাগত বক্তব্য রাখবেন কনফারেন্সে কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আইয়ুব ইসলাম এবং অধিবেশনটির উপস্থাপনায় থাকবেন ব্যুরো অব বিজনেস রিসার্চ- এর পরিচালক প্রফেসর ড. এস. এম. শোহরাব উদ্দিন। কনফারেন্সের দ্বিতীয় দিন মোট ১০টি সমান্তরাল সেশনে প্রায় অর্ধশতাদিক প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। কনফারেন্সে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচুর শিক্ষাবিদ, গবেষক, শিল্পোদ্যোক্তা, কর্পোরেট নির্বাহী এবং শিক্ষর্থী উক্ত কনফারেন্সে সংযুক্ত থাকবেন। আয়োজিত কনফারেন্সটির সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছেন চিটাগাং ইউনিভার্সিটি সেন্টার ফর বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (সিইউসিবিএ) এবং হেইডালবার্গ সিমেন্ট বাংলাদেশ লিমিটেড। উল্লেখ্য, উক্ত কনফারেন্সটি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজের লাইভ স্ট্রিমের (http://www.facebook.com/ictcu) মাধ্যমে প্রচার করা হবে। নিউজ একাত্তর/ভুঁইয়া
পরীর পাহাড়ে নতুন স্থাপনা নির্মাণে প্রধানমন্ত্রীর মানা
১৫সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : ঐতিহাসিক পরীর পাহাড় রক্ষায় অননুমোদিত বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদের প্রস্তাবনায় অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর ফলে জেলা প্রশাসন ও আইনজীবী সমিতির মধ্যে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব নিরসনের পথ দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সংযোগ অধিশাখার জারিকৃত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের আগস্ট মাসে দ্বিতীয় পক্ষের পাক্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গৃহীত প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। এদিকে পরীর পাহাড়ের সার্বিক অবস্থা দেখতে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস চট্টগ্রাম আসছেন ২৩ সেপ্টেম্বর। জানা গেছে, ১৩০ বছরের ঐতিহ্য সমৃদ্ধ পরীর পাহাড়ে আইনজীবীদের জন্য দুটি নতুন ভবন নির্মাণ করা নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে যায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও আইনজীবী সমিতি। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পরীর পাহাড় রক্ষায় গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়। এ ঘটনায় গত ৮ সেপ্টেম্বর আইনজীবী সমিতি সাধারণ সভা করে। দু পক্ষের দ্বন্দ্বের মধ্যেই চট্টগ্রাম ওয়াসা, বিদ্যুৎ বিভাগ ও কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি সহ ১৪টি সেবা সংস্থার কাছে চিঠি দেয় জেলা প্রশাসন। অপরদিকে আদালত ভবন এলাকায় আইনজীবীদের নতুন দুটি ভবন নির্মাণের অংশ হিসেবে চেম্বার বরাদ্দ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ এনামুল হক বলেন, আদালত ভবনের সঙ্গে গড়ে ওঠা আইনজীবী ভবনগুলোর অনুমোদন রয়েছে। বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদের প্রস্তাবনার বিষয়ে কেউ আমাদের জানায়নি। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, পরীর পাহাড়ে নতুন করে স্থাপনা নির্মাণ না করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে নির্দেশনা দিয়েছেন। মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের যেরকম আদেশ দেওয়া হবে, সেভাবে কাজ করবো। তিনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা নিয়ে ফায়ার সার্ভিস নিজস্ব একটা সমীক্ষা করেছে। পরিবেশ অধিদফতরও পরিবেশগত সমীক্ষা করছে। বাংলাদেশ ব্যাংকও কাজ করছে। নীতিমালা অনুসারে ক শ্রেণির কেপিআইর আশপাশে কোনও ধরনের বহুতল স্থাপনা করা যাবে না। পরীর পাহাড়ে অনুমোদনহীন প্রায় সাড়ে তিনশ বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামো রয়েছে। অবৈধ স্থাপনা অপসারণের জন্য সিডিএ তালিকা করে আমাদের দিবে। আমরা উচ্ছেদ নোটিশ সৃজন করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করার উদ্যোগ নেবো। মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের গোপনীয় প্রস্তাবে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম নগরের কেন্দ্রস্থলে পাহাড় চূড়ায় প্রশাসনিক প্রাণকেন্দ্র চট্টগ্রাম কোর্ট বিল্ডিং অবস্থিত। এ অংশে রয়েছে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, জেলা ও দায়রা জজ আদালতসহ সর্বমোট ৭১টি আদালত। জেলা প্রশাসকের নামে এখানে সরকারের ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত ১১.৭২ একর জায়গা রয়েছে। সরকারি ভবনের বাইরে ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত জায়গায় চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি পাহাড় কেটে ৫টি ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবন নির্মাণ করেছে। এসব স্থাপনাকে পাহাড় ধস, ভূমিকম্প, অগ্নিকাণ্ড ইত্যাদির জন্য অতি ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা হিসেবে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ চিহ্নিত করেছে। সম্প্রতি চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি বঙ্গবন্ধু আইনজীবী ভবন ও একুশে আইনজীবী ভবন নামক দুইটি ১২তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করে এবং ৬০০টি চেম্বার বরাদ্দ দিচ্ছে। চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, পরীর পাহাড় ইট-পাথরের জঞ্জালে পরিণত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মেনে এখানে পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় আমরা প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেবো। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বাসে স্কুলে যাবে শিক্ষার্থীরা
