মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশের কল্যাণে সকলকে এক সাথে কাজ করতে হবে: নাছির উদ্দীন চৌধুরী
১৭,মার্চ,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিউজ একাত্তর ডট কম ও দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পএিকার চট্টগ্রাম অফিসে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় নিউজ একাত্তরের সম্পাদক ও দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকার চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন চৌধুরী বলেন, জীবনচর্চায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে যদি আমরা সামনে না রাখি তাহলে মনে হবে শুধু তাকে নিয়ে আমরা কোলাহলই করছি, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশের কল্যাণে সকলকে এক সাথে কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ১৭ মার্চ সকালে কেক কাটার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান আরম্ভ হয়, উক্ত অনুষ্ঠানে আকবরশাহ থানা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি লোকমান আলী, উত্তর জেলা কৃষক লীগের আহবায়ক ফজলুল ইসলাম ভুইয়া, মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা নুরুন্নবী চৌধুরী, মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রি নারগিস আক্তার, জেয়াসমিন বেগম, সাংবাদিক অশোক কুমার চৌধুরী, নিহার কান্তি দাস, বিজয় পাল,মোঃ ইলিয়াস, জসিম উদ্দিন, মোঃ হারুন, সাহানা আখতার সহ চট্টগ্রাম মহানগর, থানা, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
বিনম্র শ্রদ্ধায় চট্টগ্রামে জাতির পিতাকে স্মরণ
১৭,মার্চ,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি চলছে চট্টগ্রামে। সরকারি-বেসরকারি অফিস ও ভবনে উত্তোলন করা হয়েছে জাতীয় পতাকা । বুধবার (১৭ মার্চ) চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের পর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো হয়। সকাল ৯টায় শিল্পকলা একাডেমিতে পায়রা ও ফেস্টুন উড়িয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানের আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদ্বোধন করা হয়। এছাড়া কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর ওপর রচনা ও ৭ মার্চের ভাষণের ওপর প্রতিযোগিতা, জেলা শিল্পকলা ও শিশু একাডেমিতে চিত্রাঙ্কন, হাতের লেখা, নৃত্য ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান প্রতিযোগিতা, পুরস্কার বিতরণ, বিভিন্ন মসজিদ ও ধর্মীয় উপাসনালয়ে মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও প্রার্থনা অনুষ্ঠান, শিশু সদন, শিশু পরিবার ও শিশু বিকাশ কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন, সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক তথ্য অফিস, পিআইডি ও জেলা তথ্য অফিস বঙ্গবন্ধুর ওপর বিভিন্ন বই ও ছবি প্রদর্শন করছে। এছাড়া সন্ধ্যা থেকে আলোকসজ্জা ও সন্ধ্যা সাতটায় এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ফায়ার ওয়ার্কস ও আতশবাজি ফুটানো হবে।
সিএমপির মুজিববর্ষ আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু
১৬,মার্চ,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্যোগে শুরু হয়েছে মুজিববর্ষ আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা। সোমবার (১৫ মার্চ) নগরের শিল্পকলা একাডেমীতে সিএমপি উত্তর বিভাগ আয়োজিত এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। শান্তি-শান্তি নয় যুদ্ধ, বিতর্কে হই পরিশুদ্ধ স্লোগানে পাঁচ দিনের আয়োজনে দৃষ্টি চট্টগ্রামের সহযোগিতায় নগরের ১৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেবে। এ আয়োজনের পৃষ্ঠপোষকতা করছেন ইউসুফ শিপিং লাইনসের স্বত্বাধিকারী মো. ইয়াকুব। সিএমপি উত্তর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার বিজয় বসাকের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) মো. শামসুল আলম, বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজর নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, মহানগর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সদস্য সচিব ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন।
করোনা: চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় ২ মৃত্যু, আক্রান্ত ১৩০
১৬,মার্চ,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৯৮৩টি নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৩০ জনের। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্ত হলেন ৩৬ হাজার ৬৮৬ জন। এ সময়ে নতুন করে করোনায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার ( ১৬ মার্চ ) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এই দিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৬টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১৩০ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৯৮৩টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১০৯ জন এবং উপজেলায় ২১ জন। করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও মাস্ক ব্যবহারের তাগিদ দিয়েছেন। এদিকে মাস্ক ব্যবহারে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা তৈরিতে নগরের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন।
রাউজান সুন্নী কন্ফারেন্সে বক্তারা: আওলিয়ায়েকেরামের আদর্শ পারে ছাত্র-যুবসমাজকে মুক্তি দিতে
১৫,মার্চ,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইসলামের মধ্যে পরিপূর্ণ রূপে প্রবেশ করতে আওলিয়া কেরামের পথ অনুসরণ করতে হবে। এর মধ্যে প্রকৃতপক্ষে যুবসমাজ মুক্তি পেতে পারে। নৈতিকতা চর্চা বিকল্প নেই। মানবজীবনের অন্যতম মহৎগুণ হচ্ছে রাসুল (দ.)র প্রতি ভালবাসা। এ গুণ অর্জনের চেষ্টা ও অনুশীলন ছাত্র-যুবসমাজকে মর্যাদা ও গৌরবের শ্রেষ্ঠতম স্থানে পৌছে দিতে পারে। প্রকৃত আউলিয়াকেরাম ও হক্কানী পীর মাশায়েখগণই সেই পথেই আজীবন কাজ করে থাকেন। তাই আজকের সমাজ থেকে বিদ্যমান হিংসা-বিদ্ধেষ, খুন রাহাজানী থেকে মুক্তি পেতে রাসুল (দ.) ও আউলিয়া কেরামের জীবনাদর্শ অনুশীলন অপরিহার্য। ১৩ মার্চ বিকালে রাউজান উত্তর সর্তা খতমে গাউছিয়া পরিচালনা পরিষদ এর আয়োজনে দরগাহ্ বাজারস্থ পুর্ব আস্তানা শরীফ ময়দানে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী(দ.) ও পবিত্র ফাতেহা ইয়াজদাহুম উপলক্ষে ১২তম বিশাল সুন্নী কনফারেন্সে বক্তারা এসব কথা বলেন। কন্ফারেন্সে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়ার শায়খুল হাদীস হযরতুলহাজ্ব আল্লামা হাফেজ সোলায়মান আনসারী (মু.জি.আ)। উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন ওরশ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়ার আরবি প্রভাষক হযরতুলহাজ্ব আল্লামা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জোবাইর রজভী (মু.জি.আ)। খতমে গাউছিয়া পরিচালনা পরিষদ পুর্ব আস্তানার উপদেষ্টা মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুনের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন ফটিকছড়ি শামসুল উলুম গাউছিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ ও দরগাহ বাজার জামে মসজিদের খতিব আল্লামা সেলিম উদ্দিন রেজভী (মু.জি.আ)। বিশেষ বক্তা ছিলেন ফটিকছড়ি আজাদী বাজার আজিজিয়া হাশেমিয়া নূরীয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মহিউদ্দিন আলকাদেরী। উপস্থিত ছিলেন ওরশ পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টা সোলাইমান মাষ্টার মাইজভান্ডারী, কামাল উদ্দিন, আবুল কালাম, শাজাহান, ওরশ পরিচালনা কমিটির সদস্য তৌফিকুল হোসাইন, মাওলানা হাসান আলী, মুহাম্মদ নাসির উদ্দীন, মুহাম্মদ ইউছুফ, মুহাম্মদ শাহাজান, মুহাম্মদ সাহাবু, মুহাম্মদ মুনছুর, খতমে গাউসিয়া পরিচালনা পরিষদের সাবেক সভাপতি মাসুদ পারভেজ, সদস্য আমান উল্লাহ, মুহাম্মদ বাদশা, মুহাম্মদ আহমদ উল্লাহ, মুহাম্মদ জানি আলম, মুহাম্মদ জিসান, মুহাম্মদ রনি প্রমুখ। মিলাদ কিয়াম পরিচালনা করেন মাওলানা শহিদুল আলম ভান্ডারী। পরে আখেরী মোনাজাত ও তাবরুক বিতরণ করা হয়।
