মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
করোনায় আক্রান্ত হলেন জেলা প্রশাসনের আরেক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট
২৫মে,সোমবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা মহামারীর বিস্তার ঠেকাতে সরকার দেশব্যাপি তিন দফায় সাধারণ ছুটি ঘোষনা করেছে। বন্ধ রেখেছে গনপরিবহন। সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর গত ২৬ মার্চ থেকে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ও সরকারী নির্দেশনা মেনে চলার জন্য সচেতনতা কার্যক্রমের পাশাপাশি বাজার মনিটরিং এ একটানা মাঠে কাজ করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। করোনা পরিস্থিতিতে বাজার অনেকটাই অস্থিতিশীল হয়ে পরে ছিল। রমযান মাসে বাজার নিয়ন্ত্রণ অনেকটাই চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। জেলা প্রশাসনের একটানা সাঁড়াশি অভিযানে সেই বাজারও নিয়ন্ত্রনে আসে। এছাড়া সমাজের দুস্থ, অসহায় ও মধ্যবিত্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরন কার্যক্রমও অব্যাহত রেখেছে ।এইভাবে নিরবিছিন্ন একটানা অভিযান চালাতে গিয়ে শারিরিক ভাবে অসুস্থ হয়েছেন কয়েকজন ম্যাজিস্ট্রেট এবং করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই জন। তবুও থেমে নেই ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম। গতকাল রোববার ২৪ মে ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডি ল্যাবের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান এর করোনা রিপোর্ট এ পজিটিভ আসে। এছাড়া গত (১৬ মে) নাজমুন নাহার নামের আরেক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তিনিও বর্তমানে বাসায় আইসোলোশনে রয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও স্টাফ অফিসার টু ডিসি মো. মাসুদুর রহমান করোনা পরিস্থিতিতে ত্রাণ বিতরণ ও সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ও সরকারী নির্দেশনা মেনে চলার জন্য সচেতনতা কার্যক্রমসহ জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কাজে অংশ নিয়েছিলেন। গত কয়েকদিন ধরে তিনি জ্বর, কাশি ও মাথাব্যথায় ভুগছিলেন। পরে জ্বর না কমায় তিনি বিআইটিআইডি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করান। কিন্তু নমুনা প্রতিবেদনে তার শরীরে করোনা পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি সিভিল সার্জনের পরামর্শে বাসায় আইসোলোশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদূর রহমান বলেন, বিআইটিআইডি'র ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা্য় করোনা পজিটিভ আসার পর থেকে সিভিল সার্জনের পরামর্শে বাসায় আইসোলোশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছি। আমি আমার পাঁচ বছরের সন্তান ও স্ত্রীর কাছ থেকে আলাদা রুমে রয়েছি। কষ্ট হলেও পরিবারের অন্যদের সংক্রমণ থেকে ঠেকাতে আলাদা থাকতে হবে এর কোন বিকল্প নেই। দ্রুত করোনা মুক্তির পাশাপাশি আমি যেন দ্রুত কাজে ফিরতে পারি সেই জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।
ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন আহম্মেদ মঞ্জু
২৪ মে,রবিবার,রাজিব দাশ, চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদ মনে খুশি, ঈদ মানে আনন্দ, পৃথীবিতে মনে হয় এবারই প্রথম সেই খুশি ও আনন্দে কিছুটা ভাটা পড়ছে, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে আনেকটা বিবর্ণ ও মলিন হয়েছে এবারের ঈদে। এক কথাই আনন্দ ছাড়াই উদযাপিত হচ্ছে এবারের ঈদুল ফিতর। সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের মহামারী পাল্টে দিয়েছে সবকিছু। এবারের ঈদই হচ্ছে কোলাকুলি বিহীন ও মাস্কযুক্ত প্রথম ঈদ। দেশের এই মহামারীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের কল্যানে সকল প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের পাশাপাশি করোনা রোগীর চিকিৎসার বিষয়ে অগ্রণী ভূমিকা রেকেছেন। তিনি ঈদের উপহার স্বরুপ সারাদেশে কর্মহিন ৫০ লক্ষ মানুষকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ২৫০০ টাকা করে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার আমি আমার উক্ত ওয়ার্ডে সঠিক ভাবে বিলি বন্টন করেছি। এবং অত্র ওয়ার্ডের বসবাস কারীদের সর্ব্বক্ষনিক খোজ খবর নিয়েছি। ইতিমধ্যে অত্র ওয়ার্ডকে মেগা ওয়ার্ডে পরিণত করেছি। এখনো আমি আপনাদের সেবায় জাগ্রত রয়েছি। আপনারা ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, সরকারী দিক নির্দ্দেশনা মেনে চলুন। সারাদেশে করোনা ভাইরাসে এই পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করা সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আমার নির্বাচনী ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে ও সর্ব্বস্থরের জনগনকে, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সকল নেতাকর্মিকে এবং চট্টগ্রামবাসিকে জানাই পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ঈদ মোবারক।
পচা মাংস বিক্রি ও সরকারি নির্দেশনা না মানায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা
২৪ মে,রবিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম ,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুণ্ড উপজেলা ও এর আশপাশ এলাকার বাজারগুলোতে কেউ মানছে না শারীরিক দূরত্ব । মানা হচ্ছে না সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি। দোকান গুলোতে ছিলনা মূল্য তালিকা। আবার দেখা গেছে মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয় করছে। এমন পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন সীতাকুণ্ড পৌরসভা, কলেজগেট, বাড়বকুণ্ডের শুকলালহাট বাজার, কুমিরা ইউনিয়নের বড় কুমিরা বাজার ও ছোট কুমিরা বাজার এলাকায় করোনা ভাইরাসজনিত প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধের লক্ষ্যে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং এর লক্ষ্যে একটানা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে। আজকের অভিযানে ১১ টি মামলায় ২১,১০০ (একুশ হাজার একশত) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। আজ রবিবার ২৪ মে সকাল ১১ টা থেকে বিকাল দুপুর আড়াই টা পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহযোগিতায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী জানান, গত কয়েকদিন যাবত একটানা অভিযান চালানো হচ্ছে এই এলাকাগুলোতে। মুলত এইএলাকা গুলোতে কেউ মানছিলনা সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি । তাছাড়া এসব এলাকার দোকানগুলোতে মূল্য তালিকা না থাকা, মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয় রোধ করাসহ বাজার মনিটরিং এর উদ্দেশ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। তিনি বলেন, বাজার মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শুকলালহাট বাজারের এক মাংস বিক্রেতাকে পচা মাংস বিক্রয়ের অপরাধে দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে বড় কুমিরা বাজারের ঝন্টু স্টোরকে দুই হাজার) টাকা ও রাসেল স্টোরকে এক হাজার পাঁচশত টাকা এবং ছোট কুমিরা বাজারের খাজা ট্রেডার্স কে দুই হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় সীতাকুণ্ড পৌর বাজারের বেবি ফ্যাশনকে এক হাজার পাঁচশত টাকা, আতিক কসমেটিকসকে এক হাজার টাকা, গিফট গ্যালারিকে এক হাজার টাকা, রাজ টেলিকম এন্ড গিফট কর্নারকে পাঁচশত টাকা ও কুটুম্ববাড়ি সেলুনকে এক হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া ছোট কুমিরা বাজারের একটি সেলুনকে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় পাঁচশত টাকা ও সীতাকুণ্ড পৌর বাজারে শারীরিক দূরত্ব না মানায় একজনকে একশত টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। করোনা পরিস্থিতিতে জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।
ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওসি মঈনুর রহমান
২৪ মে,রবিবার,সৈয়দুল ইসলাম,চট্টগ্রাম ,নিউজ একাত্তর ডট কম: একমাস সিয়াম সাধনার পর মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে পাহাড়তলী থানা এলাকাবাসী সহ সকলকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)ও পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মঈনুর রহমান। করোনা মহামারিতে তিনি উক্ত থানা এলাকায় বেশ কিছু অসহায়, দিনমজুর, নিন্মবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রধান, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের হাসপাতালে প্রেরন, আক্রন্ত ব্যক্তির বাড়ী লকডাউন করে সার্ব্বক্ষণিক খোজ খবর নেওয়া রমজানে ট্রাফিক পুলিশদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরনের পাশাপশি উক্ত থানা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উল্লেখ যোগ্য ভূমিকা পালন করেন । তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের নির্দেশমতে এবং মাননীয় পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের দিক নির্দেশনায় উক্ত থানা এলাকায় করোনা মহামরিতে যা যা করণীয় আমি করেছি, তাবে করোনার মহামারিতে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করলেও থানা এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রেখেছি। বর্তমানে এই করোনা ভাইরাস থেকে নিজেকে এবং পরিবারের সকলকে নিরাপদে রাখতে আমাদের আরো সচেতন হতে হবে। সরকারের দেওয়া দিক নির্দেশনা যথাযথ ভাবে পালন করতে হবে। আমি ইতি মধ্যে আমাদের সহকর্মী পুলিশ বাহিনীর সদস্য, ডাক্তার, সাংবাদিক সহ করোনা ভাইরাসে মৃত্যুবরণ করা সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। সেই সাথে আমার পাহাড়তলী থানা এলাকার সকলকেও করোনা যুদ্ধের লড়াইয়ের সকল সৈনিকদেরকে জানাচ্ছি পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক, এবারের ঈদ আমাদের জন্য ভিন্ন আঈীকে। সবাই ঘরে থাকুন, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখুন, সরকারের নিয়মাবলী মেনে চলুন, নিরাপদে ও সুস্থ থাকুন।
ইমার্জেন্সি রোগীর ভুয়া স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী পরিবহনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা
২৩মে,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম নগরীতে ইমার্জেন্সি রোগী স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী পরিবহন করছে মাইক্রোবাস সমুহ। গন পরিবহন বন্ধ এই সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে এই সকল সুযোগ সন্ধানীরা। আইনশিংখলা বাহিনী ও প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রতিনিয়ত এই ভাবে যাত্রী পরিবহণ করছে। এছাড়া মোটরবাইকে করেও প্রতিনিয়ত যাত্রী পরিবহন করছে। শাহ আমানত সেতুর এপাশ থেকে মইজ্জারটেক পর্যন্ত জনপ্রতি ৫০ টাকা হারে ভাড়া আদায় করছে। সেই সাথে কিছু মাইক্রোবাস ইমার্জেন্সি রোগীর স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী পরিবহন করছে। এমন অভিযোগে শাহ আমানত এলাকায় মাইক্রোবাস আটক করে চালককে জরিমানা করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ শনিবার ২৩ মে সকালে শাহ আমানত সেতু এলাকায় সিএমপির পুলিশ সদস্যদের সহায়তায় অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলাম। অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলাম জানান, এখানে এসে ইমারজেন্সি রোগী- স্টিকার লাগানো একটি মাইক্রোবাস দেখে সন্দেহ হয়। পরে মাইক্রোবাসটি তল্লাশী করে দেখা যায়, সবাই যাত্রী, কোন রোগী নেই। শাহ আমানত সেতুর শুরুতে ট্রাফিক পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে মাইক্রোবাসটি শাহ আমানত ব্রীজের মাঝপথে আসলে চালক এবং যাত্রীদের প্রতারণার বিষয়টি আমাদের চোখে ধরা পড়ে। তিনি আরও জানান, এছাড়া দেখা যায় কিছু লোক মোটরবাইকে করে চট্টগ্রাম থেকে বান্দরবান এবং কক্সবাজার যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। পরে ১৫ টি মোটরবাইকের চাবি জব্দ করে যাত্রীদেরকে নিজ নিজ বাসায় ফেরত পাঠানো হয়েছে।
পথশিশুদের মাঝে ইকো র নতুন জামা কাপড় বিতরণ
২৩মে,শনিবার,মুহাম্মদ মহরম হোসাইন,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে আজ ২৩ মে ২০২০ ইং শনিবার চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি, ওয়াসা, ইস্পাহানি মোড়, কাজির দেউরী, জুবলী রোড ও আশপাশের এলাকায় ৩০০ জন সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের মাঝে নতুন জামা কাপড় বিতরণ করেছে বেসরকারি সামাজিক ও মানবিক উন্নয়ন সংস্থা-ইফেক্টিভ ক্রিয়েশন অন হিউম্যান অপিনিয়ন (ইকো)। এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইকোর সভাপতি মোহাম্মদ সরওয়ার আলম চৌধুরী মনি, সম্পাদক ড. ওমর ফারুক রাসেল, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য এস এম আবু ইউসুফ সোহেল, চবির শিক্ষক কাজেমুর নূর সোহাদ প্রমূখ। পথ শিশুদের মাঝে ঈদেও নতুন জামা-কাপড় বিতরণকালে ইকোর সম্পাদক ড. মোহাম্মদ ওমর ফারুক রাসেল বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের এসময় পথশিশুরা এমনি অনেক মানবেতর জীবন যাপন করছে। এর পরও ঈদের আনন্দ শুধু নিজের জন্য নয় বরং সবার মাঝে ভাগাভাগি করে নেয়ার মধ্য দিয়েই পূর্ণতা আসে। পথ-শিশুরা আমাদের সমাজের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে পথ-শিশুরা বিভিন্ন ধরনের অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার। সরকার ও সমাজের বিত্তবানদের সুদৃষ্টির অভাবে এরা বরাবরই আনন্দ খুশি থেকে বঞ্চিত থাকে। সমাজের উচ্চবিত্তদের সামান্য সহযোগিতায় সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুরা আনন্দ উৎসবের অংশীদার হতে পারে। দেশে প্রতিটি উৎসবে-পার্বণে সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের করুণ চাহনি দেখতে হয়। এ দৃশ্য বড় বেদনাদায়ক ও অমানবিক। আমাদের সকলের উচিৎ এই বেদনাদায়ক দৃশ্যকে আনন্দময় দৃশ্যে পরিণত করা। প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই ইকো সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে এবং ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত রাখবে।
ফরিদ মাহমুদের ঈদের শুভেচ্ছা, এবারের অন্যরকম ঈদ মানবতার সর্বোচ্চ পরীক্ষা
২৩মে,শনিবার,মুহাম্মদ মহরম হোসাইন,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশিষ্ট সমাজসেবক ও রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব ফরিদ মাহমুদ নগরবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেছেন, আমাদের প্রজন্মের ইতিহাসে এবার এক অন্যরকম ঈদ এসেছে সবার জীবনে। বিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে এবার সংক্রমণ থেকে নিজেকে সুরক্ষা করতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, মেনে চলতে হবে সঠিক স্বাস্থ্যবিধি। নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে এবার ঈদের অন্যান্য বছরের মতো আনুষ্ঠানিকতা যেমন নতুন কাপড় পরে, ঈদ জামাতে কোলাকুলি কিংবা কদমবুচির মতো বিষয় থেকে আমাদের এবার দূরে থাকতে হবে। মনে রাখতে হবে, সংক্রমণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারাটাই ঈদ আনন্দ এবং দেশ ও মানুষের প্রতি বড় দায়িত্ব। একই কারণে এবারের ঈদই হচ্ছে আমাদের জীবনের জন্য মানবতা দেখানো ও সচেতন থাকার সর্বোচ্চ পরীক্ষা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর থেকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন জাতিকে সংক্রমণ থেকে রক্ষায় এবং সব মানুষের আহার-নিদ্রা নিশ্চিত করার জন্য। ঈদের সময় আমরা নিজেকে সুরক্ষিত রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টাকে সফল করব এবং তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাবো। দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আমরা মানবতার যে শিক্ষা পেয়েছি তাতে প্রতিটি মানুষ আরও পরিশুদ্ধ হয়েছেন, আরও মানবিক হয়ে উঠেছেন, ভবিষ্যতে এটাই আমাদের সুন্দরের পথ দেখাবে। করোনা পরিস্থিতির এই দুঃসময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দৃঢ়ভাবে নেতৃত্ব দিয়েই চলেছেন, তার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। তার নেতৃত্বে সমাজের অগ্রভাগে থেকে সারাদেশের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, সিভিল প্রশাসন, সাংবাদিকরা নিজেদের দায়িত্ব পালনে যেভাবে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাতে গর্বে বুক ভরে ওঠে। সংকটে পড়া মানুষকে সাহায্য করতে বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তিগতভাবে যারা পাশে দাঁড়িয়েছেন তার মনবতার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এরই মধ্যে যারা স্বজন হারিয়েছেন তাদের প্রতি সমবেদনা এবং যারা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন তাদের জন্য শুভ কামনা জানাচ্ছি। মহান আল্লাহ কাছে প্রার্থনা, পৃথিবীর এই অসুখ দ্রুত সেরে যাক, আঁধার কেটে নতুন দিন ফিরে আসুক। ঈদ মোবারক।
মূল্য তালিকা না থাকা ও অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রির দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা
২৩মে,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলার পৌরসভা, কলেজগেট, বাড়বকুণ্ড বাজার, কুমিরা ইউনিয়নের বড় কুমিরা বাজার ও রয়েল গেট পরীর রাস্তা এলাকায় করোনা ভাইরাসজনিত প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধের লক্ষ্যে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে আইনগত নির্দেশনা প্রদানের উদ্দেশ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এসময় ১০টি মামলায় ৩৮০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। আজ শনিবার ২৩ মে সকাল ১১ টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও সিএমপির সহায়তায় জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর নেতৃত্বে সীতাকুণ্ড উপজেলার পৌরসভা, কলেজগেট, বাড়বকুণ্ড বাজার, কুমিরা ইউনিয়নের বড় কুমিরা বাজার ও রয়েল গেট পরীর রাস্তা এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযানে বাজার মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে মূল্য তালিকা না থাকা, মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয় করাসহ বিভিন্ন অপরাধে সীতাকুণ্ড পৌর বাজারের একটি মুদি দোকানকে ৫০০০ টাকা এবং বড় কুমিরা বাজারের ইদ্রিছ স্টোরকে ৮০০০ টাকা ও রয়েল গেট পরীর রাস্তার একটি মুদি দোকানকে ২৫০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় সীতাকুণ্ড পৌর বাজারের বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোরকে ১০,০০০ টাকা, বড় কুমিরা বাজারের আনসারী সুজকে ৫০০০ টাকা, কুমিরা ডিপার্টমেন্ট স্টোরকে ২৫০০ টাকা, রাজু সু স্টোরকে ২,০০০ টাকা ও আলিফ টেইলার্সকে ২,৫০০ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। সীতাকুণ্ড পৌর বাজার ও বড় কুমিরা বাজারে শারীরিক দূরত্ব না মানায় দুইটি ভিন্ন মামলায় ৫ জনকে মোট ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। করোনা পরিস্থিতিতে জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।
হাটহাজারীতে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী ও পলাতক আসামিকে আটক করেছে Rab
২৩মে,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানাধীন ফতেয়াবাদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১ টি ওয়ানশুটারগান, ৫ রাউন্ড খালি খোসা, ১৪ টি রামদা, ১ টি চাইনিজ কুড়ালসহ বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার এবং ২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে Rab-7। আজ ২৩ মে ভোর ৫ঃ২৫ মিনিটের সময় হাটহাজারী থানাধীন ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী, ফতেয়াবাদ সন্দ্বীপ কলোনী এলাকায় অভিয়ান চালিয়ে ২জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন। আটককৃত আসামীরা হলেন মোঃ আবু বক্কর (২২), পিতা- মোঃ হুসাইন, গ্রাম- হামজারবাগ, হিলভিউ, রোড নং- ০২, ব্লক-এ, জান্নাতমঞ্জিল, পোঃ- আমিন জুট মিলস, থানা- পাঁচলাইশ, জেলা- চট্টগ্রাম মহানগর এবং মোঃ সাঈদ (২৮), পিতা- মোঃ বিল্লাল, গ্রাম- সন্দ্বীপ কলোনী, দক্ষিণ পাহাড়তলী, ১নং ওয়ার্ড, ফতেয়াবাদ, থানা- হাটহাজারী, জেলা- চট্টগ্রাম। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক(অপারেশন) মেজর মাশকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি যে, চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানাধীন ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী, ফতেয়াবাদ সন্দ্বীপ কলোনী এলাকার একটি বাড়িতে কতিপয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও পলাতক আসামি অবস্থান করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে Rab-7 এর একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে দুই জনকে আটক করে। পরে আটককৃত আসামীদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের দেখানো ও সনাক্ত মতে সন্দ্বীপ কলোনীর একটি বসত বাড়ীর পশ্চিম পার্শ্বে লাকড়ির স্তুপের মধ্য হতে দুটি প্লাষ্টিকের বস্তায় লুকানো অবস্থায় ১ টি ওয়ানশুটারগান, ৫ রাউন্ড খালি খোসা, ১৪ টি রামদা, ১৩ টি ছোরা, ৩ টি চাপাতি এবং ১ টি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপের সাথে জড়িত রয়েছে।আটককৃত আসামীদের হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