১৪সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : ২০২০ সালের ২৬ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ১০টি দোতলা বাস চালু করে বিআরটিসি। এরই মধ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়। সরকার বন্ধ ঘোষণা করে স্কুল। চলাচল বন্ধ হয়ে যায় সেই বাসগুলোরও। দীর্ঘ ১৮ মাস হাটহাজারী উপজেলার নতুনপাড়া বিআরটিসি বাস ডিপোতে পড়ে ছিল এসব বাস। দেখার যেন কেউ ছিল না। নষ্ট হয়েছে বাসগুলোর যন্ত্রাংশ। কিন্তু সরকার গত (১২ সেপ্টম্বর) থেকে খুলে দিয়েছে স্কুল। তাই প্রয়োজন পড়ে সেই স্কুলবাসগুলোর। তদারকি শুরু হয় মেরামতের। অবশেষে শনিবার থেকে চালু হচ্ছে শিক্ষার্থীদের স্কুলবাস। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. মাহমুদ উল্লাহ মারুফ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী বাস সার্ভিস চালুর দায়িত্বে রয়েছেন। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. মারুফ উল্লাহর সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়। তিনি নিউজ একাত্তরকে বলেন, দীর্ঘ ১৮ মাস পর স্কুল খোলার খবরে শিক্ষার্থীদের জন্য বাস চালুর পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে আমরা রোববার বিআরটিসি ও শিক্ষার্থী প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। আগামী শনিবার থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বাসগুলো চলাচল করবে। তিনি বলেন, তবে আমরা বাসেও শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। জানা গেছে, বাসগুলো মেরামতের কাজ চলছে। চালকেরা চালিয়ে ডিপোর মাঠে ট্রায়াল দিচ্ছেন। এছাড়াও আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার নগরের সড়কে ট্রায়াল হবে। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হবে এ বাস সার্ভিস। পুরোনো সময়সূচিতে চলবে নাকি নতুন সূচি নির্ধারণ করা হবে তা এখনো ঠিক হয়নি। তবে, নগরের স্কুলের ক্লাসের সময়সূচির সঙ্গে সমন্বয় করে বাসের সূচি নির্ধারণ করা হবে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী বলেন, করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর শনিবার থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বাসগুলো চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছে। বুধ ও বৃহস্পতিবার বাসগুলো সড়কে ট্রায়াল দেবে। আমরা বিআরটিসি ও শিক্ষার্থী প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে বিষয়টি নির্ধারণ করে দিয়েছি। আগামী শনিবার শিক্ষার্থীরা বাসে চড়ে বিদ্যালয়ে যেতে পারবে। বিআরটিসি বাস ডিপোর ম্যানেজার মো. আবদুল লতিফ বলেন, দীর্ঘ সময় শিক্ষার্থীদের স্কুলবাসগুলো ডিপোতে পড়েছিল। তাই গাড়িগুলো মেরামত করতে হয়েছে। এ ছাড়া চালক-হেলপারের সংকটও আছে। আশা করি আগামী শনিবার সড়কে চলাচল করবে শিক্ষার্থীদের স্কুলবাস। নিউজ একাত্তর/বিল্পব
চবিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি, স্থগিত থাকবে ক্লাস-পরীক্ষা
১৩সেপ্টেম্বর ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , চট্টগ্রাম, নিউজ একাত্তর : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার সুবিধার্থে ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর, ২১ অক্টোবর থেকে ২৩ অক্টোবর এবং ২৫ অক্টোবর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার এসএম আকবর হোছাইন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৯ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা কমিটির ২১তম সভার সিদ্ধান্তক্রমে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রাক-প্রস্তুতি এবং ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে পরিচালনার সুবিধার্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস, পরীক্ষা ও সেমিনারসহ সকল অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর, ২১ অক্টোবর থেকে ২৩ অক্টোবর এবং ২৫ অক্টোবর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এদিকে ভর্তি পরীক্ষার সময় বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষার পূর্বঘোষিত রুটিনে আসবে পরিবর্তন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দফতরের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে ক্লাস ও পরীক্ষার স্থগিতাদেশ রয়েছে। নিউজ একাত্তর/বিল্পব

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর