তারাগঞ্জে বেড়েছে সূর্যমুখী চাষ
৩০,মার্চ,মঙ্গলবার,রংপুর প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: তারাগঞ্জে সূর্যমুখীর চাষ বেড়েছে। উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গত বছর প্রথম পর্যায়ে উপজেলায় মাত্র সাত হেক্টর জমিতে সূর্যমুখীর চাষ হয়েছিল। চলতি বছর তা প্রায় তিন গুণ বেড়ে ২০ হেক্টর জমিতে সূর্যমুখীর চাষ হয়েছে। উপজেলার ইকরচালি ইউনিয়নের সূর্যমুখী চাষি রফিকুল ইসলাম বলেন, কম খরচে অধিক লাভজনক হওয়ায় সূর্যমুখী চাষ করছি। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা উর্মি তাবাসসুম বলেন, গত বছরের তুলনায় এবারে তারাগঞ্জ উপজেলায় সূর্যমুখীর চাষ তিন গুণ বেড়েছে। সূর্যমুখী চাষে কৃষকদের উত্সাহ দেওয়া হচ্ছে। ভবিষ্যতে এ চাষ আরও বাড়বে বলে আমরা আশাবাদী।
মোংলা বন্দরে আসছে মেট্রোরেলের যন্ত্রাংশের প্রথম চালান
২৯,মার্চ,সোমবার,মোংলা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মোংলা বন্দরে আসছে ঢাকার উত্তারা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের (রেলওয়ে কার) যন্ত্রাংশের প্রথম চালান। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) থাইল্যান্ড পতাকাবাহী জাহাজ- এমভি এস পি এম ব্যাংকক- এ আসবে মূল্যবান এই যন্ত্রাংশ। বিদেশি পতাকাবাহী জাহাজ- এম ভি এসপি এম ব্যাংকক এ আসা এই যন্ত্রাংশ বন্দর জেটির ৯ নম্বর ইয়ার্ডে খালাস হবে। মেট্ররেলের (রেলওয়ে কার) যন্ত্রাংশের আমদানিকারক ঢাকার ডি এম টি সিএল। এখন শুধু মাত্র সময়ের অপেক্ষা। আর কিছুদিনের মধ্যেই বদলে যাবে রাজধানী ঢাকার অভ্যন্তরীন যোগাযোগ ব্যবস্থা। শিগগিরই অভ্যান্তরীন রুটে মেট্রোরেলের উড়াল পথে পাড়ি জমাতে যাচ্ছে রাজধানীবাসি। ব্যস্ত নগরবাসী পেতে যাচ্ছে মেট্রোরেলের নানা সুবিধাদি। এর মধ্যদিয়ে ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থায় প্রথমবারের মতো মেট্রোরেল যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। যোগাযোগ ব্যবস্থার এ উন্নয়ন কার্যক্রমের সকল প্রক্রিয়া এখন শেষ পর্যায়ে। যন্ত্রাংশ বোঝাই বিদেশী ওই জাহাজের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এনসিয়েন্ট ষ্টিমশীপ কোম্পানি লিঃ এর মহাব্যবহস্থাপক মোঃ ওহিদুজ্জামান রবিবার (২৮ মার্চ) রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, আগামী ২০২২ সালের মধ্যে আরও ১৩৮ টি রেলওয়ে কার আসবে। যন্ত্রাংশ গুলো সব চলে আসার পর উত্তারা থেকে আগাওগাঁও পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে প্রথম মেট্ররেল চলাচল শুরু করবে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এ্যডমিরাল মোহম্মদ মুসা বলেন, প্রথমবারেরমত মোংলা বন্দর দিয়ে দেশের মেট্ররেলের (রেলওয়ে কার) যন্ত্রাংশ আসছে। এর আগে রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে এসেছে। দিনে দিনে জাহাজ আগমনের সংখ্যা বাড়ছে। এতেই প্রমান করে মোংলা বন্দরের সক্ষমতা কত বেড়েছে। এই বন্দরকে আরও সক্ষমতা ও গতিশীল করতে নতুন নতুন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে, যেগুলো বাস্তবায়ন হলে পুরোপুরিভাবে এই বন্দর আর্ন্তজাতিকভাবে নতুন মাত্রা পাবে। যোগ করেন বন্দরের সর্বচ্চ পদস্থ এই কর্মকর্তা। বন্দর ব্যবহারকারী হোসাইন মোহাম্মদ দুলাল ও ক্যাপ্টেন মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে মোংলা বন্দর ব্যবহারে এখন সুবিধা পাচ্ছেন তারা। বন্দরের নতুন ও আধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপন হওয়ায় এটি ব্যবহারে তারা এখন লাভজনক অবস্থানে আছেন বলেও জানান তিনি।
ঢাকা সিলেট ও চট্টগ্রাম রেল পথে ট্রেন চলাচল বন্ধ
২৮,মার্চ,রবিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আন্তঃনগর সোনারবাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের ইট-পাটকেল ছোড়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। আজ রোববার (২৮ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাময়িক ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। আজ সকালে আমিরগঞ্জ রেল স্টেশনে আটকা পড়ে আছে মহানগর ট্রেনটি। সকাল ১১টার দিকে নরসিংদী স্টেশনে আটকা পড়ে আছে চট্টগ্রাম মুখী কর্ণফুলী মেইল। হেফাজতে কর্মীরা নরসিংদী রেলস্টেশনে প্রধান ফটকে অবস্থান করছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মূসা মিয়া। এদিকে আখাউড়া রেলওয়ে থানার ওসি মাজহারুল করিম বলেন, সকালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর সোনারবাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি তালশহর এলাকায় আসার পর হরতাল সমর্থনকারীরা ইট-পাটকেল ছোড়ে। এর ফলে নিরাপত্তাজনিত কারণে সাময়িক ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। সোনারবাংলা ট্রেনটি ভৈরব রেলওয়ে জংশন স্টেশনে নেয়া হচ্ছে। এছাড়া জানা গেছে ঢাকাগামী আন্তঃনগর উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনটি আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে আটকা পড়েছে।
রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন
২৭,মার্চ,শনিবার,রাজবাড়ী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ উপলক্ষে রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই মেলার আয়োজন করা হয়। শনিবার (২৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় শহীদ খুশি রেলওয়ে ময়দানে এ মেলার উদ্বোধন হয়। পড়ে জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল জব্বার প্রমুখ। দুই দিনব্যাপী এই উন্নয়ন মেলায় জেলার সরকারি পর্যায়ে প্রায় ৮০টি স্টল বরাদ্দ পেয়েছে। মেলায় নাটক, অ্যাক্রোবেটিক শো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরসহ বিভিন্ন আয়োজন রয়েছে। আগামীকাল পুরস্কার বিতরণীর মাধমে শেষ হবে দুই দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার।
স্বাধীনতা দিবসে শহীদদের প্রতি বরিশাল ডিএলআরসি অফিসের বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন
২৬,মার্চ,শুক্রবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২১ উপলক্ষে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে বরিশাল উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনারের (ডিএলআরসি) কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের উদ্দেশ্যে বরিশাল বিভাগের উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার তরফদার মো: আক্তার জামীলের নেতৃত্বে ডিএলআরসি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, জোনাল সেটেলমেন্ট অফিস, বরিশাল কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, আঞ্চলিক গুচ্ছ গ্রাম প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, সহকারী হিসাব নিয়ন্ত্রক (রাজস্ব) এর কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, বরিশাল সদর উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ২৬ র্মাচ ২০২১ তারিখ ভোর ৫:০০ টার মধ্যে পোর্ট রোডস্থ বিভাগীয় ভূমি কমপ্লেক্স এর সামনে এসে উপস্থিত হন। এরপর সকলে পায়ে হেঁটে বরিশাল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সংলগ্ন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিফলকের নিকট হাজির হন। এরপর নির্ধারিত সময়ে তারা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিফলকের বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। তারা কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি সম্মান জানান। উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের আজকের এ দিনটিতে আনুষ্ঠানিক সূচনা ঘটেছিল বাঙালির সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের। পাকিস্তানি শোষকদের কবল থেকে মাতৃভূমিকে স্বাধীন করতে রণাঙ্গনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বাংলার দামাল ছেলেরা। পরবর্তীতে ৯ মাস বহু ত্যাগ-তিতিক্ষা আর রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর অর্জিত হয় বিজয় ও সার্বভৌমত্ব। জাতি অর্জন করে একটি দেশ, জাতীয় পতাকা ও জাতীয় সঙ্গীত। প্রতিবছরের ন্যায় গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্বাধীনতা দিবসের এই দিনে গোটা দেশের সাথে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ করেছে বরিশাল উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনারের (ডিএলআরসি) কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
হিউম্যান হলারের সঙ্গে সংঘর্ষে মাইক্রোবাসে আগুন, নিহত ৯
২৬,মার্চ,শুক্রবার,রাজশাহী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজশাহী মহানগরের কাটাখালী এলাকায় লেগুনার (হিউম্যান হলার) সঙ্গে সংঘর্ষে মাইক্রোবাসে আগুন ধরে নয়জন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (২৬ মার্চ) দুপুর পৌনে ২টার দিকে এ দুর্ঘটনা হয়েছে। স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, এ দুর্ঘটনায় নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে এখনো দায়িত্বশীল কোনো সূত্রের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, দুপুরে কাটাখালী মোড়ে রংপুর থেকে আসা একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি হিউম্যান হলারের সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটিতে আগুন ধরে যায়। ফলে মাইক্রোবাসে থাকা সবাই হতাহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে মরদেহ এখনো গোনা হয়নি। উদ্ধার কাজ চলছে।
৯০ দিন নামাজ আদায় করে বাইসাইকেল উপহার পেল ১২ শিশু-কিশোর
২৪,মার্চ,বুধবার,বরিশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: টানা ৯০ দিন জামাতে নামাজ আদায় করে বাইসাইকেল উপহার পেয়েছে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার চালিতাবাড়ী ও পূর্ব জিড়ারকাঠি গ্রামের ১২ শিশু-কিশোর। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) রাতে চালিতাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত মাহফিল শেষে তাদের হাতে বাইসাইকেল তুলে দেন চালিতাবাড়ী-পূর্ব জিড়ারকাঠি সোসাইটি (সিপিজে সোসাইটি) নামে একটি সামাজিক সংগঠন। এছাড়া উপহার দেয়া হয় ধর্মীয় শিক্ষার বই ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শেরে বাংলা আবুল কাসেম ফজলুল হকের বীরত্বগাঁথা বই। পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, চাখারের চালিতাবাড়ি গ্রামের মো, সিয়াম হাওলাদার, মো. ইব্রাহিম, মো. মমিন, মো. ফাহাদ, মো. আবদুল্লাহ, মো. কাওছার ঘরামী, মো. সোহান, মো. ফারদিন, মো. কাওছার বেপারী ও মো. নেয়ামুল। এছাড়াও পূর্ব জিড়ারকাঠি গ্রামের মো. রানা হোসেন ও মো. রাজু হোসেন। এই বিষয়ে সিপিজে সোসাইটির প্রধান সমন্বয়ক নিয়াজ মাহমুদ সোহেল বলেন, গত ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের দিনে চালিতাবাড়ী ও পূর্ব জিড়ারকাঠি গ্রামের শিশু-কিশোরদের উদ্দেশ্যে ঘোষণা দেয়া হয়, একটানা ৯০ দিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সঙ্গে আদায় করবে, তাদেরকে একটি করে বাইসাইকেল পুরষ্কার দেয়া হবে। সে ঘোষণায় উৎসাহিত হয়ে এলাকার অনেক শিশু-কিশোরই নামাজ আদায় শুরু করে। টানা ৯০ দিন নিয়মিত জামাতে নামাজ পড়েছে এমন ১২ জনের হাতে পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয়।
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১১
২৩,মার্চ,মঙ্গলবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালীতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়াবহ আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ জনে দাঁড়িয়েছে। এ সময় আগুনে প্রায় ৪০ হাজার বসতবাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। প্রায় ১৫৫ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) বিকাল ৫ টারদিকে ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনের কার্যালয়ের সভাক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মহসিন। সচিব মোহাম্মদ মহসিন বলেন, ঘটনায় শুধু ঘরবাড়ি নয় পুড়েছে আইওম ও তুর্কি সরকারের দুইটি বড় হসপিটালও পুড়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। ঘটনা তদন্তে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালীতে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দশ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গাদের বসতঘর পুড়ে গেছে। অগ্নিকাণ্ডের ফলে দৌড়াদৌড়ি ও হুড়োহুড়িতে পড়ে হাজারো রোহিঙ্গা আহত হয়েছে। আগুনে সম্পুর্ণ বাড়ি ঘর পুড়ে যাওয়ায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা গৃহহারা হয়েছে। তবে আগুনে দগ্ধ হয়ে দুই শিশু সহ এ পর্যন্ত ৭ জন রোহিঙ্গা মারা গেছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন। অগ্নকান্ডের ঘটনায় দুর্যোগ ও ত্রান মন্ত্রনালয় থেকে কক্সবাজার শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন কমিশনারকে প্রধান করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হরেছে বলে জানান চট্রগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন। অগ্নকান্ড পুড়ে যাওয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প অজ সকালে পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন। কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন সকালে জানিয়েছেন, ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডে এ পর্যন্ত দুই শিশু সহ ৭ জন রোহিঙ্গা অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে তারা নিশ্চিত করা হলের পরে বিকালে এক প্রেসব্রিফিংয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মহসিন আরও ৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধারের কথা নিশ্চিত করেন। এনিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ১১ জনে দাড়িয়েছে। এদিকে আইএসসিজি এর কর্মকর্তা সৈয়দ মোহাম্মদ তাফহিম জানিয়েছে, কুতুপালং বালুখালী ক্যাম্প ভিত্তিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য তৈরি একটি শিটের হিসাব অনুসারে বালুখালির ক্যাম্প ৮-ইতে ঘরের সংখ্যা ৬ হাজার ২৫০ আর লোকসংখ্যা ২৯ হাজার ৪৭২ জন, ৮-ডব্লিউ ক্যাম্পে বাড়ি ৬ হাজার ৬১৩টি আর লোকসংখ্যা ৩০ হাজার ৭৪৩ জন, ক্যাম্প ৯-এ বাড়ি ৭ হাজার ২০০ টি আর লোকসংখ্যা ৩২ হাজার ৯৬৩ জন এবং ক্যাম্প ১০-এ বাড়ি ৬ হাজার ৩২০টি আর লোকসংখ্যা ২৯ হাজার ৭০৯ জন। তিনি উল্লেখ করেন অগ্নিকাণ্ডে এই চারটি ক্যাম্পের অধিকাংশ ঘর ক্ষতিগ্রস্হ হয়। এদিকে দীর্ঘ ৭ ঘন্টা অগ্নিকান্ডের ঘটনায় হাজার হাজার রোহিঙ্গা আশ্রয়স্থল হারিয়ে এক কাপড়ে আশ্রয় নিয়েছে কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কে। আশ্রয়হারা লোকজন হারিয়েছে তাদের ক্যাম্পের ঝুপড়ি ঘরের সব মালামাল। আশেপাশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও স্হানীয় গ্রামবাসীর বসতভিটাতে আশ্রয় নিয়েছে হাজার হাজার রোহিঙ্গা।
কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রামে আগুনে পুড়ে গেছে ৭ বসত ঘর, খোলা আকাশের নিচে ক্ষতিগ্রস্তরা
২২,মার্চ,সোমবার,কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কিশোরগঞ্জ জেলার হাওর অঞ্চল অষ্টগ্রামে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেছে অন্তত সাতটি বসত ঘর। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আশপাশের আরও কিছু ঘর-বাড়ি। সবকিছু হারিয়ে এখন খোলা আকাশের নিচে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো। রোববার দিনগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামের জামালপুর হাটিতে এ আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে এ আগুন ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। বাড়ির লোকজনের আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন। স্থানীয়রা চেষ্টা চালিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এরইমধ্যে পুড়ে যায় অন্তত সাতটি ঘর। সবকিছু হারিয়ে পথে বসেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শট সার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

সারা দেশ পাতার আরো খবর