মহেশপুর সীমান্ত থেকে ভারতীয় নাগরিকসহ আটক ৪৩
০৭,অক্টোবর,বুধবার,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশের চেষ্টাকালে পাঁচ ভারতীয় নাগরিকসহ ৪৩ জনকে আটক করেছে বিজিবি। গত সোমবার রাতে উপজেলার বাঘাডাঙ্গা, মাটিলা, লড়াইঘাট ও শ্যামকুড় সীমান্ত থেকে তাদের আটক করা হয়। বিজিবি-৫৮ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল কামরুল আহসান জানান, অনুপ্রবেশের সংবাদ পেয়ে রাতে সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় বিজিবি। এ সময় বাঘাডাঙ্গা বিওপির আওতাধীন এলাকা কাঞ্চনপুর থেকে নারী ও শিশুসহ ১৬ জন, মাটিলা এলাকা থেকে তিন নারী ও শ্যামকুড় এলাকা থেকে পাঁচজনকে আটক করা হয়। এছাড়া অবৈধভাবে বাংলাদেশ হতে ভারতে যাওয়ার সময় পাঁচ ভারতীয় নাগরিকসহ ১৫ জন, মাটিলা থেকে তিনজন ও লড়াইঘাট এলাকা থেকে একজনকে আটক করা হয়। আটককৃত বাংলাদেশীদের বাড়ি ঝিনাইদহ, খুলনা, মাগুরা, বাগেরহাট, মানিকগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। আর ভারতীয় পাঁচ নাগরিকের বাড়ি ভারতের বেঙ্গালুর ও নিগড়ী জেলায়। বিকালে মহেশপুর থানায় সোপর্দ করা হলে তাদের আদালতে পাঠানো হয়।
গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: জেলায় জেলায় প্রতিবাদ, মানববন্ধন
০৬,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের একটি বাড়িতে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্ত কর্তৃক বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সারা দেশে। নোয়াখালীসহ বিভিন্ন জেলায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদসভা হয়েছে। নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় স্বামীকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে নিজ ঘরে সংঘবদ্ধভাবে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং দেশব্যাপী ধর্ষণ ও নারীর প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে নোয়াখালী নারী অধিকার জোট ও ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ নোয়াখালী ইউনিট (এফপিএবি)। সোমবার (৫ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা শহর মাইজদীর মুজিব চত্বরে নোয়াখালী নারী অধিকার জোট ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই প্রতিবাদ ও মাবনবন্ধন হয়। একই প্রতিবাদে এফপিএবি নোয়াখালী শাখা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। এছাড়া আরডিএন (রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী), সুবর্ণচর ছাত্র ও যুব সমাজ এবং বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন একই দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। নোয়াখালীতে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাাতনসহ সারাদেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রামের সচেতন নাগরিকরা। তাদের দাবি, দেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনার বিচার না হওয়ায় বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে। এ কারণে একের পর এক বর্বরোচিত ঘটনা ঘটে চলেছে। সোমবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর চেরাগী পাহাড় মোড় এলাকায় আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তারা এই দাবি জানান। সর্বস্তরের সচেতন নাগরিকবৃন্দর ব্যানারে এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সাংবাদিক প্রীতম দাশের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কবি ও সাংবাদিক কামরুল হাসান বাদল, গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়ক শরীফ চৌহান, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিতারা শামীম, সাংবাদিক আহমেদ মুনীর, সৌমেন ধর, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে প্রচার সম্পাদক মিন্টু চৌধুরী, আবৃত্তি শিল্পী প্রণব চৌধুরী, নারী শ্রমিক নেত্রী বাপ্পী দেব বর্মণ, সাবেক ছাত্রনেতা নাজিম উদ্দিন, সাংবাদিক মহররম হোসাইন, লতিফা আনসারী রুনা, হিউম্যানিটি ফার্স্ট মুভমেন্টের মিলন রায় প্রমুখ। বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাাতনসহ সারাদেশে অব্যাহত ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে ফেনীতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে বিভিন্ন সংঘটন। সোমবার বিকালে ফেনী শহরের ট্রাংক রোড় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে প্রতিবাদ সমাবেশসহ শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ছাত্র-যুব ঐক্য, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্র ও চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রসহ বিভিন্ন সংগঠন। বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) বক্তারা বলেন, দ্রুত এসব ধর্ষণের ঘটনার বিচার করা না গেলে বাংলাদেশ ধর্ষণের অভয়ারণ্যে পরিণত হবে। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, নয়ন পাশা, আহবায়ক, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, ফেনী শহর শাখার আহবায়ক নয়ন পাশা, সাধারণ সম্পবদক পংকজনাথ সূর্য। ইসলামী আন্দোলনের ফেনী জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা একরামু্র হক বলেন, সারা দেশে ধর্ষকরা বেপোরোয়া হয়ে গেছে। অধিকাংশ ধর্ষণের ঘটনায় সরকার দলের লোকজন জড়িত। বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে বর্বর নির্যাতন, ধর্ষণ চেষ্টা ও শ্লীলতাহানি ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে কুমিল্লার কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা সিলেটের এমসি কলেজে স্বামীকে বেঁধে স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণসহ ঘটে যাওয়া প্রত্যেকটি ধর্ষণের বিচার দাবি করেন। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় কুমিল্লা নগরীর কান্দিপাড় টাউনহল গেটে ছোট ছোট ফেস্টুন ও প্লে-কার্ড নিয়ে দেশে মহামারিতে রূপ নেওয়া ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ ছাত্র ঐক্য সংগ্রাম পরিষদের কুমিল্লা শাখা। এ সময় বক্তব্য রাখেন, পরিষদের সহ-সভাপতি এম এ হামজা, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আকাশ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শরীফ খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম, সাইফ হোসেন, সোলতান আহম্মেদ, কুমিল্লা মহিলা কলেজের ছাত্রী সামিয়া হক, মারুফা মজুমদার এবং ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্র নাহিদুল ইসলাম। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়ও মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সচেতন যুবকবৃন্দর ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন বয়সী যুবকসহ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধনে মাওলানা ইউসুফ ভূইয়া বলেন, আমরা সুনিদিষ্টভাবে প্রস্তাব রাখতে চাই আগামী এক বছরের জন্য বাংলাদেশে যত ধর্ষণ হবে আসামিদের ক্রসফায়ার অথবা ফাঁসির রায় দিতে হবে। বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে বর্বর নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত বিচার সম্পন্ন করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত এবং দেশে অব্যাহত ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম বগুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে শহরের সাতমাথায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়। ফোরামের জেলা আহ্বায়ক দিলরুবা নূরীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বাসদ বগুড়া জেলা আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম পল্টু, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম বগুড়া জেলা সদস্য রাধা রানী বর্মন, তাহমিনা আক্তার অ্যানি, নিয়তি সরকার নিতু, মুক্তা আক্তার মীম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।- ভয়েস বাংলা
গৃহবধূকে বিবস্ত্রের ঘটনায় এবার ইউপি সদস্যসহ গ্রেফতার ২
০৬,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নোয়াখালী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের পূর্ব একলাশপুরে স্বামীকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও ধর্ষণ চেষ্টার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় এবার স্থানীয় ইউপি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন ওরফে সোহাগ (৪২)-কে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ভোর রাতে এখলাশপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে তিনি এজাহারভুক্ত আসামি নন। একইসঙ্গে সোমবার দিবাগত রাতে ঢাকা থেকে মামলার ৪নং আসামি সাজুকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। এ নিয়ে নৃশংস এ ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেফতার করা হলো। জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খীসা গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে একইদিন সকালে মামলার প্রধান আসামি বাদল (২২)-কে ঢাকা থেকে ও কিশোর গ্যাং লিডার ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারকে নারায়ণগঞ্জ থেকে আটক করে Rab। আটকদের মধ্যে বাদল একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মোহর আলী মুন্সিবাড়ির রহমত উল্যার ছেলে, দেলোয়ার একই গ্রামের সাইদুল হকের ছেলে। এছাড়া মো. রহীম (২০) একলাশপুর ইউনিয়নের পূর্ব একলাশপুর গ্রামের হারিদন বাড়ির শেখ আহম্মদ দুলালের ছেলে ও মো. রহমত উল্যাহকে আবদুর (৪১) গ্রেফতার করা হয়। এদিকে নির্যাতিত নারী বাদী হয়ে সোমবার রাতে ৭-৮ জন অজ্ঞাতনামাসহ ৯ জনকে আসামি করে পর্নোগ্রাফি আইনে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করেছেন। এর আগে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একই থানায় ওই ব্যক্তিদের আসামি করে আরেকটি মামলা করা হয়। প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বেগমগঞ্জ উপজেলার এখলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় ওই গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে তার স্বামীকে পাশের কক্ষে বেঁধে রাখেন স্থানীয় বাদল ও তার সহযোগীরা। এ সময় ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে তার ভিডিও চিত্র ধারণ করে বিভিন্ন অংকের টাকা দাবি ও শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য কুপ্রস্তাব দেয়। চাহিদা অনুযায়ী টাকা না পেয়ে গত রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলের দিকে ঘটনার ৩২দিন পর গৃহবধূকে নির্যাতনের ঐ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ পেলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। এতে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। ঘটনার পর থেকে দীর্ঘ একমাস অভিযুক্ত স্থানীয় বখাটেরা গৃহবধূর পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুরো ঘটনা থেকে যায় স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে। স্থানীয়রা বলছে, গত মাসের (২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী নির্যাতিত গৃহবধূ এতোদিন বখাটেদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, ফেইসবুকে ভিডিওটি দেখার পরই আমরা ভিক্টিমকে তার আত্মীয়ের বাসা থেকে উদ্ধার করি। তার দেয়া তথ্যানুযায়ী অপরাধীদের গ্রেফতার করা হয়। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে নোবিপ্রবিতে মানববন্ধন
০৫,অক্টোবর,সোমবার,মল্লিক উদ্দিন,নোয়াখালী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মানুষরূপী হায়েনাদের মধ্যযুগীয় বর্বরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোসহ দেশব্যাপী ধর্ষণ ও নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতার প্রতিবাদে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) মানববন্ধন হয়েছে। সোমবার (৫ অক্টোবর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নারীর প্রতি প্রতিহিংসা বন্ধ করুন' নামে নোবিপ্রবি থিয়েটারের পক্ষ থেকে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। ঘণ্টাব্যাপী এ মানবন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও এসিসিই বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর বলেন,দেশের বিভিন্ন স্থানে নারী নির্যাতন ও গণধর্ষণ বেড়েই চলেছে। পথেঘাটে নারীরা সামাজিকভাবে নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ছে। দিনদিন নরপশুরা হিংস্র হয়ে উঠেছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে নারী নির্যাতন ও গণধর্ষণকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। নোবিপ্রবি থিয়েটারের উপদেষ্টা ও মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. ফিরোজ আহমেদ বলেন 'বাংলাদেশে নারী ক্ষমতায়ন ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে কিন্তু তারপর ও কিছু অমানুষ নারীকে দুর্বল মনে করছে। বেগমগঞ্জসহ সারা বাংলাদেশে সকল ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানাচ্ছি। আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়ে যেনো এসব পশুরা বের হয়ে না যেতে পারে। নারীকে সম্মান দিতে হবে এবং এধরনের পাশবিকতার সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। নোবিপ্রবি থিয়েটার এর সভাপতি হাসিব আল আমিনের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মজনুর রহমান, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন পলাশসহ আরো অনেকে। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন ও নোবিপ্রবি থিয়েটারের সদস্যবৃন্দ।
সিনহা হত্যা মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ, আদালতে আবেদন
০৫,অক্টোবর,সোমবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মেজর (অবঃ) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় তার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌসের দায়ের করা মামলাটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আদালতে রিভিশন মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার ১নং আসামি বরখাস্ত পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকতের পক্ষে রোববার (৪ অক্টোবর) দুপুরে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আবেদনটি করেন এডভোকেট মাসুদ সালাহ উদ্দিন। আবেদনে তিনি উল্লেখ করেছেন, সিনহার বোনের মামলাটির পুরো বিচার প্রক্রিয়া পরিচালিত হচ্ছে তাতে আইনের ২০৫ ডি সেকশনকে অনুসরণ করা হচ্ছে না। ফলে সিনহা হত্যাকাণ্ডের বিচার সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা নিয়ে তার সন্দেহ আছে। এডভোকেট মাসুদ সালাহ উদ্দিন আবদনে বলেছেন, বিচারকার্য সঠিক ধারায় নিয়ে যেতে হলে ২০৫ ডি সেকশন অনুসরণ করার আবেদন করেন। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এডভোকেট ফরিদুল আলম জানান, আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল মামলাটি গ্রহণ করে আগামী ২০ অক্টোবর শুনানির দিন নির্ধারণ করেছেন। গত ৫ আগস্ট কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মেজর সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। সেই মামলার আদেশের বিরুদ্ধে বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিভিশন মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। কেননা সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ঘটনার পর পরই আরো দুইটি মামলা দায়ের করেছিল, জানান বাদির আইনজীবী। উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মেরিন ড্রাইভ রোডে শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এরপর ৫ আগস্ট এ ঘটনায় ৯ জনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার আদালতে মামলা করেন সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। মামলাটি র‌্যাবকে তদন্তভার দেয়া হয়। ৬ আগস্ট আদালতে আত্মসমর্পণ করেন টেকনাফের থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ এবং বাহারছরা পুলিশ ফাড়ীর তৎকালীন ইনচার্জ বরখাস্ত হওয়া পরিদর্শক লিয়াকত সহ পুলিশের ৭ সদস্য। পরে র‌্যাব এপিবিএন’র ৩ সদস্য, পুলিশের মামলার ৩ সাক্ষী ও সর্বশেষ পুলিশের একজন কনস্টেবলকে আটক করেন। এই মামলায় এখন মোট আসামী ১৪ জন। ১২ জন আসামি এ পর্যন্ত আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।
১ মাসে সংস্কার হবে ৮০ কিলোমিটার সড়ক
০৪,অক্টোবর,রবিবার,পাবনা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মুজিব বর্ষ উপলক্ষে চলতি মাসে চলাচলের অনুপযোগী ৮০ কিলোমিটার সড়ক সংস্কার করবে পাবনা এলজিইডি। মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার সড়ক হবে সংস্কার স্লোগান নিয়ে গত বৃহস্পতিবার থেকে গ্রামীণ সড়ক সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণকাজ শুরু করে এলজিইডি। এরই অংশ হিসেবে গতকাল পাবনা সদর উপজেলার দাপুনিয়া বাজার থেকে টেবুনিয়া বাজার পর্যন্ত ৬ দশমিক শূন্য ৫ কিলোমিটার সড়কটির খানাখন্দ মেরামত ও সংস্কার করা হয়। পাবনা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোখলেসুর রহমান জানান, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় এলজিইডির পক্ষ থেকে গ্রামীণ সড়কের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করা হচ্ছে। তিনি জানান, পাবনা জেলার নয়টি উপজেলার ৭৪টি ইউনিয়নে এলজিইডির আওতাধীন প্রায় ৫ হাজার ৮০৫ কিলোমিটার রাস্তা রয়েছে। এর মধ্যে ২ হাজার ৫১৭ কিলোমিটার রাস্তা পাকা এবং ৩ হাজার ২৮৮ কিলোমিটার রাস্তা কাঁচা। রোদ-বৃষ্টিতে জেলার ৮০ কিলোমিটার রাস্তা চলাচলের কিছুটা অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এক মাসের মধ্যেই সেটা মেরামত করা হবে। জেলার ২ হাজার ৪৩৭ কিলোমিটার সড়ক চলাচলের উপযুক্ত রয়েছে। এর মধ্যে কোনো কোনো রাস্তা চলমান বৃষ্টিতে কিছু খানাখন্দ হয়েছে, চলতি মাসের কর্মসূচিতে ওই খানাখন্দ মেরামত, সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে। তিনি আরো জানান, গ্রামীণ সড়ক উন্নয়নের কারণে হাটবাজার, খামার, সরকারি দপ্তরের সঙ্গে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর যোগাযোগ সহজতর, শিক্ষা, সামাজিক ও কল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান ও পল্লী সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যোগাযোগের পথ সুগম হয়েছে। ফলে গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়ন হয়েছে। গ্রামীণ কুটিরশিল্পে উৎপাদিত পণ্য, কৃষিপণ্যসহ সব ধরনের পণ্য বাজারজাত করা সহজ হচ্ছে। পাবনা এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মো. আ. খালেক জানান, গ্রামীণ রাস্তা সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সংগৃহীত নির্মাণসামগ্রী ও যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে নিয়োগকৃত জনবল সংস্কারের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এলজিইডি, পাবনা দপ্তরের কর্মকর্তারা বিভিন্ন সড়ক সংস্কারের কাজ মাঠ পর্যায়ে তদারকি করছেন। এ মাসের মধ্যে ছোটখাটো খানাখন্দ সংস্কারের কাজ শেষ করার জন্য জোর প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। তবে বছরব্যাপী এ কাজ অব্যাহত রাখা হবে। পাবনার সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান বলেন, জেলায় যে রাস্তাগুলো কাঁচা রয়েছে সেগুলো পর্যায়ক্রমে পাকা করার জন্য প্রকল্প হাতে নেয়া দরকার। তাহলে গ্রামীণ অবকাঠামোর আরো উন্নয়ন এবং গ্রামীণ অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে।
সীতাকুণ্ডে কুকুরের কামড়ে আহত ৭
০৩,অক্টোবর,শনিবার,সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুণ্ড উপজেলায় বেওয়ারিশ পাগলা কুকুরের কামড়ে ৭ জন আহত হয়েছেন। উপজেলার বার আউলিয়া এলাকার ফুলতলা গ্রামে বেওয়ারিশ কুকুর গ্রামের বাসিন্দাদের কামড়ে আহত করে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকসাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আহতের মধ্যে বেশ কয়েকজনের পায়ে কুকুরের কামড়ের গভীর ক্ষত হয়েছে। শুক্রবার ও শনিবার দুইদিনে অন্তত ৭ জনকে কামড়ে আহত করে পাগলা কুকুরের দল। এছাড়া দুইদিনে ১২ মুরগীকে কামড়ে খেয়ে ফেলে। শনিবার দুপরে ফুলতলা এলাকার ছেনোয়ারা বেগম (৫০) কে হেঁটে যাওয়ার সময় কুকুর কামড়ে মারাত্বকভাবে আহত করে। তাকে দ্রুত বিআইটিআইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে উপজেলার বিভিন্নস্থানে পাগলা কুকুর আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ফুলতলা গ্রামের বাসিন্দা জনৈক ফারুক জানান, শুক্রবার ও শনিবার সকালে গ্রামের বিভিন্ন স্থানে বেশ কয়েকটি পাগলা কুকুর সামনে যাকে পেয়েছে তাকেই কামড়েছে। বাড়ি থেকে বের হয়ে মানুষ বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার সময় কুকুরের কামড়ে আহত হন। আমাদের গ্রামে এই পর্যন্ত ৬ জনকে কুকুর কামড়িয়েছে। তাদের মধ্যে বৃদ্ধ মহিলাও রয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এছাড়া প্রায় ১০ টিরমত মুরগীকে কামড়িয়েছে। এছাড়া অনেক দিন ধরে বেওয়ারিশ কুকুর আটক করা ও মারা বন্ধ থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন গ্রামের মানুষ। এব্যাপারে বিআইটিআইডি হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, কুকুর কামড়ে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিতে রোগীরা বিআইটিআইডিতে আসছে। এখানে রোগীরা জলাতঙ্কের প্রতিষেধক পাচ্ছে। যারা কম আক্রান্ত তাদেককে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে আর যারা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান মাওলানা মাহমুদুল হাসান
০৩,অক্টোবর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের (বেফাক) নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান হলেন মাওলানা মাহমুদুল হাসান।তিনি ঢাকা যাত্রাবাড়ী মাদ্রাসার মুহতামিম (প্রধান পরিচালক) ও গুলশান আজাদ মসজিদের খতিব। গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের (বেফাক) চেয়ারম্যান আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যু হলে চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হয়। ১৫ দিন পর নতুন চেয়ারম্যান পেলো বেফাক। শনিবার (৩ অক্টোবর) রাজধানীর কাজলায় বেফাকের মজলিসে আমেলার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বোর্ডের সদস্যরা লিখিতভাবে মতামত প্রদান করেন। বেফাকের কর্মকর্তা মাওলানা মুসলেহ উদ্দিন রাজু গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান। মাওলানা মুসলেহ উদ্দিন রাজু বলেন, মজলিসে আমেলার সদস্যদের লিখিত মতামতের ভিত্তিতে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মাওলানা মাহমুদুল হাসান। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, মজলিসে আমেলার বৈঠকে প্রায় ১২৫ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। লিখিত মতামতে মাওলানা মাহমুদুল হাসান পেয়েছেন ৬৪ ভোট। মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী পেয়েছেন ৫০ ভোট। আর হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী পেয়েছেন মাত্র ৩ ভোট। বেফাকের সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল থেকে বেফাকের সদস্যরা লিখিত মতামত প্রদান করেন। বিকাল ৩টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় মতামত প্রদানের কার্যক্রমে বিরতি চলছে। পরবর্তীতে মহাসচিব পদের জন্য লিখিত মতামত পেশ করবেন বেফাকের সদস্যরা। উল্লেখ্য, যাত্রাবাড়ী মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা মাহমুদুল হাসান মজলিসে দাওয়াতুল হক নামে একটি আধ্যাত্মিক সংগঠনের আমির।

সারা দেশ পাতার আরো খবর