মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
করোনা: ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে নতুন আক্রান্ত ৬৯
২০,জানুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্ত ৩২ হাজার ৩৩২ জন। বুধবার (২০ জানুয়ারি ) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এই দিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৭টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব ৭৪টি নমুনা পরীক্ষায় ১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৫৭০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ১২ জনের। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৬৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৩৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১৫০টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অন্যদিকে জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। এইদিন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়নি। আবার কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৩৩টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মেলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৬৯ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৩৭৪টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৫৭ জন এবং উপজেলায় ১২ জন।
শিক্ষার মানোন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী: ডিসি
১৯,জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করছেন বলে মন্তব্য করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান। তিনি বলেছেন, জিডিপি বৃদ্ধিতে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়। অর্থনীতির চাকা সচল থাকায় উন্নয়ন সূচকগুলোতে দৃশ্যমান। তবে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে দেশে কেউ নিরক্ষর থাকতে পারবে না। মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত- আউট অব স্কুল চিলড্রেন শিক্ষা কর্মসূচি বাস্তবায়ন বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহযোগিতায় চট্টগ্রাম উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো এই কর্মশালার আয়োজন করে। মমিনুর রহমান বলেন, এখন থেকে সুষ্ঠু জরিপের মাধ্যমে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত ও ঝরে পড়া নিরক্ষর শিশুদের শিক্ষার সাথে সম্পৃক্ত রাখতে হবে। এজন্য সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থাকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। তবেই সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়ন, ২০৩০ সালে এসডিজি অর্জন ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র বিনির্মাণ সম্ভব হবে বলে মন্তব্য করেন জেলা প্রশাসক। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আ স ম জামশেদ খোন্দকারের সভাপতিত্বে ও প্রকল্পের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা প্রোগ্রাম অফিসার মর্জিনা বেগমের সঞ্চালনায় কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক জুলফিকার আমিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন- জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির ইকবাল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ মজিবুর রহমান। কর্মশালায় মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের জেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার এম. কামরুল ইসলাম।
তারেক সোলেমানের জানাজায় মানুষের ঢল
১৯,জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগ নেতা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর তারেক সোলেমান সেলিমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) বেলা ২টায় পুরাতন রেল স্টেশন চত্বরে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তারেক সোলেমান সেলিমের জানাজায় অংশ নিতে বেলা ১টা থেকেই পুরাতন রেল স্টেশন এলাকায় জড়ো হন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। পুরাতন রেল স্টেশনের মাঠ পরিপূর্ণ হয়ে পাশের সড়কেও জানাজার কাতার হয়। তারেক সোলেমান সেলিমের জানাজার আগে বক্তব্য দেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, তারেক সোলেমান সেলিমের ছেলে ও ছোট ভাই। আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, তারেক সোলেমান সেলিম দলের জন্য নিবেদিত ছিলেন। তার অবদান কেউ ভুলতে পারবে না। তার জানাজায় এত মানুষের উপস্থিতি তার জনপ্রিয়তা প্রমাণ করে।
প্রতিশ্রুতি নয়, ফলশ্রুতি দিয়ে আবারো জনগণের মনে জায়গা করে নিবেন ড. আলহাজ্ব নিছার উদ্দিন আহমেদ
১৯,জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে জমে উঠেছে নির্বাচনী আমেজ। মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি কাউন্সিলর প্রার্থীরাও এলাকায় এলাকায় প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ১০ নং ওয়ার্ডের সার্বিক উন্নয়ন নীতিধারা বজায় রেখে পুনরায় কাজ করতে চান দুই বারের সফল কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র ড. আলহাজ্ব নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু ( মিষ্টি কুমড়া প্রতিক) । তিনি প্রতিশ্রতি নয়, জনগণকে সঠিক সেবা প্রদান করার মাধ্যমে তার উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্যো এলাকার উন্নয়নে কাজ করে প্রধানমন্ত্রীকে ডিজিটাল ওয়ার্ড প্রদান করতে আগ্রহী। উক্ত এলাকার কয়েকজন স্থায়ী বাসিন্দা ও ভোটারেরা নিউজ একাত্তরকে বলেন, ১০ নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডের এলাকাবাসী তাকে ভালবাসেন ।বিগত দুটি নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটের মাধ্যমে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। এবারও তিনি বিপুল ভোটের মাধ্যমে জয় হবেন বলে আশা করছি। প্রতিশ্রুতি নয়, ফলশ্রুতি দিয়ে আবারো জনগণের মনে জায়গা করে নিবেন উদীয়মান ও সফল কাউন্সিলর ড. আলহাজ্ব নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু । যার লক্ষ্য বঙ্গবন্ধুর রেখে যাওয়া স্বপ্নকে বাস্তবায়নে পথচলা।ড. আলহাজ্ব নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ১০ নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডকে গ্রীন সিটি হিসেবে পরিণত করা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের হাতকে শক্তিশালী করাই আমার সপ্ন। তাই উন্নয়নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে এবার আমার নির্বাচনী ইস্তেহারে থাকছে- মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন করতে রাস্তা-ঘাট ও সড়কের উন্নয়ন, আলোক সজ্জার ব্যবস্থাকরণ, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা পুনঃনির্মাণ ও স্থাপন, বেকার সমস্য দূরীকরণ, বিনামূল্যে সকল সার্টিফিকেট প্রদান, বাল্য বিবাহ রোধ, বয়স্কভাতা প্রদান, মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা, মহল্লায় মহল্লায় পঞ্চায়েত কমিটির মেম্বারের মাধ্যমে বিচার ব্যবস্থা গ্রহণ করা, নালা-নর্দমা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, ডাস্টবিনের ময়লা সময়মত অপসারন করা, এবং যোগ্যতা অনুযায়ী তরুণ-তরুণীদের চাকুরীর ব্যবস্থাকরা সহ নানামুখী সুযোগ সুবিধা প্রদান করা। উত্তর কাট্টলী আমার অহংকার- এই স্লোগানে মিষ্টি কুমড়া মার্কা নিয়ে এলাকাবাসীর সেবা প্রদানে আজীবন কাজ করে যেতে চাই। এলাকার মা-বোন, ভাই ও মুরব্বীগণের কাছে দোয়া চাই। তিনি আরো বলেন, এলাকাবাসীর ভালবাসায় আজ আমি ৩য় বারের মতো কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছি। আমার এলাকাবাসী আমাকে অত্যন্ত ভালবাসেন। আর সেই ভালবাসা থেকে বলছি আমি আপনাদেরই ভাই, আপনাদেরই বন্ধু, আপনাদেরই সন্তান। আগামী ২৭ শে জানুয়ারী আপনাদের ভালোবাসার মার্কা মিষ্টি কুমড়ায় ভোট দিয়ে আবারও আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিবেন বলে আমি আশাবাদী।
মহসীনসহ সিএমপির ৫ ওসি পদে রদবদল
১৯,জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের (চসিক) ভোটের ৯ দিন আগেই নির্বাচন কমিশনের সুপারিশে সিএমপির ৫ থানার ওসি পদে রদবদল করা হয়েছে। এরমধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কোতোয়ালী-ডবলমুরিং ও চান্দগাঁও থানার ওসিও রয়েছে। ১২ জানুয়ারি নির্বাচনী সহিংসতায় ডবলমুরিং থানার পাঠানটুলি ওয়ার্ডে একজন মারা গেলে সেখানে নির্বাচনী পরিবেশ সংকটের মুখে পড়ে। সেই সংকটময় সময়ে ওই থানার ওসি পদে পাঠানো হলো মানবিক ও চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত সিএমপির আলোচিত ওসি মোহাম্মদ মহসীনকে। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর এ রদবদলের আদেশ দেন। কোতোয়ালী থানার আলোচিত ওসি মোহাম্মদ মহসীনকে ডবলমুরিং থানায় ওসি পদে বদলি করে ডবলমুরিংয়ের ওসি সদীপ কুমার দাশকে সিএমপি কমিশনারের কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। বাকলিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীনকে কোতোয়ালীর ওসি পদে বদলি করে চকবাজার থানার ওসি রুহুল আমিনকে বাকলিয়া থানায় পদায়ন করা হয়েছে। চান্দগাঁও থানার ওসি আতাউর রহমান খোন্দকারকে চকবাজার থানার ওসি পদে বদলি করে ডিবি উত্তর জোনের পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমানকে চান্দগাঁও থানার ওসি পদে পদায়ন করা হয়েছে। এছাড়া অন্য এক আদেশে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (সিটি) আসিফ মহিউদ্দীনকে অতিরিক্ত হিসেবে নির্বাচনকালীন সময়ে গোয়েন্দা বিভাগকে (ডিবি) সহায়তা করার জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সিএমপির উপ কমিশনার (সদর) আমীর জাফর বলেন, যেহেতু নির্বাচন চলছে সিটি এলাকায়। তাই তফসিল ঘোষণার পর এসব বদলির বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সুপারিশ আমলে নিতে হয়। এক্ষেত্রেও তা করা হয়েছে। অন্যদিকে চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মো. হাসানুজ্জামান বলেন, নির্বাচনী আচরণ ও পরিবেশ ঠিক রাখতে আমরা সিএমপিকে যা যা করণীয় তা করতে চিঠি দিয়েছি। হয়তো সেকারণেই সুষ্ঠু ও প্রভাবমুক্ত নির্বাচনের সুবিধার্থে সিএমপির পাঁচ থানার ওসি বদলি করা হয়েছে।
চসিক নির্বাচন: আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ
১৮,জানুয়ারী,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চসিক নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি ও সদস্য সচিব সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন দলীয় প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করে তাদের বিজয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন ভোটারদের কাছে। দুই নেতার স্বাক্ষরে প্রকাশিত তালিকায় ২৭ জানুয়ারি নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরীকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে চট্টগ্রামের চলমান উন্নয়নের ধারাকে এগিয়ে নিতে আবেদন জানানো হয়। ঘোষিত তালিকায় ১ নম্বর দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ডে গাজী শফিউল আজিম, ২ নম্বর জালালাবাদ ওয়ার্ডে মোহাম্মদ ইব্রাহিম, ৩ নম্বর পাঁচলাইশ ওয়ার্ডে কফিল উদ্দিন খাঁন, ৪ নম্বর চান্দগাঁও ওয়ার্ডে মো. সাইফুদ্দিন খালেদ, ৫ নম্বর মোহরা ওয়ার্ডে কাজী নুরুল আমিন, ৬ নম্বর পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ডে এম আশরাফুল আলম, ৭ নম্বর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডে মো. মোবারক আলী, ৮ নম্বর শুলকবহর ওয়ার্ডে মো. মোরশেদ আলম, ৯ নম্বর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে নুরুল আবছার মিয়া, ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে নিছার উদ্দিন আহমেদ, ১১ নম্বর দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ডে মোহাম্মদ ইসমাইল, ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডে মো. নুরুল আমিন, ১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, ১৪ নম্বর লালখান বাজার ওয়ার্ডে আবুল হাসনাত মো. বেলাল, ১৫ নম্বর বাগমনিরাম ওয়ার্ডে মো. গিয়াস উদ্দিন, ১৬ নম্বর চকবাজার ওয়ার্ডে সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, ১৭ নম্বর পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডে শহিদুল আলম, ১৮ নম্বর পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ডে মো. হারুনুর রশিদ (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত), ১৯ নম্বর দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডে নুরুল আলম, ২০ নম্বর দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডে চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ডে শৈবাল দাশ সুমন, ২২ নম্বর এনায়েত বাজার ওয়ার্ডে মোহাম্মদ সলিম উল্ল্যাহ, ২৩ নম্বর উত্তর পাঠানটুলি ওয়ার্ডে মোহাম্মদ জাবেদ, ২৪ নম্বর উত্তর আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে নাজমুল হক, ২৫ নম্বর রামপুর ওয়ার্ডে আব্দুস সবুর লিটন, ২৬ নম্বর উত্তর হালিশহর ওয়ার্ডে মোহাম্মদ হোসেন, ২৭ নম্বর দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে শেখ জাফরুল হায়দার চৌধুরী, ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডে নজরুল ইসলাম বাহাদুর, ২৯ নম্বর পশ্চিম মাদারবাড়ি ওয়ার্ডে গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের, ৩০ নম্বর পূর্ব মাদারবাড়ি ওয়ার্ডে আতাউল্লাহ চৌধুরী, ৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ডে মো. আবদুস সালাম, ৩২ নম্বর আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডে জহরলাল হাজারী, ৩৩ নম্বর ফিরিঙ্গি বাজার ওয়ার্ডে মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, ৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ডে পুলক খাস্তগীর, ৩৫ নম্বর বক্সিরহাট ওয়ার্ডে হাজী নুরুল হক, ৩৬ নম্বর গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডে জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, ৩৭ নম্বর উত্তর মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডে আবদুল মান্নান, ৩৮ নম্বর দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডে গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, ৩৯ নম্বর দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ডে জিয়াউল হক সুমন, ৪০ নম্বর উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডে মোহাম্মদ আবদুল বারেক ও ৪১ নম্বর দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ডে ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী। সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ঘোষিত দলীয় প্রার্থীর তালিকায় আছেন- ১, ২, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে সৈয়দা কাশফিয়া নাহরিন, ৪, ৫, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে জোবাইরা নার্গিস খান, ৭, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে জেসমিন পারভীন জেসি, ৯, ১০, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে তাসলিমা বেগম (নুর জাহান), ১৪, ১৫, ২১ নম্বর ওয়ার্ডে আঞ্জুমান আরা বেগম, ১৭, ১৮, ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে শাহীন আক্তার রোজী, ১৬, ২০, ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে রুমকি সেন গুপ্ত, ২২, ৩০, ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে নিলু নাগ, ১২, ২৩, ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে জাহেদা বেগম পপি, ১১, ২৫, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে হুরে আরা বেগম, ২৮, ২৯, ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে ফেরদৌসি আকবর, ২৭, ৩৭, ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডে আফরোজা জহুর (আফরোজা কালাম), ৩৩, ৩৪, ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডে লুৎফুন্নেছা দোভাষ বেবী ও ৩৯, ৪০, ৪১ নম্বর ওয়ার্ডে শাহানুর বেগম।
দুঃসময়ের রাজনীতির যোদ্ধা তারেক সোলাইমান সেলিমের কফিনে শ্রদ্ধা
১৮,জানুয়ারী,সোমবার,সৃজন দত্ত,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী রাজনীতির দুঃসময়ের যোদ্ধা,জনপ্রিয় কমিশনার,চট্রগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য,সাবেক মেধাবী ছাত্রনেতা,পরিক্ষীত,আদর্শিক,হাজার হাজার নেতা বানানোর কারিগর, জননেতা তারেক সোলাইমান সেলিম এর কফিনে শ্রদ্ধা জানান -বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু,ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন মারুফ,আমরা ক'জন সেনা কেন্দ্রীয় সদস্য সভাপরিচালনা সাঈদ আহমেদ বাবু,সদস্য সমন্বয়কারী সৈয়দ আহমেদ তোহা,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য জসিম উদ্দিন চৌধুরী,তসলিম উদ্দিন রানা,কৃষক লীগের নেতা আলমগীর খান প্রমুখ।
শর্ট সিলেবাসে পরীক্ষা নেয়াসহ চার দাবি: পলিটেকনিক ছাত্রদের বিক্ষোভ
১৮,জানুয়ারী,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চারদফা দাবিতে নগরীর জিইসি মোড়, ২ নম্বর গেট ও মুরাদপুর এলাকায় বিক্ষোভ করেছে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা। গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। প্রায় ২ ঘণ্টার এই বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে ২ নম্বর গেট এলাকায় রাস্তাও অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা। এসময় ওই এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। কর্মসূচি চলাকালে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে পাঁচলাইশ, চকবাজার ও খুলশী থানার পুলিশ অবস্থান নেয়। শিক্ষার্থীদের চার দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- স্থগিত দ্বিতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ পর্বের (সেমিস্টার) তাত্ত্বিক প্রমোশন দিয়ে ব্যবহারিক পরবর্তী পর্বের সঙ্গে সংযুক্ত করে একবছর লসের হাত থেকে মুক্তি দেওয়া, প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বের ক্লাস চালু করে শর্ট সিলেবাসে দ্রুত পরীক্ষা নেওয়া, সকল প্রকার অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহারের পাশাপাশি সকল প্রাইভেট পলিটেকনিকেলের সেমিস্টার ফি অর্ধেক করা এবং ২০২১ সালের মধ্যে ডুয়েটসহ অন্যান্য প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করা। শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করলেও অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছেন পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া। তিনি বলেন, কর্মসূচি চলাকালে পাঁচলাইশ থানার পাশাপাশি চকবাজার ও খুলশী থানার পুলিশ মোতায়েন ছিল। বিপ্লব উদ্যানে গিয়ে শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচি শেষ করে। শান্তিপূর্ণ ভাবেই তাদের কর্মসূচি সমাপ্ত হয়েছে বলেও জানান তিনি।
করোনা: ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে আক্রান্ত ৮৮ জন
১৮,জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ১৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮ জন। এ নিয়ে মোট করোনা আক্রান্ত ৩২ হাজার ১৬৫ জন। এসময়ে করোনায় মৃত্যুবরণ করেনি কেউ। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এইদিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৮টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১২৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৩৬৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ৮ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৯৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১০টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা ভাইরাস পজেটিভ পাওয়া গেছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৮৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৬২টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। অন্যদিকে জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ১১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৭২টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৮৮ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ১৪৪টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৭৬ জন এবং উপজেলায় ১২ জন।

সর্বশেষ সংবাদ