ধর্ষণ ও মাদক বন্ধে অবিলম্বে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে: ভাড়াটিয়া, ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাদকবিরোধী অভিযান চালানোর পরও মাদকের বিস্তার কমেনি বরং বেড়েছে। অভিযোগ রয়েছে, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু সদস্যও মাদক কারবারে জড়িত। নেপথ্যে রাজনৈতিক শক্তিও জড়িত বলে অভিযোগ আছে। মাদক নির্মূলে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অভিভাবকের নজরদারি ও জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। সরকার ও প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে। গড়ে তুলতে হবে সামাজিক প্রতিরোধ। মাদক মামলার বিচার দ্রুত সম্পন্ন করে অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। মহামারি প্রতিরোধে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়ে ভাড়াটিয়া, ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদর চেয়ারম্যান প্রবীণ সাংবাদিক কামরুল হুদা ও মহাসচিব সাংবাদিক নাছির উদ্দিন চৌধুরী এক যুক্ত বিবৃতি প্রদান করেন। বিবৃতিতে ভাড়াটিয়া, ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্রই ধর্ষণ, গণধর্ষণের মতো অপরাধ প্রায় প্রতিদিনই সংঘটিত হচ্ছে। ধর্ষিতা হিসেবে যেমন শিশু, কিশোর, বয়েসী মহিলাকে ভিকটিম হতে দেখা যাচ্ছে, ধর্ষক হিসেবেও পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন বয়স ও পেশার লোকজনকে। চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণের অপরাধীচক্র কতো পাওয়ারফুল ছিল, সেটা তো ঘটনার ধারাক্রম থেকেই প্রমাণ হয়। প্রকাশ্যে গাড়ির ভেতরে গণধর্ষণ করলো তারা। এই প্রবল ক্ষমতাধর ধর্ষক কারা? ছাত্র। বয়সে তরুণ-যুবক। এখন বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার মধ্যে ২৫-৪০ বয়সের মানুষ সর্বাধিক। এই তরুণ-যুবকগণ, যতো না পড়াশোনা ও দক্ষতা অর্জনে ইচ্ছুক, তার চেয়ে বেশি বৈশ্বিক ঘটনাপ্রবাহ ও কনজিউমারিজম ভিত্তিক সংস্কৃতি দেখে দেখে ভোগপ্রবণ বিকৃত মানসিকতা সম্পন্ন হচ্ছে বেশী। তাদের যোগ্যতা থাক বা না থাক, তাদের মধ্যে প্রচণ্ডভাবে উচ্চাকাঙ্খা তৈরি হয়েছে। ফলে তারা রাজনীতির ছত্রছায়া গ্রহণ বা অপরাধ করে নিজেদের সুযোগ-সুবিধা হাসিলের জন্য। এই অপরাধীদের সঙ্গে রাজনীতি, আদর্শ, দর্শন, মূল্যবোধ, চেতনা ও কমিটমেন্টের কোনো সম্পর্ক নেই। এরাই সময়ে সময়ে ক্ষমতার পালাবদলের সঙ্গে সঙ্গে নিজের হীন স্বার্থে ও ব্যক্তিগত সুবিধার কারণে দল বদলায়। দলের অসৎ ও কুচক্রী রাজনীতিবিদগণ সংখ্যায় নগণ্য হলেও ক্ষমতাবান হয়ে উঠছেন। তারা নিজেদের ব্যক্তিগত বা দলগত স্বার্থে এই তরুণ-যুবকদের কাজে লাগান। এরাই তাদের পৃষ্ঠপোষক হয়ে তরুণ-যুবকদের বিপথগামী করেন। তরুণ-যুবকরাও ক্ষমতার স্বাদ পেয়ে মাদক, ধর্ষণ বা অর্থ উপার্জনে লিপ্ত হয়। ফলে ক্ষমতা ও রাজনীতির আড়ালে একটি অপরাধচক্র প্রতিষ্ঠা পায়। তারা নৃশংস অপকর্ম করতেও পিছপা হয় না। অবিলম্বে এই সমস্ত অপরাধ নির্মূলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান ভাড়াটিয়া, ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ নেতৃবৃন্দ।
কারাগারে পানির সমস্যা দ্রুত সমাধান করুন: ডা: শাহাদাত হোসেন
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও চসিক মেয়র প্রার্থী ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে রাজনীতির মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী অব্যাহত রেখেছে সরকার। মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত বন্দীরা কারাগারে বর্তমানে মানবেতর জীবনযাপন করছে। করোনার কারনে হাইকোর্টের নির্দেশে কারাবন্দীদের কোয়ারেন্টাইনে রাখার বিধান থাকলেও সেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। একটি কামরায় ৬০/৭০ জন বন্দীকে গাদাগাদী করে রাখা হচ্ছে। কারাগারে পানির সমস্যা প্রকট আকার ধারন করেছে। পানির অভাবে বন্দীরা ঠিকমত গোসল করতে পারেনা। খাবার পানির সংকট ও তীব্র গরমে বন্দীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। সকাল থেকে সারাদিন বিদ্যুৎ থাকেনা। তিনি বন্দীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কারাগারের খাবারের মান বৃদ্ধি করে পানি ও বিদ্যুতের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির আহবান জানান। তিনি রবিবার (৪ অক্টোবর) বিকালে প্রবর্তক মোড়স্থ ট্রিটমেন্ট হাসপাতালের সামনে কারামুক্ত বিএনপি নেতাকর্মীরা সাক্ষাত করতে গেলে এসব কথা বলেন। এসময় তিনি বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে বিএনপি নেতকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে ক্ষমতার মসনদকে সুরক্ষিত করার চেষ্টা করছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হাজার হাজার মামলা হয়েছে, অসংখ্য নেতাকর্মী গুম ও খুনের শিকার হয়েছে। কিন্তু মিথ্যা মামলা ও কারাগারকে বিএনপির নেতারা এখন ভয় পায় না। তারা মাটি মানুষের অধিকার আদায় করতে একবার নয় শতবার কারাগারে যেতে প্রস্তুত আছে। এই সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামরুল ইসলাম, সহ শ্রম সম্পাদক আবু মুছা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, কারামুক্ত নেতা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইদ্রিস আলী, বায়েজিদ থানা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ডা.ফরহাদ মোঃ তালহা, পাঁচলাইশ থানা বিএনপি সহ সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক এরশাদ হোসেন ও সৈয়দ মঞ্জুর হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমেদ খোকন, সহ-প্রচার সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েল, সহ-সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বাবু, আমিন শিল্পাঞ্চল ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক হাসান সওদাগর, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রচার সম্পাদক আকবর হোসেন মানিক, মহানগর ছাত্রদল নেতা ফখরুল ইসলাম শাহীন, পাঁচলাইশ থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মনির হোসেন ভূট্টো ও হুমায়ুন কবীর, খাজা স্বপন, মোহাম্মদ নাছির প্রমূখ।
উঠতি কিশোরদের অপরাধে জড়িয়ে পড়া ঠেকাতে হবে
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে কিশোর গ্যাং ও মাদকের তথ্য দিয়ে উঠতি কিশোরদের অপরাধে জড়িয়ে পড়া ঠেকাতে হবে। তবে মিথ্যা তথ্য দিয়ে কাউকে যেন হয়রানি করা না হয়। আজ শনিবার নগরীর ১৪৫ পুলিশ বিটে একযোগে অনুষ্ঠিত সভায় এই আহ্বান জানানো হয়। বিট পুলিশিং কার্যক্রমের মাধ্যমে কোমলমতি শিশু কিশোরদের সঠিক ও আলোর পথে ফিরিয়ে আনতে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সিএমপি। সভায় বিট অফিসারগণ নিজ বিট এলাকার স্থানীয় জনগণের সাথে কিশোর গ্যাং এর কার্যক্রম, স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের তথ্য প্রদান সম্পর্কে মতবিনিময় করেন। এসময় কিশোর গ্যাং এর বাস্তব পরিনতি নিয়ে আলোচনা করেন। নগরজুড়ে অপরাধমূলক কার্যক্রমে দ্রুত কিশোরদের জড়িয়ে যাওয়া ঠেকাতেই চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। সভায় উপস্থিত লোকজন বিট পুলিশিং এর এই উদ্যোগকে স্বাগত জানান। উপস্থিত বক্তব্যে তারা সমাজের নানা ধরনের অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ড নিয়ন্ত্রণে বিট পুলিশিং কার্যক্রম কে আরও গতিশীল করার মতামত প্রদান করেন।
ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করলেন প্রশাসক সুজন
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর কোতোয়ালি থানাধীন সদরঘাট এলাকার মেমন হাসপাতাল ইউনিট ২ চসিক স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান কার্যালয়ে আগত শিশুকে ক্যাপসুল খাইয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেছেন প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন। রবিবার (৪ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০ টার সময় তিনি এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় সুজন বলেন, ভিটামিনের অভাবে রাতকানা রোগ, শিশুদের পুষ্টিহীনতা দেখা দেয়। ভিটামিনের অভাবে কোন শিশু যাতে দৃষ্টি না হারায়, একটি শিশু যাতে পুষ্টি হীনতায় না ভোগে সে লক্ষ্যে সরকার দেশব্যাপী জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বছর জুন মাসে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে আজ। করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর বিলম্বিত হয়েছে এ ক্যাম্পেইন। এবার দুই সপ্তাহ ক্যাম্পেইন চলবে জেলা ও উপজেলাগুলোতে। দু'সপ্তাহের কার্যক্রম শেষে অতিরিক্ত চারদিন দেশের দুর্গম অঞ্চলে এ ক্যাম্পেইন চালানো হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চসিক প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আক্তার চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আলী। আরও উপস্থিত ছিলেন ডা. মো. নাছিম ভূঁইয়া, ডা. সুমন তালুকদার প্রমুুখ। জানা যায়-চট্টগ্রামের ১৩ লাখ ২০ হাজার ৭৮৫ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এ ক্যাম্পেইন চলবে নগরের ৪১টি ওয়ার্ডের মোট ১ হাজার ৩০৮টি স্থায়ী ও অস্থায়ী ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রে। ক্যাম্পেইন শেষ হবে ১৭ অক্টোবর। ক্যাম্পেইনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় নগরের ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৮১ হাজার ৫শ শিশুকে একটি নীল রঙের ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল ও ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৪ লাখ ৫২ হাজার শিশুকে একটি লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত মোট ১ হাজার ২৮৮টি স্থায়ী ও ২০টি অস্থায়ী ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রের মাধ্যামে এ ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।
ফ্লাইওভারে দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরের আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারে পিকআপ ভ্যান ও মোটরসাইকেল সংঘর্ষে মো. রায়হান (২৫) নামে এক যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৩ অক্টোবর) বিকেল ৪টার এই দুর্ঘটনা ঘটে। খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহীনুজ্জামান জানান, লালখান বাজার থেকে মুরাদপুরের দিকে যাওয়ার পথে গরীবউল্লাহ শাহ মাজারের কাছে পিকআপ ভ্যানকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেয় দ্রুত গতির মোটরসাইকেল। এতে পড়ে গিয়ে মোটরসাইকেল আরোহী রায়হান গুরুতর আহত হন। তিনি বলেন, পুলিশ মোটরসাইকেল আরোহী রায়হানকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মো. রায়হান বোয়ালখালী উপজেলার পূর্ব গোমদণ্ডী এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মজিদের ছেলে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া।
মেরিডিয়ান ও বিএসপি ফুডকে ৪৩ লাখ টাকা জরিমানা
