চট্টগ্রাম বন্দরে বাল্কহেড ডুবি, ৫ নাবিককে জীবিত উদ্ধার
৩০,এপ্রিল,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের বহির্নোঙরে ইঞ্জিন বিকল হয়ে পাথরবোঝাই একটি বাল্কহেড ডুবে গেছে। শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ওই বাল্কহেড থেকে পাঁচজন নাবিককে জীবিত উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড। বন্দর সূত্রে জানা গেছে, পাথরবোঝাই করে এমভি পিংকি নামে একটি বাল্কহেড চট্টগ্রামের নতুন ব্রিজ এলাকা থেকে ভাসানচরের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। এরই মধ্যে বন্দর থেকে আনুমানিক ৪ কিলোমিটার দূরে গিয়ে হঠাৎ এটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে একটি মার্চেন্ট শিপের চেইনের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এরপর বাল্কহেডটি ডুবতে শুরু করলে কোস্টগার্ডের একটি স্পিড বোট দ্রুত গিয়ে পাঁচ নাবিককেই জীবিত উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে কোস্টগার্ড পূর্ব জোনের লে. আবদুর রউফ বলেন, বাল্কহেড ডুবির সংবাদ পেয়েই দ্রুত একটি স্পিড বোট পাঠিয়ে ৫ নাবিককেই জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
করোনায় চট্টগ্রামে আরও ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮০
৩০,এপ্রিল,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৮০ জনের দেহে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫২০ জনে। একইসঙ্গে করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৯ হাজার ৯০৫ জনে। শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে এক হাজার ২৮৩ নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এদের মধ্যে ১৮০ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে নগরের ১৩৩ জন এবং বিভিন্ন উপজেলার ৪৭ জন। জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫৩ জন, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৩৭১ জনেরর নমুনা পরীক্ষায় ২৩ জন, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে। একই সময়ে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৬১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩২ জন, ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৩ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৩০৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২০ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০ জন, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২১ জন এবং কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ২৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে। তবে এদিন মেডিক্যাল সেন্টার হাসপাতাল ল্যাবে কোনো নমুনা পরীক্ষা হয় নি।
পতেঙ্গায় অয়েল ট্যাংকারে অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২
২৯,এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পতেঙ্গায় কর্ণফুলী নদীর ৯ নম্বর জেটির বিপরীত পাশে এমটি ইরাবতী নামের অয়েল ট্যাংকারে অগ্নিকাণ্ডে ২ জন নিহত হয়েছে। এ সময় জাহাজের শ্রমিক আবু সুফিয়ান (৪৭), সাহাবুদ্দিন (৬০) ও মনির হোসেন (৩৪) দগ্ধ হন। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকাল ৭টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটে বলে জানান চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক নিউটন দাস। তিনি বলেন, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি গাড়ি ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে। পাশাপাশি বন্দরের টাগবোট কাণ্ডারী আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। তবে আগুন লাগার কারণ এবং নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া জানান, আহত অবস্থায় সকাল পৌনে ৯টার দিকে তিনজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের ৩৬ নম্বর বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করে দেন। আহতদের মধ্যে মনির হোসেনের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত হলেও আবু সুফিয়ান এবং সাহাবুদ্দিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।
কর্মহীনদের সহযোগিতা করতে বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন- আ.জ.ম নাছির উদ্দীন
২৮,এপ্রিল,বুধবার,মহিউদ্দিন চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ, জামাল খান ওয়ার্ড শাখার উদ্যোগে মহামারী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ও মাহে রমজান উপলক্ষে গরীব দুস্থদের মাঝে ইফতার সামগ্রী ও সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ ২৮ এপ্রিল বুধবার ১২টায় প্রিয়া কমিউনিটি সেন্টারে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ, জামাল খান ওয়ার্ড শাখার উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ওয়ার্ড সভাপতি ইমরান হোসেন জুয়েলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া লোকজন যাতে খাদ্য সংকটে না পড়ে সেজন্য বিত্তবানদের প্রতি সহযোগিতা হাত আরো বৃদ্ধি করার আহবান জানান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিটি মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, নগর গাউসিয়া কমিটির সভাপতি মাহবুবুল আলম। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, আজিম শরিফ রওশান আরা ফাউন্ডেশনের পরিচালক এড. সাজ্জাদ শরীফ রাসেল,সদস্য মো. ইসা, মো. বেলাল, সাইফুল আলম বাপ্পি, হেলাল উদ্দিন (পীর ভাই)।এতে উপস্থিত ছিলেন কাজি মিটুৃ, গোলাম মোস্থফা,আবু জাফর, রিয়াদ আরেফিন চৌধুরী,নাহিদ চৌধুরী মাহমুদ, আব্দুল হাকিম, আকবর হোসেন, তবারকুর রহমান রানা,নওশাদ রহমান , জসিম মঞ্জু প্রমুখ।
হেফাজত মুসলিমদের ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ে বাণিজ্য করছে : উলামা পরিষদ
২৮,এপ্রিল,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: হেফাজত সাম্প্রদায়িক জঙ্গি সংগঠন আখ্যা দিয়ে বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের নেতারা সংগঠনটি নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, হেফাজতে ইসলাম উগ্র-সাম্প্রদায়িক মানবতাবিরোধী জঙ্গি সংগঠন। বাঙালি মুসলিমদের ঈমান, আকিদা ও ধর্মীয় বিশ্বাস-অনুভূতি নিয়ে করছে বাণিজ্য। বুধবার ( ২৮ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ীর সভাপতিত্বে মানবতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক জঙ্গি সংগঠন হেফাজতকে নিষিদ্ধকরণ ও সংগঠনের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করার দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের নেতারা এসব কথা বলেন। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে সাবেক রাষ্ট্রদূত অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক বলেন, হাজার বছরের সম্প্রীতির এই বাংলাদেশে হঠাৎ করে একটি ধর্মীয় সংগঠনে সাম্প্রদায়িক কর্মকান্ডে আমরা অভাগ হয়েছি। এই দেশ সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষ মিলে মিশে বসবাস করছে। হেফাজতে ইসলাম ২৪-২৫-২৬-২৭-২৮ মার্চ সমগ্র দেশব্যাপী যে তান্ডব চালিয়েছে তা মানবতাকে চরমভাবে ভূলুণ্ঠিত করেছে মানবতাবিরোধী তো বটেই এটা ইসলাম সমর্থন করে না। অন্যান্য ধর্মও এ তান্ডব সমর্থন করে না। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ নির্মাণে হেফাজতে ইসলামের সকল কর্মকান্ড নিষিদ্ধ করতে হবে। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখতে হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল আলেম-উলামাদেরকেও ঐক্যবদ্ধ করে কাজে লাগাতে হবে। মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন, মাওলানা আব্দুল আলিম আজাদী, মাওলানা শাইখ আলমগীর হোসাইন, হাফেজ মাওলানা হোসেন জুয়েল, মাওলানা হাফেজ আনোয়ার শাহ, আওয়ামী লীগ নেতা এহাইয়া খান কুতুবী, ন্যাশনাল ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটির সভাপতি গণবন্ধু রাহাত হুসাইন, মাওলানা হাফেজ জলিল, মাওলানা মাহমুদুল্লাহ মেরাজ, আলহাজ্ব মোঃ সোহান চিশতী, নাফি উদ্দিন উদয়, শাফি উদ্দিন বিনয় প্রমুখ। বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী বলেন, হেফাজতে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জামাতে ইসলামের অনুকরণে। বর্ণে ভিন্ন হলেও আদর্শে দিক দিয়ে সংগঠন দুটি অভিন্ন সত্ত্বায় বিরাজ করছে। হেফাজতে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আহমদ শফিকে হত্যার মধ্য দিয়ে সংগঠনটিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তি জঙ্গীরা দখলে নিয়েছে। যার নেপথ্যে রয়েছে ৭১র ঘাতক চক্র জামায়াত-বিএনপিসহ স্বাধীনতাবিরোধী রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন। স্বাধীনতাবিরোধী চক্রের সমষ্টিগত নাম হচ্ছে হেফাজতে ইসলাম। জামায়াতে ইসলামের সাথে যেমন সম্পর্ক নেই তেমনি হেফাজতের সাথে ইসলামের মূল আদর্শের সম্পর্ক নেই। তিনি আরও বলেন, হেফাজতে ইসলামের কতিপয় নেতা দুর্নীতিগ্রস্থ হয়ে পরেছে। হেফাজতে ইসলামের নেতাদের অস্বাভাবিক লেনদেনের কারণে তাদের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করতে হবে। তাদের কাছে ইসলামও নিরাপদ নয়। ইসলামের লেবাস লাগিয়ে হেফাজতে নেতারা নারী কেলেঙ্কারিসহ, দেশবিরোধী চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র, ধোঁকা, সরকারি সম্পদ ধ্বংস, মানুষের ঘরবাড়ি জ্বালাও পোড়াও করছে। নারীদের ইজ্জত লুটতেও তারা ধর্মের ব্যবহার করছে। মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী বলেন, আওয়ামী লীগের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা হেফাজতে ইসলামের সমর্থকদের চিহ্নিত করে তাদের সংগঠন থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করতে হবে। মানববন্ধনে বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের নেতারা বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ধর্ম ব্যবসায়ীদের সংগঠন হেফাজতে ইসলামের ওপরে ভর করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলের অপচেষ্টা করছে। হেফাজতে ইসলাম ধর্মের নামে বাঙালি মুসলিমদের ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে প্রতারণা করেছে। হেফাজতে ইসলামের আড়ালে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শিবির ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশে জ্বালাও পড়াও শুরু করেছে। এদেরকে রুখতে হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার স্বপক্ষের আলেম-ওলামা, পীর মাশায়েখদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া সময়ের দাবি। সরকারকে এই বিষয়ে দায়িত্বশীলতার ভূমিকা নিতে হবে।
পতেঙ্গায় বিমান বাহিনীর খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
২৬,এপ্রিল,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে করোনাকালীন সংকটে পতেঙ্গার অসহায় লোকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ঘাঁটি জহুরুল হক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে এবং বিমান বাহিনী প্রধানের নির্দেশনায় রবিবার (২৫ এপ্রিল) পতেঙ্গায় এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিমান বাহিনী জহুরুল হকের এয়ার অধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল এএসএম ফখরুল ইসলাম। আরো উপস্থিত ছিলেন ঘাঁটি প্রশাসনিক শাখার অধিনায়ক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মিজানুর রহমান, উইং কমান্ডার হাবিবুর রহমান, ৪০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল বারেক কোম্পানি। এ সময় প্রধান অতিথি বলেন, জাতির এ সংকট থেকে উত্তরণ না হওয়া পর্যন্ত বিমান বাহিনী জনগণের পাশে থাকবে।
চট্টগ্রামের সব পৌরসভা ও ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর উপহার
২৪,এপ্রিল,শনিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের ১৫ পৌরসভা ও ১৯০ ইউনিয়ন পরিষদ প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ৫ কোটি ৯৫ লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়েছে। এসব টাকা থেকে চট্টগ্রামের সব পৌরসভা ও ইউনিয়নের প্রতিটিতে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ভিজিএফ প্রকল্পের আওতায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে দুস্থ-অসহায়দের জন্য পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এই টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। জানা গেছে, ঈদের আগেই হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে মোবাইলের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ করা হবে। সরাসরি বিকাশ অথবা নগদের মাধ্যমে প্রত্যেক তালিকাভুক্ত ব্যক্তির কাছে টাকা পৌঁছে যাবে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এস এম জাকারিয়া জানান, ভিজিএফ প্রকল্পের আওতায় আগে চাল দেওয়া হতো। এখন সরাসরি টাকা দেওয়া হচ্ছে। করোনাকালে কর্মহীন গরিব-দুঃস্থদের অগ্রাধিকার দিয়ে পৌর মেয়র, ইউএনও ও ইউপি চেয়ারম্যানদের সমন্বয়ে বরাদ্দের টাকা বিতরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান জানান, চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ৫ কোটি ৯৫ লাখ টাকা বরাদ্দ এসেছে। প্রত্যেক পরিবারের মাঝে নগদ ৫০০ টাকা করে প্রদান করা হবে। একেকদিন একেকটি উপজেলায় বিতরণ করা হবে। রবিবার (২৪ এপ্রিল) থেকে বিতরণ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।
নগরীর ৩০ সড়কে এলইডি বাতি স্থাপনের কাজ ৯০ শতাংশ সম্পন্ন: রেজাউল করিম চৌধুরী
২৩,এপ্রিল,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর ৩০টি সড়কের নির্ধারিত ৭৫ কিলোমিটার অংশ জুড়ে এলইডি বাতি স্থাপনের ৯০ শতাংশ কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। পর্যায়ক্রমে মোট সড়কের অন্যান্য অংশেও এলইডি বাতি স্থাপনের কাজ চলমান থাকবে বলে জানিয়েছেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। তিনি গতকাল রাতে নগরীর ৩০টি সড়কের ১২টিতে আলোকায়নে অধিকতর কার্যকর ও সাশ্রয়ী এলইডি বাতি স্থাপন কাজ পরিদর্শন করেন। মেয়র গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এলইডি বাতি সংস্থাপনরত আরকান সড়ক (বহদ্দারহাট-কালুরঘাট), কুয়াইশ-অক্সিজেন, নাসিরাবাদ শিল্প এলাকা, মেরিন সিটি মেডিক্যাল রোড, জাকির হোসেন রোড, সিটি গেট-অলংকার, ঢাকা ট্রাঙ্ক রোড, কদমতলী রোড, আইসফ্যাক্টরি রোড, চট্টগ্রাম কলেজ রোড ও কাপাসগোলা রোড পরিদর্শনে যান এবং কাজের অগ্রগতি দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন। মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান হিসেবে নগরীতে মূলতঃ আলোকায়ন ও পরিচ্ছন্নতা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করে এবং এই দায়িত্ব পালনের জন্যই নগরবাসী কর প্রদান করেন। এই দুটি খাতের সফলতার উপরই নির্ভর করে চসিকের সক্ষমতা। তাই এই দুটি খাতকে বেশি অগ্রাধিকার দেয়া হয়। তিনি আরো বলেন, আমি আলোকিত নগরী চাই, এ জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) ঝুলন কুমার দাশ ও বিদ্যুৎ বিভাগের সহকারী ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী বৃন্দ।
সিডিএ চেয়ারম্যান পদে আরও ৩ বছরের দায়িত্ব পেলেন জহিরুল আলম দোভাষ
২৩,এপ্রিল,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) চেয়ারম্যান পদে আরও তিন বছরের জন্য নিয়োগ পেয়েছেন এম জহিরুল আলম দোভাষ। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চুক্তি ও বৈদেশিক নিয়োগ শাখা থেকে বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। উপসচিব মো. আলিউর রহমানের স্বাক্ষর করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইন ২০১৮ এর ধারা ৭ (১) এবং ৭৯২) অনুযায়ী চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান পদে নিয়োজিত জনাব এম জহিরুল আলম দোভাষকে অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সঙ্গে কর্ম-সম্পর্ক পরিত্যাগের শর্তে আগামী ২৪ এপ্রিল ২০২১ অথবা যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী ৩ বছর মেয়াদে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ প্রদান করা হলো। এর আগে সাবেক সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালামের পর এম জহিরুল আলম দোভাষকে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জহিরুল আলম দোভাষ বলেন, সিডিএ চেয়ারম্যানের পদে পুনর্নিয়োগের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। সিডিএর চলমান প্রকল্পগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা এবং আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে সিডিএকে গতিশীল প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার জন্য সবার সহযোগিতা চাই।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর