রবিবার, মে ৯, ২০২১
৫৫ বছরে পা রাখলেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান
০২নভেম্বর,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কী অদ্ভূত রোমাঞ্চকর এক জীবন! অনিশ্চিত ভবিষ্যতের পথে যাত্রা করে শূন্য হাতে পা রেখেছিলেন বিশ্বের অন্যতম শহর মুম্বাইয়ে। কীভাবে হবে রুটি রুজির ব্যবস্থা, সেটাও জানা নেই। দু চোখ ভরা স্বপ্ন নিয়ে এসেছিলেন। কে জানতো সেই ছটফটে যুবক বুকের গভীরে লুকিয়ে জিদকে হাতিয়ার বানিয়ে একদিন এতোটা সফল হয়ে উঠবেন। বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়বে তার নাম। লোকে তাকে ডাকবে বলিউড বাদশাহ বলে, কিং খান বলে। কিংবা প্রেমপাগল দর্শকের মনে তিনিই হয়ে উঠবেন রোমান্সের রাজা। তিনি শাহরুখ খান! জিরো থেকে হিরো হয়ে উঠা শক্তিমান বলিউড অভিনেতার নাম শাহরুখ। যে জীবনের উত্থানের পরতে পরতে আছে সংগ্রাম, অবর্ণনীয় যাতনার গল্প। সেসব বিভিন্ন সময় নিজেই বলেছেন শাহরুখ। সঙ্গত কারণেই বলিউডে প্রেরণা যোগানো নায়কদের মধ্যে অন্যতম হিন্দি সিনেমার রঙিন দেবদাস। আজ আর ৫৫তম জন্মদিন। ১৯৬৫ সালের ২ নভেম্বর ভারতের নয়া দিল্লিতে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন শাহরুখ। তার বাবা তাজ মোহাম্মদ খান। মা লতিফ ফাতিমা। হংসরাজ কলেজ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করে শাহরুখ ভর্তি হন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ায় গণযোগাযোগ বিষয়ে। কিন্তু অভিনয় জীবন শুরুর লক্ষ্যে ছেড়ে দেন প্রতিষ্ঠানটি। অভিনয় পাঠগ্রহণ করেন দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামাতে। কিং খানের জন্মদিন মানেই কোটি কোটি ভক্তদের উৎসব। মাস খানেক আগে থেকেই তার ভক্তরা প্রিয় নায়কের জন্মদিন উদযাপনের ডাক দেন, হাজির হন শাহরুখের বাড়ির সামনে। দেশে দেশে এ অভিনেতার ভক্তরা দলবেঁধে কেক কাটেন, প্রিয় তারকার ছবি দেখেন। যেন ২ নভেম্বর মানেই শাহরুখ খান দিবস! এবারেও জন্মদিনের উৎসব চলছে। তবে করোনার কারণে তা হচ্ছে ভার্চুয়ালি। ১ নভেম্বর দিন শেষে রাতের ঘড়ির কাটায় ১২টা বাজতেই শুরু হয়ে গেছে জন্মদিনের শুভেচ্ছা পাওয়া। গতরাত থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছেয়ে গেছে এসআরকে-কে পাঠানো জন্মদিনের শুভেচ্ছায়। তাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন বলিউডের সহকর্মীরাও। সে তালিকায় রয়েছে তার পরিচালক, প্রযোজক, নায়িকারাও। অভিনেতা হিসেবে কিং খানের পথচলার শুরু ১৯৮৯ সাল থেকে। ফৌজি টিভি সিরিজ দিয়ে শুরু হওয়া এই যাত্রায় আরও কয়েকটি টিভি ধারাবাহিকে কাজের মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জন করেন তিনি। বলিউডে তার অভিষেক হয় ১৯৯২ সালে দিওয়ানা ছবির হাত ধরে। আর তাতেই কেল্লা ফতেহ! এ ছবিতে তার দুর্দান্ত কাজের জন্য অর্জন করেন সেরা নবাগত অভিনেতা হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। চমৎকার, দিল আসনা হে ও রাজু বান গেয়া জেন্টলম্যান এর মতো ছবিতে অভিনয় করে সকলের নজর কাড়েন তিনি। ঠিক তার পরের বছরই ডর ও বাজিগর ছবিতে নিজের অভিনয়ের জাদু দিয়ে সবাই মুগ্ধ করে ঘর করে নেন দর্শকের মনে, পৌঁছে যান সাফল্যের চুড়ায়। তার অভিনয়ের খ্যাতি আরও বাড়তে থাকে যশরাজ ফিল্মসের ছবিতে ধারাবাহিকভাবে অভিনয় করে। একের পর এক হিট ছবি দিয়ে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে অবস্থান করেন শাহরুখ। করন অর্জুন, দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে, ইয়েস বস, পারদেশ, দিল তো পাগল হ্যায়, ডুপ্লিকেট, দিল সে, মোহাব্বাতে, অশোকা, কাভি খুশি কাভি গাম, দেবদাস, ডন, ডন-২, রাব নে বানাদি জোরি, জাব তাক হে জান, চেন্নাই এক্সপ্রেস, রইস প্রভৃতি ছবির মধ্য দিয়ে অভিনেতা হিসেবে নিজেকে অন্যরকম উচ্চতায় নিয়ে গেছেন শাহরুখ। আর দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে, কুচ কুচ হোতা হ্যায়, দিল তো পাগল হ্যায়, কয়লা, বাজিগর, বাদশাহ, ডর, দেবদাস, চাক দে ইন্ডিয়া, মাই নেইম ইজ খানর মতো মুভিতে তার অনন্যসাধারণ অভিনয় বিশ্বব্যাপী তাকে তুমুল জনপ্রিয়তা দিয়েছে। প্রায় তিন দশকের ক্যারিয়ারে মোট ১৪ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন শাহরুখ। তার মধ্যে আটবার সেরা অভিনেতার। ২০০২ সালে তাকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করে ভারত সরকার। এ ছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি গ্রহণ করেন মোট পাঁচবার। ব্যক্তি জীবনে তিন সন্তানের জনক শাহরুখ খান। স্ত্রী গৌরি খানের সঙ্গে মাত্র ১৮ বছরের বয়সে দেখা হয় শাহরুখের। তারপর চার বছরের সম্পর্কে থাকার পর ১৯৯১ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এদিকে গেল কয়েকটা বছর তিনি নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তার ফ্যান, জিরো ছবিগুলো আশানুরূপ সাড়া পায়নি। যার ফলে প্রায় দুই বছর স্বেচ্ছা নির্বাসনে নিলেন তিনি৷ নিয়মিত ছিলেন শুধু প্রযোজনা ও ক্রিকেটের দল নিয়ে। নানারকম সামাজিক কর্মকান্ডেও নিজেকে নিবেদিত করে রেখেছেন বাদশাহ। তবে ভক্তদের জন্য আশার খবর হলো বিরতি ভেঙে প্রায় চারটি সিনেমা নিয়ে ফিরছেন কিং খান। সবার প্রত্যাশা বিগ বাজেটের এসব ছবি দিয়ে আবারও হারানো রাজত্ব ফিরে পাবেন শাহরুখ খান।
৪৮ এ পা দিলেন ঐশ্বরিয়া
০১নভেম্বর,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতীয় অভিনেত্রী ও প্রাক্তন বিশ্ব সুন্দরী ঐশ্বরিয়া রাই এর জন্মদিন আজ। ৪৭ পেরিয়ে -৪৮ এ পা দিলেন তিনি। ১৯৭৩ সালের ১ নভেম্বর ভারতের কর্নাটক রাজ্যের ম্যাঙ্গালোরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার বাবা কৃষ্ণরাজ রাই, একজন অবসরপ্রাপ্ত সামুদ্রিক জীববিজ্ঞানী। মা বৃন্দা রাই, একজন লেখিকা। ছোট বেলায় ঐশ্বরিয়ার পরিবার মুম্বাইতে চলে আসায় সেখানেই তার পড়ালেখা ও বেড়ে ওঠা। নবম শ্রেণিতে পড়াকালীন সখের বশে পেনসিলের একটি বিজ্ঞাপনের কাজ করেন। কলেজে পড়ার সময় স্থপতি হওয়ার স্বপ্ন ছিল তার। কিন্তু ভাগ্য তাকে নিয়ে এসেছে বিনোদনের জগতে। অভিনয়ের আগে তিনি মডেল হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। সে সময় ঐশ্বরিয়ার রূপ ছিল চোখ ধাঁধানোর মতোই। ১৯৯৪ সালে তিনি ভারতের প্রতিযোগী হিসেবে মিস ওয়ার্ল্ড-এ অংশ নিয়ে বিশ্বের সেরা সুন্দরী নির্বাচিত হোন। এরপর ১৯৯৭ সালে তামিল সিনেমা ইরুবার-এর মাধ্যমে অভিনয় জগতে প্রবেশ করেন। একই বছর ববি দেওয়লের বিপরীতে অউর পেয়ার হো গ্যায়া সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় তার। তবে বাণিজ্যিকভাবে সিনেমার প্রথম সাফল্য পান ১৯৯৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তামিল ‘জিন্স’ সিনেমার মাধ্যমে। এরপর পাড়ি জমান হলিউডে। সেখানেও একাধিক সিনেমা সাফল্যের সঙ্গে অভিনয় করে হয়ে উঠেন আন্তর্জাতিক তারকা। এদিকে, ২০০৭ সালে বলিউড অভিনেতা অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন এই সুন্দরী। বিয়ের পর থেকে পর্দায় নিয়মিত না এলেও দর্শকের কাছে একই রকম জনপ্রিয় ঐশ্বরিয়া। ২০১৬ সালে রণবীর কাপুরের বিপরীতে ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ সিনেমায় অভিনয় করে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছেন। সাবেক এ বিশ্ব সুন্দরীর প্রতিটি জন্মদিনেই কোনো না কোনো চমক থাকে। এ দিনটিকে উপলক্ষ করে স্বামী অভিষেক বচ্চন বিশেষ কোনো উপহার দেন কিংবা বিদেশে ভ্রমণের আয়োজন করে থাকেন।
প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান গানে বিনিয়োগ বন্ধ করে নাটকের পেছনে ছুটছে- আসিফ আকবর
০১ নভেম্বর,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: লেখা, সুর ও গায়কী একটা গানকে টেনে নিয়ে যায় মানুষের মনের গভীরে। সঙ্গে অপরিসীম গুরুত্ব বহন করে যন্ত্রানুষঙ্গ। লাইফলাইন হিসেবে কাজ করে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। আমার ক্যারিয়ার শুরুর পর প্রত্যেকটি সেক্টরে পারিশ্রমিক দ্বিগুনের বেশী করেছি। এ ব্যাপারটা নিয়ে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো কখনো ঘ্যানঘ্যান করেনি। এনালগ থেকে ডিজিটাল যুগে প্রবেশের পর বহুমুখী সিস্টেমে গানের পরিবেশ বরবাদ হয়ে গেছে। এভাবেই চলতি সময়ের গান নিয়ে কথাগুলো বলছিলেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আসিফ আকবর। বর্তমানে গান নিয়ে ব্যাপক ব্যস্ত এ সংগীত তারকা। তবে সার্বিক পরিস্থিতি ভিন্ন বলে মনে করেন তিনি। চলতি সময়ের গানের পরিবেশ ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম নিয়ে আসিফ বলেন, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো গানে বিনিয়োগ বন্ধ করে নাটকের পেছনে ছুটছে। ওখানে নাকি অনেক লাভ, হাস্যকর দৌড়ঝাঁপ দেখছি। গানের টাকায় বেড়ে ওঠা প্রযোজকরা ককটেল মানসিকতায় দিগবিদিক ছুটছেন। ভবিষ্যতের লাইট না দেখেই বেঁছে নিয়েছেন নগদ মুনাফার টার্গেটলেস ধান্দা। আসিফ নিজের ব্যস্ততা নিয়ে বলেন, গান করে যাচ্ছি একটার পর একটা। কবির সুমন দার কথা-সুরে গান করা চলছে। অন্যদিকে দেশের সুরকারদের সুরেও নিয়মিত গানের রেকর্ডিং চলছে। তবে গানের সার্বিক পরিস্থিতি খুব একটা ভালো নয়। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো দেখছি নাটকের দিকে বেশি মনোযোগী এখন। গানের কপিরাইট নিয়েও চলছে নানা ধরনের আলোচনা ও বিতর্ক। রয়্যালিটিসহ আরো অনেক কিছুই সিস্টেমের মধ্যে নেই। এগুলো সিস্টেমের মধ্যে না আসা পর্যন্ত শিল্পী-গীতিকার-সুরকার ও সংগীত পরিচালকরা তাদের ন্যায্য পাওনা পাবেন না। মিউজিক ভিডিও করা কমিয়ে দিলেন কেনো? আসিফ বলেন, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ও ভিডিও নির্মাতাদের চাপেই মিউজিক ভিডিও করেছি। গত তিন বছরে একের পর এক গান ও ভিডিও করে গেছি। তবে চলতি বছরের শুরু থেকে আমি অনেকটা থেমে গেছি। আমি আসলে থামতে জানি। এখন থেকে আর অনুরোধের গান করছি না। যেমন গান টিকে থাকবে তেমন কথা-সুরের গানই করার চেষ্টা করছি। পাশাপাশি ভিডিও করা কমিয়ে দিয়েছি। অডিওটাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।
সাত পাকে বাঁধা পড়লেন কাজল
৩১অক্টোবর,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গাঁটছড়া বেঁধেছেন তামিল, তেলেগু ও হিন্দি সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কাজল আগারওয়াল। শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাতে মুম্বাইয়ের তাজ প্যালেসে ব্যবসায়ী গৌতম কিছলুর সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন এই তারকা। ভারতের ঐতিহ্যবাহী হিন্দু রীতি মেনে সম্পন্ন হয়েছে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। দুই পরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠ বন্ধুরাই কেবল কাজল-কিছলুর বিয়েতে অংশ নিতে পেরেছেন। খাঁটি ভারতীয় বধূ বেশে সেজেছেন কাজল। আর গোলাপি শেরওয়ানিতে বর হয়েছেন কিছলু। সাত পাঁকে ঘুরে একে অপরকে জীবন সঙ্গী করে নিয়েছেন। রাতেই তাদের বিয়ের ছবি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। এর আগে বুধবার (২৮ অক্টোবর) থেকে শুরু হয় কাজলের প্রাক-বিয়ে আনুষ্ঠানিকতা। নিজ ঘরেই তিনি হলুদ ও মেহেদি অনুষ্ঠান করেছেন। সে সময়কার ছবি শেয়ার করেছেন কাজল নিজেই। বিয়ের অনুষ্ঠান নিয়ে কাজলের বোন নিশা আগরওয়াল বলেন, করোনার জন্য অনুষ্ঠানে বিশেষ আড়ম্বর থাকছে না। সব বিধিনিষেধের মধ্যেই আমরা বিয়ের পরিবেশ তৈরি করতে চেয়েছি। কাজলের বিয়ে ও নতুন জীবন শুরু নিয়ে আমরা সবাই খুব আনন্দিত। কাজলের হবু বর গৌতম একজন সফল উদ্যোক্তা। তার ইন্টেরিয়র ডিজাইন নিয়ে একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তার সঙ্গে কাজলের আগে থেকেই পরিচয় ছিল। ২০০৪ সাল থেকে বলিউডে যাত্রা শুরু কাজলের। সিংঘম সিনেমায় অজয় দেবগনের সঙ্গে অভিনয় করেছেন কাজল। তামিল, তেলেগু ও হিন্দি সিনেমায় বেশ জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিনি। সম্প্রতি চিরঞ্জীবীর সঙ্গে কোরাতালা শিবা পরিচালিত আচার্য এবং কমল হাসানের সঙ্গে ইন্ডিয়ান টু সিনেমার কাজ সম্পন্ন করেছেন কাজল। অন্যদিকে, মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার প্যারিস প্যারিস সিনেমাটি।
শুরু করলেন অপূর্ব
২৯অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ওটিটি প্ল্যাটফরম জি ফাইভের ব্যানারে নির্মিত হচ্ছে ওয়েব ফিল্ম- যদি... কিন্তু... তবুও। বুধবার থেকে এর শুটিং শুরু হয়েছে। তাতে অংশ নিয়েছেন অপূর্ব। এখানে তার নায়িকা নুসরাত ফারিয়া। গেল মার্চে এর শুটিং শুরুর করার কথা থাকলেও করোনার কারণে তা সম্ভব হয়নি। জানা গেছে, বনানীতে শুটিং শুরু হয়েছে ওয়েব ফিল্মটির। বিভিন্ন ধাপে ৩০শে নভেম্বর পর্যন্ত শুটিং চলবে। নুসরাত ফারিয়া শুটিংয়ে অংশ নেবেন ৭ই নভেম্বর। পরিচালনার পাশাপাশি ওয়েব ফিল্মটির কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন শিহাব শাহীন নিজেই। গল্পে দেখা যাবে, বিয়ের আগের দিন বর যখন সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগেন, সেই গল্প। প্রথমবারের মতো একসঙ্গে জুটি বাঁধা অপূর্ব ও ফারিয়া ছাড়াও এই ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, সাফায়েত মনসুর রানাসহ অনেকেই। ঢাকা ছাড়াও শুটিং হবে কক্সবাজার ও বান্দরবানে। অপূর্ব বলেন, এখানে কাজের কথা হয়েছিলো অনেক আগে। করোনার কারণে পিছিয়ে যায়। এখন আবার কাজ শুরু হলো। সব মিলিয়ে আমার মনে হয় দর্শকরা ভালো কিছু পেতে যাচ্ছে এর মাধ্যমে।
স্ত্রী-পুত্র নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে চিত্রনায়ক সাইমনের সাক্ষাৎ
২৮,অক্টোবর,বুধবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। বুধবার (২৮ অক্টোবর) তিনি স্ত্রী ও বড় পুত্রসহ বঙ্গভবনে যান। এ সময় তারা রাষ্ট্রপতির শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন বলে জানান সাইমন। সেই সঙ্গে রাষ্ট্রপতিও সাইমন ও তার পরিবারের খোঁজখবর নেন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের বর্তমান সমস্যা, সংকট ও সমাধানের নানা বিষয় নিয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপতি। কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান দেশের প্রধান কর্তা রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে কিশোরগঞ্জের ছেলে চিত্রনায়ক সাইমন সাদিকের দাদা-নাতি সম্পর্ক। এ বিষয়টি ২০১৭ সালেই প্রকাশ্যে আসে সাইমনের একটি স্ট্যাটাসের পর। আইনগত জটিলতা পেরিয়ে যখন খুশি তখন দেখা-সাক্ষাৎ না হলেও ফোনে বা পরিবারের অন্য সদস্যদের মাধ্যমে দাদার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন সাইমন। বুধবার দেখা করার সুযোগ আসায় স্ত্রী-পুত্রসহ ছুটে যান তিনি। অনেকটা সময় কাটিয়েছেন দেশের প্রজ্ঞাবান রাজনীতিবিদ হামিদের সঙ্গে। দেখা শেষে বেশকিছু ছবি পোস্ট করে সাইমন ক্যাপশনে লেখেন, মহামান্য দাদার আদরে আমরা !
এ মাসেই ১০টি নাটকের প্রস্তাব ফিরিয়েছি- আবুল হায়াত
২৭,অক্টোবর,মঙ্গলবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শুটিং করার সাহস পাচ্ছি না। এ মাসেই ১০টি খণ্ড নাটকের প্রস্তাব ফিরিয়েছি। এছাড়া ধারাবাহিক নাটকেও কাজ করার কথা ছিল। সেটাও করছি না। আসলে ঢালাওভাবে নাটক করছি না। চেষ্টা করছি একটু হিসেব করে বুঝে কাজ করার। কারণ করোনার অবস্থা তো ভালো না। চলতি সময়ের ব্যস্ততা নিয়ে এভাবেই কথা গুলো বলছিলেন স্বনামধন্য অভিনেতা অবুল হায়াত। করোনার শুরু থেকেই খুব সাবধানতা অবলম্বন করছেন এই অভিনেতা। গত মাসে শুধু একটা নাটক করছেন। পাশাপাশি একটি ওভিসি করেছেন। এর আগে পূজার দুটি নাটকে কাজ করেছেন। মঞ্চ নাটকেও তো আপনার ফেরার কথা ছিল? উত্তরে আবুল হায়াত বলেন, নভেম্বরের ৬ তারিখ শো করার কথা ছিল 'মূল্য অমূল্য' নাটকের। সবদিক বিবেচনায় সেটাও বাতিল করেছি। এখন আসলে নিরাপদ মনে করছি না। যদিও সব প্রস্তুতি নেয়া হয়ে গিয়েছিল। ভার্চুয়ালে রিহার্সেলও করেছিলাম। এখন সময় কাটছে কীভাবে? এ অভিনেতা বলেন, বই পড়ে, লেখালেখি করে , সিনেমা দেখা এবং খেলা দেখে সময় কাটছে। বিশেষ করে সন্ধ্যা বেলাটা কাটে আইপিএল দেখে। বর্তমান নাটক নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বাজেটের সংকট নিয়ে অবুল হায়াত হতাশা প্রকাশ করে বলেন, নাটকের বাজেট কমে গেছে এখন। আগে ৫-১০ লাখ টাকা বাজেটের নাটকেও কাজ করেছি। এখন সেই বাজেট নেমে এসেছে ১-২ লাখ টাকার মধ্যে। শিল্পীদের সম্মানী এখন আকাশচুম্বী। নাটকের ৭০ ভাগ বাজেটই নিয়ে নেয় শিল্পীরা। তাহলে আর থাকে কি! পরিচালক, প্রডিউসারদের বিরুদ্ধে পত্র পত্রিকায় প্রচুর লেখালেখি হয়েছে। ইউটিউবে দর্শকরাও প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, কেন নাটকে পরিবার বাবা-মা, ভাই-ভাবি নেই সবাই প্রশ্ন তুলেছে। তুমুল সমালোচনা হয়েছে। এখন দেখি বাবা-মাদের নিয়ে টানাটানি পড়ে গেছে! অনেকে এখন ফোন দিচ্ছে বাবার চরিত্রে অভিনয় করার জন্য। সামনে নাটকের কোনো শুটিং আছে? আবুল হায়াত বলেন, চলতি মাসের ২৯ তারিখ একটি খণ্ড নাটকে কাজ করবো। তারা আশ্বাস দিয়েছেন কাজটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে করবেন। তাই করছি। আর গল্পটাও পছন্দ হয়েছে। নতুন কোনো সিনেমা কি করবেন? এই অভিনেতা বলেন, সিনেমা নিয়ে কথাবার্তা হচ্ছে। দুটো অনুদানের সিনেমায় কাজ করতে পারি। দেখা যাক কি হয়।
চিত্রনায়ক রিয়াজের জন্মদিন আজ
২৬,অক্টোবর,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চিত্রনায়ক রিয়াজ আহমেদ। ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক। তিনি আসলেই বাংলার নায়ক। কারণ ক্যারিয়ারের শুরুতে এ নামটি দিয়েই তার পথ চলা শুরু। এরপর অসংখ্য হিট সিনেমা উপহার দিয়ে নিজেকে প্রকাশ করেছেন মানসম্পন্ন একজন হিরো হিসেবে। সেই সুনাম আজও পিছু ছাড়েনি রিয়াজের। আজ ২৬ অক্টোবর, নায়ক রিয়াজের জন্মদিন। নিউজ একাত্তর পরিবারের পক্ষ থেকে রিয়াজের জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিন রিয়াজ। ১৯৭২ সালে ফরিদপুর জেলা সদরের কমলাপুর মহল্লায় রিয়াজের জন্ম। তার ছেলেবেলা কেটেছে ফরিদপুর শহরের সিএনবি স্টাফ কোয়ার্টার্সের চৌহদ্দিতে। বাবা জাইনুদ্দিন আহমেদ সিদ্দিক ছিলেন সরকারি কর্মকর্তা, মা আরজুমান্দ আরা বেগম গৃহিণী। সাত ভাই-বোনের মধ্যে রিয়াজ সবার ছোট। ১৯৯৫ সালে মুক্তি পায় রিয়াজ অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র- বাংলার নায়ক। পরের বছর খ্যাতনামা চলচ্চিত্রকার দিলীপ বিশ্বাসের অজান্তে ও মোহাম্মদ হোসেনের প্রিয়জন সিনেমায় অভিনয় করেন। প্রিয়জনই- একমাত্র চলচ্চিত্র যাতে রিয়াজ অকালপ্রয়াত সালমান শাহের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। শাবনূর ও পূর্ণিমার সঙ্গে জুটি বেঁধে সাফল্য পেয়েছেন রিয়াজ। হুমায়ূন আহমেদের- দুই দুয়ারী, এসএ হক অলিকের- আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা ও হৃদয়ের কথা, মতিউর রহমান পানুর- মনের মাঝে তুমি, সুচন্দার- হাজার বছর ধরে, তৌকীর আহমেদের- দারুচিনি দ্বীপ ও গাজী মাহবুবের- প্রেমের তাজমহল, ওয়াজেদ আলী সুমনের- সুইট হার্ট, মেহের আফরোজ শাওনের- কৃষ্ণপক্ষ সহ অসংখ্য জনপ্রিয় ও প্রশংসিত সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি। এছাড়া তিনি সালমান শাহ এর পরে চিত্রনায়িকা শাবনূরের সঙ্গে সেরা জুটি। তার সঙ্গে অভিনয় করা উল্লেখযোগ্য সিনেমা হচ্ছে- মন মানে না, ভালোবাসি তোমাকে, প্রেমের তাজমহল, ও প্রিয়া তুমি কোথায়, হৃদয়ের বন্ধন ও মোল্লাবাড়ীর বউ। তারা ৪০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। রিয়াজ-শাবনূর জুটির সর্বশেষ চলচ্চিত্র শিরি ফরহাদ মুক্তি পায় ২০১৩ সালের ২২ মার্চ। অন্যদিকে ১৯৯৭ সালে মুক্তি পায় রিয়াজ-পূর্ণিমা জুটি অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র এ জীবন তোমার আমার। এ জুটির অন্যান্য সফল চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে মনের মাঝে তুমি, হৃদয়ের কথা, শাস্তি ও আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা। তারা ৩০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। এছাড়াও বেশ কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। শুধু সিনেমাতেই নয়, নাটকেও বেশ জনপ্রিয় রিয়াজ। বর্তমানে বড় পর্দার চেয়ে ছোট পর্দায়ই বেশি দেখা যায় এই তারকাকে।
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তৈরি গানের ভিডিওতে অপু বিশ্বাস
২৪,অক্টোবর,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রায় দেড় যুগ পর আবার গান-ভিডিওতে দেখা যাবে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে। শিমুল মাহমুদের পরিচালনায় ২২ নভেম্বর থেকে কক্সবাজারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে তৈরি গানটির শুটিং করবেন তিনি। শাহনাজ পারভীনের কথায় গানটির সংগীতায়োজন করেছেন আলমগীর। অপু বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমার আদর্শ। তাকে নিয়ে তৈরি হওয়া গানটির মডেল হতে পেরে আমি আনন্দিত। নিজেকে ধন্য মনে করছি। এমন সুযোগ বারবার আসে না। আমি পরিচালকের কাছে কৃতজ্ঞ এমন একটি গানে আমাকে মডেল হিসেবে পছন্দ করার জন্য। আশা করছি, গান-ভিডিওটি সবার ভালো লাগবে। চিত্রনায়িকা হওয়ার আগে মিউজিক ভিডিও করলেও পরবর্তী সময়ে অপু বিশ্বাসকে আর মিউজিক ভিডিওতে দেখা যায়নি। অনেক তারকা শিল্পীই প্রস্তাব দিয়েছিলেন তাদের গানে মডেল হওয়ার জন্য। কিন্তু চলচ্চিত্রে অভিনয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবতে চাননি এই ঢালিউড কুইন। গত মাসে মা শেফালী বিশ্বাসের মৃত্যুর পর অনেক দিন দেশের বাড়ি বগুড়ায় ছিলেন অপু। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে অনুদানের সিনেমা ছায়াবৃক্ষ- এ শুটিংয়ের কথা থাকলেও পরিচালক বন্ধন বিশ্বাসকে অনুরোধ করে সেটি পিছিয়ে দেন। নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ছায়াবৃক্ষ সম্পন্ন করে এই মিউজিক ভিডিওতে অংশ নেবেন তিনি।