০৩,অক্টোবর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর কালুরঘাটের বিসিক শিল্প এলাকায় লাইসেন্সবিহীন ও মেয়াদোর্ত্তীণ উপাদান খাদ্য পণ্য তৈরি করায় দুই প্রতিষ্ঠানকে ৪৩ লাখ টাকা জরিমানা করেছে Rab এর ভ্রাম্যমান আদালত। বিএসটিআই Rab এর যৌথ এ অভিযানে নেতৃত্বে ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু। এসময় মেরিডিয়ান ফুড প্রোডাক্টসকে ২২ লাখ টাকা জরিমানা আদায়সহ উৎপাদিত পাঁচ হাজার কেজি নুডুলস ধ্বংস করা হয়। অপর প্রতিষ্ঠান বিএসপি ফুড প্রোডাক্টসকে একই অভিযোগে ২১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। বিএসটিআইয়ের কর্মকর্তা মো. আশিকুজ্জামান জানান, অভিযানে মেরিডিয়ান ফুড প্রোডাক্টসকে সস পণ্যের ও সফট ড্রিংক পাউডার এবং নুডুলসের লাইসেন্স না থাকায় বিএসটিআই আইনে ১ লাখ টাকা ও মোড়কজাতকরণ আইনে ১ লাখ টাকা এবং বিভিন্ন মেয়াদোত্তীর্ণ কালার ও ক্ষতিকর ফ্লেভার ব্যবহার করায় নিরাপদ খাদ্য আইনে ২০ লাখ টাকা প্রশাসনিক জরিমানা করা হয়। এসময় প্রতিষ্ঠানটির উৎপাদিত ৫ হাজার কেজি নুডুলস ধ্বংস করা হয়। এছাড়া এ অভিযানে বিএসপি ফুড প্রোডাক্টস প্রতিষ্ঠানটিতে ভেজিটেবল ঘি, নুডুলস ও সস বিএসটিআই লাইসেন্সবিহীন ভাবে উৎপাদন করায় ১ লাখ টাকা ও বিভিন্ন পণ্য উৎপাদনে ব্যবহৃত ফ্লেভার মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় নিরাপদ খাদ্য আইনে ২০ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এসময় ডালডার সাথে কালার মিশিয়ে তৈরি ২ কেজি ভেজাল ঘি ধ্বংস করা হয় ।
৩০০ পিছ ফেন্সিডিলসহ হেয়াকো থেকে দুই আসামী আটক,ট্রাক জব্দ,৩ জনের নামে মামলা
০৩,অক্টোবর,শনিবার,ফটিকছড়ি প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দাতঁমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ, পুলিশ পরিদর্শক মোঃ সোহরাওয়ার্দী সরওয়ার,সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স সহ দাঁতমারা ইউপি এলাকায় চলমান মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ৩ অক্টোবর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৩০০(তিনশত) বোতল অবৈধ ফেন্সিডিল এবং পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক (নং ফেনী ট- ১১- ০৪০৪) সহ মোঃ মোসলেম প্রকাশ কুলছুমআলী (২০),পিতা মৃত আবদুর রহমান, মোঃ আবুল কালাম (২৩) ,পিতা মৃত শাহ আলম,উভয় সাং-বাংলা পাড়া,পোঃ হেয়াকো বাজার, থানাঃ ভূজপুর, জেলাঃ চট্টগ্রামদ্বয়কে গ্রেফতার করেন। উদ্বারকৃৃত ফেন্সিডিলের আনুমানিক মূল্য ৪,৫০,০০০(চারলক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা। আসামিদের বিরুদ্ধে ভূজপুর থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের শেষে হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে। এ মামলায় মোট ৩ জনকে আসামী করা হয়েছে। জব্দকৃত ট্রাকটি দিয়ে নিয়মিত মাদক পরিবহন করা হয় বলে এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে। গাড়ীর মালিক হেয়াকো বাংলাপাড়া এলাকার জহিরুল ইসলাম নয়ন।
আওলাদে আলী রজা পীর নুরুল আলম শাহ (রহ.) বার্ষিক ইছালে সওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত
০৩,অক্টোবর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওলাদে আলী রজা পীর নুরুল আলম শাহ (রহ.) বার্ষিক ইছালে সওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২রা অক্টোবর শুক্রবার আনোয়ারা ওষখাইন গ্রামের রজায়ী দরবারের বিশ্ব নুর মঞ্জিলে দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে ছিল খতমে কোরান, খতমে খাজেগান, খতমে ইসমে আযম, বাদ এশা হালকা জিকির, আখেরী মোনাজাত ও তবারুক বিতরণ। বার্ষিক ইছালে সওয়াব মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন দরবারে সাজ্জাদানশীন পীর মাওলানা একরামুল হক শাহ (ম.জি.আ)। মাহফিলে তশরিফ আনেন পীরজাদা আলহাজ্ব কাজী মাওলানা মোহাম্মদ এরশাদুল্লাহ রজায়ী (ম.জি.আ) পীরজাদা আলহাজ্ব মোহাম্মদ খোরশেদ উল্লাহ রজায়ী (ম.জি.আ), চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য ও আস্তানায়ে জহির ভান্ডারে সাজ্জাদানশীন পীরজাদা মুহাম্মদ মহরম হোসাইন মাইজভান্ডারি, নঈম উদ্দিন রজায়ী, মাকসুদুর রহমান, চকবাজার থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, মোঃ রাসেল,মোস্তাক আহমেদ প্রমুখ।
মদ্যপানকে না বলুন: ইপসা
০৩,অক্টোবর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মদ্যপানের কোনো নিরাপদ মাত্রা নেই। মদ্যপানের ফলে মানবদেহে ২০০ ধরনের রোগের সৃষ্টি হতে পারে, যার মধ্যে ক্যানসার অন্যতম। গবেষণা হতে প্রাপ্ত তথ্য মতে, নিয়মিত মদ্যপানের কারণে সারাবিশে^ প্রতিবছর ৩০ লাখ মানুষ মৃত্যুবরণ করে। এছাড়া বিশে^র ৭ দশমিক ২ শতাংশ অকালমৃত্যুর কারণ মদ্যপান। মদ্যপান শুধুমাত্র স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিই তৈরি করে না, মদ্যপান ফলে দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষতিও হয়ে থাকে। বাংলাদেশে এখনো পর্যন্ত মদ্যপানের বিষয়ক কোন বিস্তারিত জরিপ না থাকলেও বৈশি^ক গবেষণা হতে প্রাপ্ত তথ্য মতে, ১৯৭৩ সাল থেকে ২০২০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে লাইসেন্সধারী মদ্যপানকারীর সংখ্যা শতগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। ধূমপানের মতো মদ্যপানও তরুন সমাজকে আরো মারাত্মক নেশার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাই, মদ্যপান থেকে সাধারণ মানুষকে দূরে রাখতে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। আজ শনিবার (৩ অক্টোবর, ২০২০) বেলা সাড়ে তিনটায় বিশ্ব অ্যালকোহলমুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের জন্য সংগঠন ইপসার প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা। ইপসার উপ পরিচালক নাছিম বানুর সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ইপসার প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমান। তিনি বলেন, ১৯৮৫ সালে ইপসার জন্মলগ্ন থেকেই আমরা মাদক, মদ্যপান ও ধূমপানের বিরুদ্ধে কাজ করে আসছি। গত ১০ বছর ধরে, ইপসা চট্টগ্রামে তামাকবিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। কোভিড-১৯ এর মহামারীর এই সময়ে মদ্যপানের ক্ষতির বিষয়টি সারাবিশে^ ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে। বিভিন্ন বৈশি^ক গবেষণা বলছে, কোভিড-১৯ এ সারাবিশে^ আত্মহত্যার অন্যতম কারণ ছিল মদ্যপানের আসক্তি। দেশে দিনদিন মদ্যপানের প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা এসডিজি অর্জনের পথে অন্যতম বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই, সকলকে ধূমপান ও তামাকের পাশাপাশি মদ্যপানের বিষয়েও সতর্ক হতে হবে। সুইডেন ভিত্তিক সংস্থা মুভিং দ্যা ইন্টারন্যাশনাল নেটওয়ার্কের সদস্য হিসেবে মদ্যপান হ্রাসে সচেতনতা ও ভবিষ্যত পরিকল্পনার জন্য আয়োজিত এ সভায় অন্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ইপসার পরিচালক (অর্থ) পলাশ চৌধুরী, পরিচালক (অর্থনৈতিক উন্নয়ন) মনজুর মোর্শেদ চৌধুরী, প্রোগ্রাম অফিসার মো. ওমর শাহেদ হিরো, প্রোগ্রাম অফিসার সবুর, মোর্শেদ। এছাড়া সভায় ইপসার বিভিন্ন সেক্টরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, মদ্যপানের স্বাস্থ্যগত, সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতির কথা বিবেচনা করে সর্বপ্রথম ২০০৮ সালে ওয়ার্ল্ড হেলথ এসেম্বলিতে বিশ^ অ্যালকোহল মুক্ত দিবস পালনের প্রস্তাব পেশ করা হয়। আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি না পেলেও ২০১৬ সাল থেকে বিশে^র বিভিন্ন দেশ ৩ অক্টোবরকে বিশ^ অ্যালকোহল মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর