নগরে সর্বস্তরে বাংলা প্রচলনের দাবি তুলেছেন আ জ ম নাছির উদ্দীন
২০,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অশোক কুমার চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরের সকল বাণিজ্যিক,শিল্প,শিক্ষা,স্বাস্থ্যসহ সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডে বাংলা হরফ উপরে এবং ইংরেজী বা অন্য ভাষার হরফ নিচে লেখা বাস্তবায়নের দাবি তুলেছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উপলক্ষে আজ ২০ ফেব্রুয়ারি বিকালে নগরীর থিয়েটার ইন্সটিটিউট প্রাঙ্গনে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্যে তিনি এই দাবি তুলেন। বক্তব্যে তিনি বলেন, মাতৃভাষা বাংলার জন্য এই জাতি রক্ত দিয়েছে। মায়ের ভাষা বাংলাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য যে জাতি রক্ত দিয়েছে সেই জাতি আজ প্রিয় ভাষাকে ভুলতে বসেছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডে দেখা যায় ইংরেজী হরফ উপরে লেখা থাকে। সেসব সাইনবোর্ডে বাংলা হরফ স্থান পায় না। আমার দায়িত্বকালীন সময়ে নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে দাবি জানানো হয়েছিল। আমি চট্টগ্রাম সিটি কর্পেোরেশনে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অনেক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডের ইংরেজী হরফ মুছে দিয়েছিলাম। আমাদেরকে অনুসরণ করে বিভিন্ন সংগঠনও তখন ইংরেজী হরফ মুছে দেয়ার কাজ করেছিল।কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, এখনো নগরের অনেক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড ইংরেজী হরফে লেখা। তাই এবারের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে নতুন মেয়রের কাছে আমাদের দাবি থাকবে- সকল সাইনবোর্ডে প্রধান হরফ বাংলায় লেখা বাস্তবায়ন করতে হবে। ইংরেজী বা অন্য ভাষার লেখা নিচে লেখতে হবে। তা না হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করতে হবে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় মহানগর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন,সহ সভাপতি নঈম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, এড.ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল,সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন,সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আলম মাহমুদ,উপপ্রচার সম্পাদক কাউন্সিলর শহীদুল ইসলাম সহ সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করেছেন চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী
২০,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মশার বিস্তার নাগরিক দুর্ভোগ ও অস্বস্তির বড় অসহনীয় উপসর্গ। তা নিরসনে ২০ দিনের মধ্যে সময় বেঁধে দিয়ে ৪১টি ওয়ার্ডকে কয়েকটি জোনে ভাগ করে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করেছেন চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) চান্দগাঁও ওয়ার্ডের নতুন থানা চত্বরে প্রথম ১০০ দিনের মধ্যে প্রতিশ্রুত জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যা সমাধানকল্পে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উদ্যোগ বাস্তবায়ন কার্যক্রম সূচনা করেন মেয়র। এ সময় ফগার মেশিনে মশার ওষুধ ছিটিয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি। মশক নিধনে নগরবাসীকে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, সিটি করপোরেশন মশক নিধনের ওষুধ ছিটাবে এবং প্রকাশ্য স্থান ও নালা-নর্দমার স্তূপ করা আবর্জনা, বর্জ্য পরিষ্কার করবে। কিন্তু শুধু এভাবেই মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা রক্ষা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, মশক নিধনে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন নাগরিক সচেতনতা। নিজ গরজেই বাসা-বাড়িতে মশক প্রজনন ও উৎপত্তিস্থল বিনাশ এবং বর্জ্য-আবর্জনা সরিয়ে নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলতে হবে। তিনি সতর্ক করে দেন কেউ নালা নর্দমায় বা খালে ও পানি চলাচলের পথে পলিথিন ও প্লাস্টিক, বর্জ্য-আবর্জনা ফেলতে পারবেন না। ফেললে এটা হবে দণ্ডনীয় অপরাধ। মনে রাখতে হবে সিটি করপোরেশন শুধু মেয়রের একার নয়, প্রত্যেক নগরবাসীর। তিনি বলেন, মশক নিধনে সিটি করপোরেশনগুলো যে ওষুধ ছিটায়, সেগুলোর মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মশার এই ওষুধের মান নির্ণয়ে তা ঢাকার ল্যাবে পাঠিয়ে যাচাই-বাছাই করা হবে। নগরবাসীর প্রত্যক্ষ ভোটে মেয়র পদে ৫ বছরের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত হলেও এই সময়ের মধ্যে শতভাগ আকাঙ্ক্ষা ও চাহিদা পূরণ কখনও সম্ভব নয় উল্লেখ করে মেয়র বলেন, এই বাস্তবতার প্রেক্ষিতে অধিকতর জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে ১০০ দিনের মধ্যে সেগুলো ধাপে ধাপে সম্পন্ন করে জনদুর্ভোগ লাঘব ও নাগরিক স্বস্তি প্রদানে আমার সামর্থ্য ও সিটি করপোরেশনের সক্ষমতা উজাড় করে দিতে দৃঢ় প্রত্যয়ী। তিনি বলেন, নগরের অনেক সড়ক যান ও জনচলাচল অনুপযোগী। এগুলো একসঙ্গে সংস্কার বা মেরামত করা সম্ভব নয়। যেগুলোর বেশি বেহাল অবস্থা, সেগুলো আগে-ভাগে মেরামত ও খানা-খন্দ ভরাট করা হবে। গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ ও সক্ষমতা, ধারণক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য উন্নত-প্রকৌশলগত পরিকল্পনা প্রয়োজন। তাই ধৈর্য ধরতে হবে। মেয়র বলেন, কোনো সমস্যার সমাধান রাতারাতি হবে না। তবে সমস্যা সমাধানে আমি উদ্যোগী এবং সচেষ্ট। যেকোনো নাগরিক সমস্যা বা দুর্ভোগ থাকলে তা আমাকে অবগত করা হলে তা নিরসন ও লাঘবে তাৎক্ষণিক কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এ সময় স্থানীয় কাউন্সিলর এসরারুল হক, মোহাম্মদ শহিদুল আলম, এম আশরাফুল আলম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল আলম, চসিক আঞ্চলিক অফিস জোন-৬ এর নির্বাহী কর্মকর্তা আফিয়া আকতার, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম, রাজস্ব কর্মকর্তা শাহেদা ফাতেমা, যুগ্ম জেলা জজ জাহানারা ফেরদৌস, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা আকতার নেলী, উপ-সচিব আশেক রসুল চৌধুরী টিপু, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু ছালেহ, সুদীপ বসাক, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সিদ্দিক, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সাইফুদ্দীন আহমদ ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির, উপ-প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোর্শেদুল আলম চৌধুরী, প্রকৌশলী মীর্জা ফজলুল কাদের, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা প্রণব শর্ম্মা, মো. হাছান রশিদ, নির্বাহী প্রকৌশলী শহীদুল ইসলাম, আশিকুল ইসলাম, আর্কিটেক্ট আবদুল্লাহ ওমর প্রমুখ মেয়রের সঙ্গে ছিলেন।
হাটহাজারী পশ্চিম ধলইয়ে বার্ষিক বিশ্বশান্তির গীতা যজ্ঞ অনুষ্ঠিত
১৯,ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,অশোক কুমার চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: হাটহাজারী থানাধীন পশ্চিম ধলই ( পশ্চিম পাড়া) শ্রী শ্রী সার্বজনিন দূর্গা মন্দিরের উদ্যেগে ১৯ শে ফেব্রুয়ারী বিশ্বশান্তি গীতা যজ্ঞের মধু মঙ্গল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে বার্ষিক গীতা জয়ন্তী, গীতা যজ্ঞ, গীতা পাঠ,নাম সংকীর্তন, বিভিন্ন মাঙ্গলিক, দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় পূজা অর্চনা করেন অন্যান্য মঠ মিশন থেকে আগত সাধু শ্রী মৎ স্বামী উপানন্দ ব্রক্ষচারী।এতে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সরকারি কর্মকর্তা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাবু পবন বিকাশ দত্ত, সাংবাদিক অশোক কুমার চৌধুরী, অধ্যাপক বাবু অরুপ কুমার চৌধুরী, বাবু প্রদিপ কুমার মহাজন,বাবু নটু কুমার ঘোষ,বাবু কাজল শীল,বাবু নিটল শীল, ডা.বাদল দত্ত ( সরকারি কর্মকর্তা),বাবু রাজু দত্ত ( ক্যান্টন),বাবু সুভাস দত্ত, বাবু দুলাল দাশ, ২ নং ধলই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বাবু খোকন চৌধুরী প্রমুখ।উক্ত মধু মঙ্গল অনুষ্ঠানে বিভিন্ন মঠ মিশন থেকে আগত সাধু সন্যাসি ও পশ্চিম ধলই শ্রী শ্রী সার্ব্বজনিন দূর্গা মন্দির পরিচালনা পর্ষদের সদস্যবৃন্দ ও সহশ্রাদিক বক্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পটিয়ার গর্ব তসলিম উদ্দিন রানা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা উপ কমিটির সদস্য নির্বাচিত
১৯,ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তৃণমুল থেকে উঠে আসা আওয়ামী রাজনীতির দুঃসময়ের যোদ্ধা,আন্দোলন সংগ্রামের পুরোধা,৯৬,২০০১ ও ১/১১ আন্দোলন সংগ্রামের যোদ্ধা,চট্রগ্রাম সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে উঠে আসা সাবেক মেধাবী ছাত্রনেতা,বীর পটিয়ার সূর্য সন্তান,বিশিষ্ট শিশু সংগঠক,হাজার হাজার নেতা বানানোর কারিগর,ছাত্র রাজনীতির মাঠের পরিক্ষীত সংগঠক তসলিম উদ্দিন রানা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অর্থ ও পরিকল্পনা উপকমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়।উল্লেখ্য যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নির্বাচন পরিচালনা উপকমিটির সদস্য,৭ম যুব কংগ্রেস মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপকমিটির সাবেক সদস্য,চট্রগ্রাম সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি,চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য,চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সাবেক সহ-সভাপতি,মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম কেন্দ্রীয় সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক,স্বাধীনতা মেলা পরিষদের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, বিজয় মেলা উপ পরিষদের যুগ্ম সচিব,চট্রগ্রাম সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ বাংলা বিভাগের সেমিনার সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।এছাড়া পটিয়া,জিরি ইউনিয়ন বহু সামাজিক,সাংস্কৃতিক, ক্লাবের প্রতিষ্ঠানের সাথে উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অর্থ ও পরিকল্পনা উপ কমিটির সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তসলিম উদ্দিন রানা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সভানেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা,সাধারণ সম্পাদক ও মাননীয় মন্ত্রী জননেতা ওবায়দুল কাদের এমপি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ডঃ মশিউর রহমান স্যার ও চট্রলার গণমানুষের নেতা অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক শ্রদ্ধেয় ওয়াশিকা আয়েশা খান এমপির নিকট কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ ।জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে কাজ করার আশা প্রকাশ করেন।জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিউজ একাত্তর ডট কম এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
১৫ কোভিড হিরো পেলেন সম্মাননা পদক
১৯,ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সমাজে ত্যাগী মানুষ আছে বলেই মানবতার মমার্থ বিদ্যমান আছে। তাই ত্যাগী মানুষরাই সমাজের মঙ্গলালোক জ্বালিয়ে রাখেন। একাত্তরে ত্যাগী মানুষের কারণে মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জিত হয়। করোনাযুদ্ধেও ত্যাগী কিছু মানুষ ছিলেন বলেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয়েছে। এরা জাতির সম্পদ। শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরের হোটেল পেনিনসুলায় গ্র্যান্ড লাইফ এক্সপো-২০২১ ও কোভিড হিরোস সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ফরাসী বিপ্লবে তরুণ বিপ্লবীরা বলেছিলেন তারা যে ত্যাগ করেছেন তা ভবিষ্যতের জন্যই। আজ বাংলাদেশে কোভিড মোকাবেলায় সম্মুখ যোদ্ধারা তাদের ত্যাগ সুন্দর আগামীর জন্য নিবেদন করেছেন। অনুষ্ঠানে তিনি ১৫ জন কোভিড হিরোকে সম্মাননা পদক তুলে দেন। এ সময় কোভিড হিরো সম্মাননাপ্রাপ্তদের মধ্যে একুশে পত্রিকার সম্পাদক আজাদ তালুকদার, অ্যাডভোকেট রেহানা বেগম রানু, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি শাহ আবদুর রব, আজাহার মাহমুদ, বখতেয়ার উদ্দীন, ওসি মো. মহসীন, মঞ্জুর আলম, ডা. মোহাম্মদ মাসুদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।- সূত্র: বাংলা নিউজ
বিজিএমইএর পিঠা উৎসবে রুবানা হক: পোশাক শিল্পের এখন যে অবস্থা সামনে কি হবে জানি না
১৮,ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আসন্ন বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) নির্বাচনে ফোরাম প্যানেলের ৩৫ জনকে জয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থাটির বর্তমান সভাপতি ড. রুবানা হক। গত মঙ্গলবার রাতে নগরীর টাইগারপাস এলাকার নেভি কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত পিঠা উৎসব ও নৈশভোজ অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। ড. রুবানা হক বলেন, পোশাক শিল্পের এখন যে অবস্থা আমরা জানি না পশ্চিমা দেশগুলোতে বাজার আবার প্রসারিত হবে, নাকি একেবারে বন্ধ হয়ে যাবে। গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত পোশাক খাতের রপ্তানি কমেছে ১৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ। এরমধ্যে আবার গড় মূল্য কমেছে ৫ শতাংশ। ফোরামের প্যানেল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্যানেল চূড়ান্ত করে ফেলবো, এ ফোরামের প্রতিটি সদস্য গতিশীল। আবার আপনি যদি ভোট দিয়ে ফোরামের প্যানেল সদস্যদের নির্বাচন করেন তাহলে আমরা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষা করবো। ফোরামের প্যানেল লিডার এবিএম শামসুদ্দিন বলেন, বিজিএমইএ সেবা দেয়ার একটি সংস্থা। ফোরামের কোন সদস্য কোন ব্যক্তিগত উদ্দেশে এই সংস্থাটি ব্যবহার করবেন না। ফোরাম চট্টগ্রামের সভাপতি কেডিএস গ্রুপের চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি মো. আবদুস সালাম, বিজিএমইএর সিনিয়র সহ সভাপতি ফয়সাল সামাদ, সহ-সভাপতি আবদুর রহিম ফিরোজ, ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইব্রাহিম, বিজিএমইএ চট্টগ্রামের পরিচালক এনামুল আজিজ চৌধুরী, মোহাম্মদ আতিক, খন্দকার বেলায়েত প্রমুখ।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
আলোচনা সভায় চবি উপাচার্য: ধর্মীয় সম্প্রীতির অনন্য ক্ষেত্র বাংলাদেশ
১৮,ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সনাতন ধর্ম পরিষদের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় উত্তর ক্যাম্পাস কেন্দ্রীয় মন্দির প্রাঙ্গণে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি বাণী অর্চনা উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালিত হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক ছিলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের সচিব মো. রবিউল হাসান। উপাচার্য বলেন, সকল ধর্মের মানুষের পারষ্পরিক সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির মাধ্যমে বসবাসের অনন্য ক্ষেত্র বাংলাদেশ। তিনি বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ মূলমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে সকল ধর্মের মানুষ তাদের স্ব স্ব ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান উৎসবমুখর পরিবেশে পালন করে আসছে। ধর্মীয় সম্প্রীতির এই অটুট মেলবন্ধন কোনো অপশক্তি যাতে নস্যাত করতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। প্রফেসর