মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
শীতার্তদের মাঝে Rab-7 এর পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র বিতরণ
০৭,জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে ঘোষিত মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে Rapid Action Battalion (Rab) এর পক্ষ থেকে শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) বিকেলে নগরের বায়েজিদ থানা এলাকায় প্রায় ৫০০ ছিন্নমুল মানুষকে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। পর্যায়ক্রমে আরও ৭০০ শীতার্ত মানুষকে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হবে বলে জানিয়েছে Rab। Rab-7 এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ মশিউর রহমান জুয়েল এসব শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। এ সময় Rab-7 এর উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহেল মাহমুদসহ Rab-7 এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। Rab-7 এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ মশিউর রহমান জুয়েল বলেন, বঙ্গবন্ধু নিপীড়িত মানুষের জন্য কাজ করেছেন। দুস্থ:দের সহায়তা করেছেন। তার জন্মশত বার্ষিকীতে সেবা সপ্তাহ পালন করছে Rab। তিনি বলেন, এই সেবা সপ্তাহে আমরা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে প্রার্থনার আয়োজন, বৃক্ষরোপণ, শীতার্ত মানুষকে শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানা উদ্যোগ নিয়েছি। বৃহস্পতিবার বায়েজিদ থানা এলাকায় প্রায় ৫০০ ছিন্নমুল মানুষকে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।
ঐক্যবদ্ধ হয়ে ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে: শাহাদাত
০৭,জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহানগর বিএনপির আহবায়ক ও চসিক মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আগামী ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বেগম খালেদা জিয়ার প্রতীক ধানের শীষকে বিজয়ী করতে হবে। এই কাজ আমাদের জন্য অনেক কঠিন হলেও সকল বাধাবিপত্তি অতিক্রম করে আমাদের এগিয়ে যেতেই হবে। তিনি গতকাল বুধবার দুপুরে নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে চসিক নির্বাচন উপলক্ষে ১৫ থানা ও ৪৩টি সাংগঠনিক ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দীন বলেন, নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত না করে জাল জালিয়াতের আশ্রয় নিলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, চসিক নির্বাচন সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশনকে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে। দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান বলেন, ডা. শাহাদাত হোসেনকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করলে তিনি চট্টগ্রামকে একটি নিরাপদ স্মার্ট ও আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মিয়া ভোলা, এস এম সাইফুল আলম, ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, আহবায়ক কমিটির সদস্য আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আনোয়ার হোসেন লিপু, মনজুর আলম চৌধুরী মঞ্জু, কামরুল ইসলাম, মনজুর রহমান চৌধুরী, হাজী বাবুল হক, মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন, আব্দুস সাত্তার সেলিম, মোশারফ হোসেন ঢেপটি, মো. আজম, মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, মো. সেকান্দর, হাজী হানিফ সওদাগর, ডা. নুরুল আবছার, আবদুল্লাহ আল হারুন, সরফরাজ কাদের রাসেল, জাকির হোসেন, আফতাবুর রহমান শাহীন, মো. শাহাবুদ্দিন, হাজী বাদশা মিয়া, জসিম উদ্দিন জিয়া, মনির আহমেদ চৌধুরী, শরিফ উদ্দিন খান, মাইন উদ্দিন চৌধুরী মাইনু, নূর হোসাইন, আব্দুল কাদের জসিম, রোকন উদ্দিন মাহমুদ, হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম ও ৪৩টি সাংগঠনিক ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ।
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উদীয়মান শক্তিতে পরিণত হয়েছে: রেজাউল করিম চৌধুরী
০৭,জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,সিনিয়র সংবাদদাতা,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল থেকে উদীয়মান শক্তিতে পরিণত হয়েছে। নগরীর কাজীর দেউড়ি রাবেয়া রহমান গলিতে বুধবার (৬ জানুয়ারি) বিকালে রাবেয়া রহমান ফাউন্ডেশন আয়োজিত জনসাধারণের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, দেশ ও চট্টগ্রামে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নগরবাসীর উচিত আগামী ২৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করা। শামসুল ইসলাম চৌধুরী সভাপতিত্বে ও মনির হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন মহানগর আ. লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, সাবেক ছাত্রনেতা রাশেদুল আলম, ওয়ার্ড আ. লীগের সভাপতি আবুল হাশেম বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মিথুন বড়ুয়া, সহ-সভাপতি মো. সাহাবুদ্দিন, মো. জাহাঙ্গীর আলম, ৩ নম্বর ইউনিট সাধারণ সম্পাদক বাবুল দেব রায়, মো. জাহাঙ্গীর মোস্তাফা, আবু ফরহাদ সাবু, আসহাব রসুল জাহেদ, হাসান তারেক চৌধুরী প্রমুখ।
শীতার্তদের কষ্ট লাঘবে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান
০৭,জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শীতার্তদের কষ্ট লাঘবে সরকারের নানা উদ্যোগের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম। মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা ও চসিকের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের ব্যক্তিগত উদ্যোগে বুধবার (৬ জানুয়ারি) উত্তর কাট্টলী মোস্তফা-হাকিম কলেজ চত্বরে ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ও ৯ নম্বর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের নারী-পুরুষদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে এম মনজুর আলম বলেন, প্রচণ্ড শীতে বাস্তুহারা অসহায় গৃহহীন মানুষগুলোর দুঃখের সীমা থাকে না। তাই প্রতিবছরের মতো এ বছরও অসহায় শীতার্তদের পাশে এগিয়ে এসেছে মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। নগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ধারাবাহিকভাবে চলছে কম্বল বিতরণ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আকবরশাহ থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি লোকমান আলী, মোস্তফা-হাকিম কেজি অ্যান্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার, স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সদস্য নেছার আহাম্মদ, তৈয়বিয়া জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুল মান্নান প্রমুখ।
চসিকের উন্নয়ন প্রকল্প: চলতি মাসেই উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি চান প্রশাসক
০৬,জানুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীতে চসিকের বেশকিছু উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। চলতি মাসের মধ্যে প্রকল্পগুলোর উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখতে চেয়েছেন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে নগরীর টাইগারপাসে চসিকের অস্থায়ী কার্যালয়ে প্রকৌশলীদের সাথে অনুষ্ঠিত বৈঠকে তিনি একথা বলেন। সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রশাসক তার দায়িত্বকালীন সময়ের মধ্যে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি দেখতে চান। কাজ শেষ করতে তিনি বিভিন্ন সময় চসিকের প্রকৌশলীদের নিয়ে প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন। ঠিকাদারদের তাগিদ দিয়েছেন। তবে তার মেয়াদকালে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে পিসি রোডের। দীর্ঘ তিন বছরেও এই সড়কের কাজ শেষ না হওয়ায় ওই এলাকার বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা নিদারুণ দুর্ভোগে ছিলেন। খোরশেদ আলম সুজন দায়িত্ব পেয়ে সড়কটির কাজ শেষ করতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেন। বর্তমানে পিসি রোডের ৯০ শতাংশ কাজ শেষ। তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এই সড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে গিয়ে এর অগ্রগতি দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বৈঠকে কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমেদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু সালেহ, মনিরুল হুদা, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাহাদাত মো. তৈয়ব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন আক্রান্ত ৮৪ জন
০৬,জানুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩০৮টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ৩০ হাজার ৯৮০ জন। এসময়ে চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যুবরণ করেনি কেউ। মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এইদিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৭টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১২১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৩ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৫৯২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ১৭ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ২৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৫৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এতে পজেটিভ আসে ৬ জনের। এছাড়া ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ১০ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১৫০টি নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) এইদিন কোনো নমুনা পরীক্ষা হয়নি। অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৮৪ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৩০৮টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৭৪ জন এবং উপজেলায় ১০ জন।
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত চট্টগ্রাম বন্দর
০৬,জানুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে নতুন বছরের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত চট্টগ্রাম বন্দর। দেশের ক্রমবর্ধমান অভ্যন্তরীণ আমদানি-রফতানির চাপের পাশাপাশি প্রতিবেশী দেশ ভারত, নেপাল ও ভুটানের ট্রানজিট পণ্য পরিবহনে সক্ষমতা বাড়াতে হচ্ছে বন্দরকে। এরই অংশ হিসেবে নতুন নতুন অবকাঠামো, জেটি, টার্মিনাল নির্মাণ, আধুনিক কনটেইনার ও কার্গো হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট সংগ্রহ, জাহাজ আনা-নেওয়ার জন্য চ্যানেলে ড্রেজিংসহ পরিচর্যা, অফিশিয়াল ও অপারেশনাল কার্যক্রমে অটোমেশন ও ডিজিটালাইজেশনে গুরুত্ব দিচ্ছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এসএম আবুল কালাম আজাদ বলেন, করোনাকালের চ্যালেঞ্জ দক্ষতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছি আমরা। সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে নতুন বছরের চ্যালেঞ্জ ও অগ্রাধিকার চিহ্নিত করে চলমান প্রকল্পগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন ও নতুন পরিকল্পনা প্রণয়ন করছি আমরা। ইতিমধ্যে মাতারবাড়ীতে প্রথম বাণিজ্যিক জাহাজ ভিড়াতে সক্ষম হয়েছি। পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনালের (পিসিটি) কাজ পুরোদমে চলছে। এ বছরের শেষনাগাদ এ টার্মিনালে জাহাজ ভিড়বে আশাকরি। বে টার্মিনাল নির্মাণের প্রক্রিয়ায়ও অনেক অগ্রগতি হয়েছে। সব মিলে দেশের অর্থনীতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রতিবেশী দেশ বিশেষ করে ভারত, নেপাল ও ভুটানের ট্রানজিট কার্গো-কনটেইনার পরিবহনের বিষয়টিকেও গুরুত্ব দিচ্ছি। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান দায়িত্ব দেশের শিল্পোদ্যোক্তা, আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের আমদানি-রফতানি কার্যক্রমে প্রয়োজনীয় সাপোর্ট দেওয়া। কস্ট অব ডুয়িং বিজনেস কমানো। পাশাপাশি ভৌগোলিক অবস্থানগত কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ভালো প্রতিবেশী দেশগুলোর বৈদেশিক বাণিজ্যে অংশীদার হতে চাই। এতে আমরা, আমাদের দেশের সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা তথা জনগণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে সক্ষম হবো। ২০২০ সালে চট্টগ্রাম বন্দরের উল্লেখযোগ্য অর্জন হচ্ছে- লয়েডস লিস্টে বিশ্বের সেরা ১০০ কনটেইনার হ্যান্ডলিং পোর্টের তালিকায় ৫৮তম অবস্থানে উন্নীত হওয়া, মাতারবাড়ী বন্দরের জন্য কনসালটেন্ট নিয়োগ, করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারণে সৃষ্ট কনটেইনার ও জাহাজ জট নিরসন, করোনা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ, চলমান প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নেওয়া ইত্যাদি। সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে করোনার বছরে (২০২০) বন্দর জেটি, আইসিটি ও আইসিটি মিলে কনটেইনার হ্যান্ডলিং হয়েছে ২৮ লাখ ৩৯ হাজার ৯৯৭ টিইইউস (২০ ফুটের একক হিসেবে)। এর মধ্যে আমদানি হয়েছে ১৪ লাখ ৯১ হাজার ২২৮ টিইইউস। বাকি ১৩ লাখ ৪৮ হাজার ৭৪৯ টিইইউস রফতানি ও খালি কনটেইনার। ২০১৯ সালে কনটেইনার হ্যান্ডলিং হয়েছিল ৩০ লাখ ৮৮ হাজার ১৮৭ টিইইউস। এক বছরে কমেছে প্রায় ২ লাখ ৪৮ হাজার ২১০ টিইইউস। আমদানি ও রফতানি মিলে বাল্ক কার্গো বা খোলা পণ্য পরিবহন হয়েছে ৭ কোটি ৭১ লাখ ৩৪ হাজার ৯৯৩ টন। এর মধ্যে আমদানি পণ্য ৭ কোটি ৬৮ লাখ ৭০ হাজার ৬৫৮ টন। বাকি ২ লাখ ৬৪ হাজার ৩৩৫ টন রফতানি পণ্য। এক বছরে বন্দরে মোট জাহাজ এসেছিল ৩ হাজার ৭২৮টি। ২০১৯ সালে বন্দরে জাহাজ এসেছিল ৩ হাজার ৮০৭টি।
শীতের কষ্ট সেই বুঝবে যার কাছে শীত নিবারণের মতো কোনো বস্ত্র নেই : নাছির
০৫,জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, শীতের কষ্ট সেই বুঝবে যার কাছে শীত নিবারণের মতো কোনো বস্ত্র নেই। শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে কম্বল বিতরণ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন। সেই কর্মসূচির সঙ্গে একাত্ম হয়ে সমাজের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সমাজের প্রতিটি মানুষের উচিত মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করা। একজন শীতার্ত মানুষের গায়ে একটি কম্বল দিতে পারা অনেক আনন্দের বিষয়। আমাদের প্রত্যেককে স্ব স্ব অবস্থান থেকে জনসেবায় নিজেকে আত্মনিবেদন করতে হবে। জনসেবায় আত্মনিবেদন করা পরম এবাদত। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে সোমবার (৪ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের আওতাধীন থানা সমূহের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন উপলক্ষে ডবলমুরিং থানা শাখার উদ্যোগে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আবদুর রশীদ লোকমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক এইচ এম জিয়াউদ্দীন, যুগ্ম আহবায়ক কে বি এম শাহজাহান ও সালাউদ্দীন আহমেদ। মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা রুবেল আহমেদ বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য ২৩ নং উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদ, ২৩ নং উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের সভাপতি আবদুল হান্নান, ২৪ নং উত্তর আগ্রাবাদ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ জাকারিয়া জকু, উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইদ্রিস কাজেমী, ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসিফ খান, ২৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, লায়ন মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মোস্তাফিজুর রহমান মিন্টু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সুজিত দাশ, ওসমান গণি মানিক, হায়দার আলী, মঞ্জুর হোসাইন, সুমন কান্তি নাথ, সাহাব উদ্দীন বাদশা, এস এম আলী আকবর, মফিজুর রহমান দুলাল, লায়ন এম এ নেওয়াজ, মনোওয়ার আলী রানা, আইয়ুব চৌধুরী, সুজয়মান জিতু, আবদুল্লা আল মামুন, নাছির উদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা সাহাজান সাজু, মহানগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, সোলাইমান সবুজ, জাহেদ হোসেন রণি, নাজিম উদ্দিন।

সর্বশেষ সংবাদ