আত্মার উন্নয়ন প্রক্রিয়ার নামই শিক্ষা: সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী
১৫,মার্চ,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাইজভান্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী আল্লামা ইকবালকে উদ্বৃত করে বলেন, খুদি বা আত্মার উন্নয়ন ঘটানোর প্রক্রিয়ার নামই শিক্ষা। শিক্ষার ক্ষেত্রে ইসলামী আদর্শের কাজ হলো পরিপূর্ণ মানবসত্তার লালন করে এমনভাবে গড়ে তোলা। যার এমন একটি পূর্ণাঙ্গ কর্মসূচি যে, মানুষ তার দেহ, বুদ্ধিবৃত্তি এবং আত্মা তার বস্তুগত, আত্মিক জীবন এবং পার্থিব জীবনের প্রতিটি কার্যকলাপের কোনোটিই পরিত্যাগ করে না। আর কোনো একটির প্রতি অবহেলা বা মাত্রাতিরিক্ত ঝুঁকেও পড়ে না। দারুল মুস্তফা মডেল একাডেমি দ্বীনি ও আধুনিক শিক্ষার সমন্বয় করে বিকশিত আত্মার মানুষ সৃষ্টির প্রয়াস যেমন চালাচ্ছে তেমনি দক্ষ মানবসম্পদ গঠনেও ভূমিকা রাখছে। ১৫ মার্চ সকালে মাইজভা-ার দরবার শরীফে দারুল মুস্তফা মডেল একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক আলহাজ মুহাম্মদ নঈমুল ইসলামের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আগামী ২৬ ও ২৭ মার্চ দুই দিনব্যাপী ৬ষ্ঠ তম দারুল মুস্তফা মডেল একাডেমীর সালানা জলসা, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.), বিশে^ও সকল আউলিয়া কেরামের ওরশে পাক এবং সকল মুসলিম ভাই-বোনদের ইছালে সাওয়াব উপলক্ষে আজিমুশ্শান মিলাদ মাহফিলের সফলতা কামনা করেন এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবদুল মালেক সওদাগর, মাওলানা মুহাম্মদ মোরশেদুল আলম আলকাদেরী, সৈয়দ মুহাম্মদ ইসহাক, মুহাম্মদ আলী, মুহাম্মদ নঈম উদ্দিন, মুহাম্মদ আবদুল মোতালেব রাজু, মুহাম্মদ জিয়া উদ্দিন, মুহাম্মদ আলাউদ্দিন প্রমুখ।
গান, কবিতা, আড্ডায় জনসংযোগ সমিতির প্রীতি সম্মিলন
১৫,মার্চ,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গান, কবিতা আর আড্ডা। সূচি থেকে বাদ যায়নি কথামালা কিংবা নৌকা ভ্রমণও। হয়েছে দিনভর হই-হুল্লোড়। আনন্দ ভাগাভাগি। সবার অংশগ্রহণ আর প্রাণবন্ত উচ্ছ্বাসে জমে ওঠে জনসংযোগ সমিতি, চট্টগ্রাম এর প্রীতি সম্মিলন। ঘড়ির কাঁটায় ঠিক দুপুর ১টা ৩০। পাহাড়বেষ্টিত ফয়স লেকের গেইটের বাইরে আগেই টাঙানো হয়েছিল প্রীতি সম্মিলনের ব্যানার। কী অদ্ভুত ব্যাপার! কিছুক্ষণের মধ্যেই একজন দুজন করে ভিড় জমাতে লাগলেন সবাই সেখানেই। যান্ত্রিক শহরে একসাথে কাজ করা হলেও কারও সাথে ছিল না কারও পরিচয়। দেখা হওয়া মাত্রই যেন কতদিনের চেনা! পূর্বনির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী দুপুর ২টার মধ্যেই সবাই চলে আসেন অনুষ্ঠানস্থলে। দু পর্বে বিভক্ত অনুষ্ঠানসূচির প্রথমেই ছিল মধ্যাহ্নভোজ আর পরিচিতিপর্ব। শুরুতেই মাইক্রোফোন হাতে তুলে নেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমদ সাকী। সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ছোট ছোট বাক্যে তিনি তুলে ধরেন সংগঠনের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা। মুঠোফোনে প্রীতি সম্মিলনের উদ্বোধনী ভাষণ দেন সমিতির সভাপতি কবি ও নাট্যজন অভীক ওসমান। এসময় তিনি বলেন, একবিংশ শতাব্দী হলো তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির যুগ। তথ্য ছাড়া এখন পৃথিবী অচল। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এই সময়ে সারা পৃথিবীতে জনসংযোগ অত্যন্ত সম্মানজনক পেশা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তিনি বলেন, জনসংযোগ ছাড়া বর্তমান বিশ্বে কোনোকিছু পূর্ণতা পায় না উল্লেখ করে অভীক ওসমান বলেন, পেশাগত কারণে জনসংযোগ পেশাজীবীরাও সমাজে গুরুত্ব পাচ্ছেন। প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার ক্ষেত্রে তারা বিরামহীন পরিশ্রম করে থাকেন। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে সমিতির উদ্যোগে একটি সেমিনার আয়োজন করা হবে বলে উদ্বোধনী বক্তৃতায় উল্লেখ করেন তিনি। ফয়স লেকের লেক ভিউ রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত সম্মিলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কবি ইউসুফ মুহাম্মদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আঞ্চলিক পরিচালক বদরুল হায়দার চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা কালাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের প্রকাশনা বিভাগের প্রধান কবি খালেদ হামিদী, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোকাম্মেল হক খান, ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড-এর ম্যানেজার (পিআর) জান্নাতুল ফেরদৌস প্রমুখ। বাইরে তখন দুপুরের রোদ কমে গিয়ে বিকেলের মিষ্টি হাওয়া বইতে শুরু করেছে। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল কেক কাটা ও পায়রা উড়িয়ে প্রীতি সম্মিলনের শুভ উদ্বোধন। বিশাল আকারের কেক কেটে সম্মিলনের উদ্বোধন হতেই মুহুর্মুহু করতালি। এই সময় কেউ কেউ মেতে উঠলেন সেলফিতে। ছবি তুলে স্মরণীয় করে রাখতে চাইলেন দিনটি। কেক কেটেই সংগঠনের সব সদস্য লম্ফঝম্ফ করে উঠে পড়লেন সাম্পানে। কার আগে কে বসবে তা নিয়ে হৈচৈ। একটু পর সবাই গান ধরলেন ওরে নীল দরিয়া কিংবা চল না ঘুরে আসি অজানাতে......। সন্ধ্যার আলো পুরোপুরি নিভে গিয়ে ফয়স লেকের পাহাড়ে জোনাকির উড়াউড়ি। বারবিকিউ সন্ধ্যায় আসর জমিয়ে দিলেন চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির জনসংযোগ কর্মকর্তা মহিউদ্দীন জুয়েল। গিটার হাতে গেয়ে চললেন ফোক কিংবা লালনের সুর। চট্টগ্রাম চেম্বারের মোকাম্মেল শোনালেন দারুণ সব জোকস আর মাইজভান্ডারি গান। অনুষ্ঠানের অতিথি সাংবাদিক রাতুলের কবিতা উপস্থিত সবাইকে মুগ্ধ করে। অনুষ্ঠান শেষে প্রীতি সম্মিলন ২০২১ এর আহ্বায়ক খলিলুর রহমান আগামীতে আরও বড় পরিসরে অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
চট্টগ্রামে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ, নতুন শনাক্ত ১৫৩ জন
১৫,মার্চ,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বেশ কিছুদিন ধরে করোনা সংক্রমণের হার নিম্নমুখী থাকলেও হঠাৎ করে তা বাড়তে শুরু করেছে। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫৩ জনের। স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভ্যাকসিন আসার পর থেকে জনসাধারণের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে অনীহা দেখা যাচ্ছে। যা করোনার সংক্রমণ বাড়ার অন্যতম কারণ। চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, চলতি মাসের গত ১৪ দিনে চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৪৫৭ জন। এছাড়া সর্বশেষ রোববার (১৪ মার্চ) কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৬টি ল্যাবে ১ হাজার ৭১১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্ত হলেন ৩৬ হাজার ৫৫৬ জন। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া বলেন, মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে উদাসীনতা চলে এসেছে। দেখে মনে হচ্ছে দেশে করোনা নেই। এমন উদাসীনতার কারণের ক্রমশ করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ভ্যাকসিন এসেছে মানে এই নয়- করোনাকে আমরা জয় করে ফেলেছি। আমাদের উচিত অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং মাস্ক ব্যবহার করা। কারণ, করোনা প্রতিরোধের একমাত্র হাতিয়ার মাস্ক ব্যবহার করা এবং স্বাস্থ্যবিধি মানা। এদিকে এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনার টিকা গ্রহণ করেছেন ৩ লাখ ৮০ হাজার ২৬৭ জন। সর্বশেষ রোববার টিকা নিয়েছেন ৫ হাজার ৯১৯ জন। এর মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকায় ৩ হাজার ৭৯২ জন এবং উপজেলায় ২ হাজার ১২৭ জন।
মহাপুরুষদের জীবনী শ্রদ্ধার কাব্য রচনার প্রেরণা জাগায়: ড. পীযূষ দত্ত
১৪,মার্চ,রবিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) নির্বাহী পরিচালক ড. পীযূষ দত্ত বলেছেন, মানবসমাজে যাঁরা অসাধারণত্বের ঐশ্বর্য্যে বলিয়ান, যাঁদের মধ্যে দেখেছি মনুষ্যত্বের অপার বিস্ময়, আমরা তাঁদের শ্রদ্ধা করি। হৃদয়ের ভক্তি ও ভালোবাসা দিয়ে আমরা তাঁদের উদ্দেশ্যে রচনা করি অর্ঘ-ডালা। মহাপুরুষদের জীবনচরিত আমাদের অন্তরে সেই শ্রদ্ধা-ভক্তির কাব্য রচনার প্রেরণা জাগায়। লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) তপন মিত্র চৌধুরীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ঋষিকূল শিরোমণি শ্রীমৎ স্বামী অচ্যুতানন্দ পুরী মহারাজের জীবনী নিয়ে রচিত- চিন্ময় মনীষা অচ্যুতানন্দ গ্রন্থ প্রকাশের মাধ্যমে সে কথাই প্রতিমূর্ত হয়ে উঠেছে। শনিবার (১৩ মার্চ) বিকাল ৫টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে অনুরূপা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে- চিন্ময় মণীষা অচ্যুতানন্দ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রকাশনা উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্থপতি প্রণত মিত্র চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি আলী আব্বাস, চবি প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হক চৌধুরী, বাণীর বরপুত্র শ্রী সুদর্শন চক্রবর্তী ও লায়ন ডা. দুলাল দাশ। গ্রন্থের সম্পাদক সাংবাদিক আবীর চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ঋষিপুত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) তপন মিত্র চৌধুরী। বরেণ্য অতিথি ছিলেন অধ্যাপক স্বপন চৌধুরী। প্রেস ক্লাব সভাপতি আলী আব্বাস বলেন, শ্রীমৎ স্বামী অচ্যুতানন্দ পুরী মহারাজের জন্ম বাঁশখালীর বাণীগ্রামে। নন্দনকানন তুলসীধামে অগ্রজ অদ্বৈতানন্দ পুরীর হাত ধরে তিনি শরণাগতদের দেখিয়েছেন আলোর পথ। চিন্ময় মনীষা অচ্যুতানন্দ- গ্রন্থ পাঠে নতুন প্রজন্ম এই মহান সাধক সম্পর্কে জানতে পারবেন। সুদর্শন চক্রবর্তী বলেন, দেশে কালে কালে জন্ম নেন ক্ষণজন্মা মহাপুরুষরা। তাঁরা অপরাজেয় পৌরুষের অধিকারী, মনুষ্যত্বের সাধক, হৃদয় ঐশ্বর্য্যে মহীয়ান, মহৈশ্বর্যে নম্র। তাঁরা মহাদৈন্যে উন্নত মস্তক, সম্পদে কুণ্ঠিত, বিপদে নির্ভীক। তাঁরা আমাদের শুভ আকাঙ্ক্ষার প্রতীক, পরবর্তী প্রজন্মের নতুন ঠিকানা। তাঁরা যুগে যুগে স্মরণীয়, বন্দিত মহাপুরুষ। জ্ঞানীরা শ্রীমৎ স্বামী অচ্যুতানন্দ পুরী মহারাজের মতো মহান সাধকদের অমূল্য জীবনচরিত পাঠ করে হৃদয়কে সেভাবে বিকশিত করে তোলার চেষ্টা করেন। যে জীবনচরিতের মাঝে আমরা খুঁজে পাই আশার আলো, শোকের মাঝে পাই সান্ত্বনা। অতিথিদের উত্তরীয় দিয়ে বরণ করে নেন প্রকাশনা উৎসব উদযাপন পরিষদের কর্মকর্তা ইন্দিরা ঘোষ, বিজয় লক্ষ্মী চৌধুরী, প্রদীপ মিত্র চৌধুরী, কে এম সালাহউদ্দিন কামাল, সোনারাম ধর, চন্দ্রনাথ পাল, পার্থ সারথী চৌধুরী। শেষে চিন্ময় মনীষা অচ্যুতানন্দ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা। প্রকাশনা উৎসবে লেখক ও শুভানুধ্যায়ীরা উপস্থিত ছিলেন। এই গ্রন্থে স্বামী অচ্যুতানন্দ পুরীর লিখিত পত্র, ভাষণ, মহারাজকে নিয়ে স্মৃতিচারণ ও দুর্লভ স্থিরচিত্র স্থান পেয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