ড. তাপসী ঘোষ রায়ের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. সজীব কুমার ঘোষের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন চবি রসায়ন বিভাগের প্রফেসর বেনু কুমার দে, হাটহাজারী রুদ্র সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ মিলন দেবনাথ, অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ড. মাখন চন্দ্র রায়, প্রকৃতি সাহা, রেজাউল হক রুবেল ও ইকবাল হোসেন টিপু। অনুষ্ঠানে চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এস এম মনিরুল হাসান, কলেজ পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. শ্যামল রঞ্জন চক্রবর্তী, প্রফেসর ড. দ্বৈপায়ন সিকদার, প্রফেসর ড. অলক পাল, প্রফেসর নির্মল কুমার সাহা, সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, বাণী অর্চনা উদযাপন কমিটির কোষাধ্যক্ষ রুনা সাহা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
আল জাজিরা টেলিভিশন তার বস্তুনিষ্টতা হারিয়েছে: আ জ ম নাছির উদ্দীন
১৭,ফেব্রুয়ারী,বুধবার,অশোক কুমার চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন,আল জাজিরা টেলিভিশন- অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন শিরোনামে যে প্রতিবেদনটি প্রচার করেছে তাতে আল জাজিরার বস্তুনিষ্টতা ও ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রিপোর্টটির শিরোনামের সাথে সংবাদের কোন মিল নেই। রিপোর্টের শিরোনাম দিয়েছে অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন আর সংবাদটি সেনাপ্রধান ও তার পরিবারকে বিরুদ্ধে। এটি নিছক ব্যক্তিগত আক্রোশ এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত একটি রিপোর্ট। এই রিপোর্টের মাধ্যমে বাংলাদেশে আল জাজিরার গ্রহণযোগ্যতা অনেকাংশেই হ্রাস পেয়েছে। এমনকি তাদের বস্তুনিষ্টতা ও নিরপেক্ষতা নিয়ে বিশ্বব্যাপী সমালোচনা উঠেছে। আজ ১৭ ফেব্রুয়ারি উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে নবনির্বাচিত কাউন্সিলর জহুরুল আলমের জসিমের দায়িত্বগ্রহণ উপলক্ষে এলাকাবাসী আয়োজিত সুধী সমাবেশ ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম। উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সদস্য ইলিয়াস খানের সভাপতিত্বে ও শামীম আহমেদ সুমনের সঞ্চালনায় সুধী সমাবেশে আকবর শাহ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন,সহসভাপতি নেওয়াজ আহমদ,পাহাড়তলী থানা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোজাফফর হোসেন মাসুম,ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা এরশাদ মামুন, শ্রমিক নেতা শফি বাঙালি,মোস্তফা কামাল বাচ্চু,ফয়েজ আহমদ,পাইনদং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম ছরোয়ার হোসেন সপন,জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিকলীগ সভাপতি মাওলানা এনামুল হক,অধ্যক্ষ ফজলুর রহমান,মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হক,রেল শ্রমিকলীগ নেতা লোকমান হোসেন,সিরাজ,জসিম উদ্দিন,দিপ্তি রানী মজুমদার,জাহাঙ্গীর কবির,আবুল হাসনাত ,আনোয়ার হোসেন,আবু নোমান,আবুদল মান্নান,বেলাল,আজিম,শরিফ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
কদমতলীতে গাড়ির ধাক্কায় যুবক নিহত
১৭,ফেব্রুয়ারী,বুধবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরে সদরঘাট থানার কদমতলী এলাকায় দ্রুতগতিতে আসা একটি গাড়ির ধাক্কায় মো. তুহিন নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলাউদ্দিন তালুকদার। তিনি বলেন, কদমতলী এলাকায় ভোরে একটি দ্রুত গতির গাড়ি তুহিনকে ধাক্কা দিলে মো. তুহিন (৩৫) গুরুতর আহত হন। তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত তুহিন চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার মো. বেলালের সন্তান।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর